Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

একটি পুরনো লাগেজ ও আমাদের দিনরাত্রি পর্ব : ৩ (শেষ পর্ব)

অনেকক্ষণেও ওদের কান্নার শোঁক না থামলে প্রসঙ্গ পাল্টাতে চা খেতে চাইলাম আমি। লালি উঠে চলে গেলো চা বানাতে। চায়ের সাথে আরো নানাবিধ গ্রাম্য পিঠা সামনে রাখলো লালি। ওর মন ভাল করতে বললাম – লালি তোমার তো অনেক গুণ। চায়ে মুখ দিয়ে বললাম – চায়ের সাধতো সর্গীয় চায়ের মত হয়েছে। আমার…

বিস্তারিত পড়ুন... একটি পুরনো লাগেজ ও আমাদের দিনরাত্রি পর্ব : ৩ (শেষ পর্ব)
Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

একটি পুরনো লাগেজ ও আমাদের দিনরাত্রি পর্ব : ২

ম্যাসেঞ্জারে রিপ্লাই দিলাম বালমোহনকে। সবই আছে কেবল চকলেট, খেজুর, মেকাপ বক্স আর শ্যাম্পু ছাড়া। শুনে সেও খুব পুলকিত হলো। বিজয়য়াম্মা লালি বালমোহনের ছোট কন্যার নাম। সেই মূলত ফেসবুক একাউন্ট চালায়। তাই বাবার পক্ষে সেই ইংরেজিতে চ্যাট করে আমার সাথে। আমি কি লিখি তা বাবাকে পড়ে শোনায়, আর বাবা যা বলে…

বিস্তারিত পড়ুন... একটি পুরনো লাগেজ ও আমাদের দিনরাত্রি পর্ব : ২
Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

একটি পুরনো লাগেজ ও আমাদের দিনরাত্রি পর্ব : ১

কলকাতা থেকে কোচিন যাচ্ছি ট্রেনে। বিশাল লম্বা জার্নি। কোচিন গেলেও জার্নি শেষ হবেনা। সেখান থেকে যেতে হবে কেরালার কুন্নামকুলাম। কুন্নামকুলাম থেকে আবার ৬ কিমি দূরের চেম্বানুর গ্রাম। এ গ্রামটি কুন্নামকুলামের কাছাকাছি হলেও গ্রামটি মূলত কেরালার থ্রিসুর জেলার অন্তর্গত। সঙ্গত কারণেই আমার পাঠক বন্ধুদের মনে প্রশ্ন জাগছে – বাংলাদেশের ঢাকাতে বসবাসকারী…

বিস্তারিত পড়ুন... একটি পুরনো লাগেজ ও আমাদের দিনরাত্রি পর্ব : ১
Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

সীমান্ত মানুষের জীবনগাঁথা

বাংলাদেশের জীবননগরের পুটখালি গ্রামে বাড়ি আমার। এ গ্রামটা ভারত বর্ডারের খুব কাছাকাছি। ভারতের ভজনঘাট এলাকার মানুষজন, হাঁটবাজার দেখা যায় আমাদের পুটখালি থেকে। কৃষি শ্রমিকের কাজ করি আমি পুটখালিতে। কিন্তু কদিন থেকে এলাকাতে কোন কাজ পাচ্ছিনা। বলতে গেলে বেকার জীবন কাটাচ্ছি সপ্তাহখানেক থেকে। ঘরে মা-বাবা ভাই-বোন ৭-জনের সংসার। চাল ডাল তেল…

বিস্তারিত পড়ুন... সীমান্ত মানুষের জীবনগাঁথা
Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

চার আনার স্টাম্পের চুক্তিপত্র

১৯৪৭-এর আগে আমার বাড়ি ছিল বৃহত্তর বাংলা প্রদেশের বাকেরগঞ্জ জেলাতে। একজন হিন্দু হিসেবে ওখানে হিন্দুপ্রধান গ্রামে বসবাস ছিল আমার! পূর্ব ও অসম রেলওয়েতে অস্থায়ী ‘কয়লা শ্রমিক’ পদে কাজ করতাম আমি। আমার সাথে কাজ করতো আসামের ধুবড়ী জেলার কুচড়ি গ্রামের মোহাম্মদ সেলিম শেখ। সারাদিন কাজ করার পর দুজনে রেলওয়ের পরিত্যক্ত সেডে…

বিস্তারিত পড়ুন... চার আনার স্টাম্পের চুক্তিপত্র
Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

একটি সুস্বপ্ন কিংবা দু:স্বপ্নের গল্প

কলকাতা একটা অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছি আমি। আয়োজক সংগঠনের নাম হচ্ছে ‘উভয় বাংলা একত্রীকরণ জোট’। প্রায় ত্রিশ বছর ধরে সোস্যাল মিডিয়ায় নানাবিধ জনমত গঠনের পর আজ এ সংগঠনের প্রথম কংগ্রেস কলকাতার ধর্মতলায়। এতোদিন ফেসবুক টুইটার ব্লগে যারা দুই বাংলাকে একত্রিকরণের পক্ষে নানাবিধ যুক্তি তুলে ধরেছেন, তারা অনেকেই ধর্মতলার এ অনুষ্ঠানে যোগ…

বিস্তারিত পড়ুন... একটি সুস্বপ্ন কিংবা দু:স্বপ্নের গল্প
Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

কলকাতার মিতালী এবং সেন্টিনেল দ্বীপ পর্ব : ৪ (শেষ পর্ব)

খাবার মাঝে রেখে চারদিকে বসলো আর দাঁড়ালো ওরা। বয়স্করা হাঁস আর শিকারী পশুগুলোকে কেটে সবাইকে দিতে থাকলো। নিজেরাও খেলো বন্টনের মাঝে। মাছও পরিবেশন করলো সবার মাঝে। কাঁচা মাছ আর মাংস কাঁচাই খেলো সবাই। প্রসূতি মা আর বৃদ্ধাকেও খাবার এগিয়ে দিলো এক নারী। সেও গিয়েছিল শিকারে পুরুষদের সাথে। সম্ভবত সেন্টিনেলরা নারী…

বিস্তারিত পড়ুন... কলকাতার মিতালী এবং সেন্টিনেল দ্বীপ পর্ব : ৪ (শেষ পর্ব)
Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

কলকাতার মিতালী এবং সেন্টিনেল দ্বীপ পর্ব : ৩

কুঁড়ের পথ ছেড়ে অন্ধকারে বড় গাছের আড়ালে চলে গেলাম দুজনে। মিতালী ক্যামেরা চালু রাখলো নাইট ভিশনের। কুঁড়ের সকল পুরুষেরা বের হয়ে বুড়োর ঘরের দিকে যেতে থাকলো। বুড়োকে ৪-জনে ধরাধরি করে নিয়ে এলো বাইরে। নাড়ার মত বড় ঘাস বিছিয়ে তাতে শুইয়ে রাখলো বুড়োকে অন্ধকারের মাঝে। বোঝা গেল মারা গেছে বুড়ো। সম্ভবত…

বিস্তারিত পড়ুন... কলকাতার মিতালী এবং সেন্টিনেল দ্বীপ পর্ব : ৩
Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

পাকিস্তান রাষ্ট্র নিয়ে আমার প্রথম লেখা “ইদি”

অনেক বিষয়ে গল্প, প্রবন্ধ এবং ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছি আমি। যার সংখ্যা ন্যূনতম ১০,০০০-এর কম হবেনা। কিন্তু পাকিস্তান নিয়ে কোন লেখা লিখিনি আমি। কারণ পাকিস্তান রাষ্ট্র কখনো পছন্দ নয় আমার। তাই অনেক দেশ ভ্রমণ করেও PIA-তে কখনো ভ্রমণ করিনি, যদিও ভুটানের দ্রুক এয়ারেও ভ্রমণ করেছি আমি। পাকিস্তানের তৈরি জামা-পোশাক কখনো পরিনি,…

বিস্তারিত পড়ুন... পাকিস্তান রাষ্ট্র নিয়ে আমার প্রথম লেখা “ইদি”
Posted in গল্প ব্যক্তিগত কথাকাব্য শোকগাঁথা

কুরবানী ও ধার্মিক ষাঁড়

চাইনিজ বন্ধুর আমন্ত্রণে অবশেষে চায়না ইস্টার্ন এয়ারে ফ্ল্যাই করে প্রথমে কুনমিং শেষে সাংহাই বিমানবন্দরে নামলাম ঠিক বিকেল ৪টায়। উ সি চ্যাং নামের আমার চাইনিজ বন্ধু জিন বিজ্ঞানী স্ত্রী চিয়াং ফি সহ উপস্থিত রইলো আমাকে তার অফিস কাম বাড়ি কাম গবেষণা কেন্দ্রে নিয়ে যেতে। আমরা দুজনে পেছনে বসলাম, আর পুরো পথ…

বিস্তারিত পড়ুন... কুরবানী ও ধার্মিক ষাঁড়