Posted in Uncategorized

সুখের কবিতা

এটা কোন সুখের কবিতা হতে পারেনা। ধর্ষিতা এক মেয়ের প্রথম প্রেমে পড়ার দিন ছিল সেটা, সমাজের চেতনাধারীরা প্রতিবাদ করেছিল তর্জনী উঁচিয়ে, মেয়েটিকে ভালবাসতে দেয়া যাবেনা। কোন ভাবেই না। প্রতিটা ধর্ষক লম্পট সেদিন নীতিবাক্য শুনিয়েছিল সভা -সেমিনারে! আমরা করতালির উৎসব করেছিলাম সেদিন।

বিস্তারিত পড়ুন... সুখের কবিতা
Posted in Uncategorized

ভালোবাসা

ভালবাসাগুলো ক্রমেই নাম পাল্টাতে থাকে। তারা হয়ে উঠে ক্রাশ। প্রেমপত্র হাওয়া হয়েছে কবেই। এখন এসেছে কনফেশন।সম্পর্কগুলো এখন গিরগিটি-ক্ষণে ক্ষণে রঙ পাল্টায়।তাকে এখন বলা হয় রিলেশন। অংকের খাতায় অযথা আঁকিবুকি, ভাড়াটিয়াদের ছাদে উকিবুকি, টিফিনের টাকা বাঁচিয়ে গিফট কিনে দেবার সংগ্রাম, গালে নতুন গজানো দাঁড়িগুলোকে আর একটু বড় হতে দেওয়া, কাককে কোকিল…

বিস্তারিত পড়ুন... ভালোবাসা
Posted in Uncategorized

মুখোশ : পর্ব ১

দিনের বেলায় ধর্ষণ বিরোধী মানবন্ধন শেষে, রাতের অন্ধকারে মুখ গুজে দিয়েছি পর্ণ মুভীর মহোৎসবে। নারীবাদী পুরুষ অনেক আছে যাদের দেখেছি নারীর স্বাধীনতা নিয়ে মুখে ফেনা তুলতে, তারা মুখোশের আড়ালে ধর্ষণকে করেছে প্যাশন। বহু পুরুষবিদ্বেষী অনলাইন নারী কতবার শুয়েছে অন্যের বিছানায় তার হিসেব কে রেখেছে! কত মেয়ে নিজেকে ভার্জিন বলে দাবি…

বিস্তারিত পড়ুন... মুখোশ : পর্ব ১
Posted in Uncategorized

পাখিদের দেশে রিয়াজ ভাই

ওরা ভালো নেই। ওরা বলতে পাখিরা।পাখিদের কষ্ট বেশি। কারণ ওরা কাঁদতে পারেনা।কাঁদতে পারলে ভাল হতো।কষ্টটা কমতো। ওদের জন্য কেউ ভাবেনা। ভাবলে সভ্য সমাজে তাকে সোজাসুজি পাগল বলে।রিয়াজ ভাই সোজাসুজি পাগল। অন্তী ছাদে দাঁড়িয়ে পাখিদের ওড়াউড়ি দেখছিল। তার মনটা খারাপ। মন খারাপ তার নিজের জন্য না।অন্য কারো জন্য। অন্তী জানে এখনই…

বিস্তারিত পড়ুন... পাখিদের দেশে রিয়াজ ভাই
Posted in Uncategorized

আত্মসমর্পণ

দূরে দাঁড়িয়ে থাকা কোন মেয়ে, যাকে দূর থেকে দেখেই প্রেমে পড়া যায়, চোখ দেখে যার স্বপ্ন চেনা যায়, হৃদয় দিয়ে কিছু একটা কিছু অনুভব করা যায়, অধরা একটা কিছু খুঁজে পাওয়া যায়।

বিস্তারিত পড়ুন... আত্মসমর্পণ
Posted in Uncategorized

কাকভেজা

এই যে শুনুন। আপনার নামই তো আকাশ? -হুমম। আমি বৃষ্টি। আপনার কথা অনেক শুনেছি।আপনি নাকি অনেক বোকা? -হুমম। শুনেছি আপনি নাকি জেনে শুনে বোকামি করেন। কথাটা কি সত্যি? -না মানে এত মানে মানে করেন ক্যান? কথা বলতে পারেন না? আজব -ইয়ে মানে। মেয়েদের সাথে কথা বলতে আমার ভয় লাগে। শুনুন…

বিস্তারিত পড়ুন... কাকভেজা
Posted in Uncategorized

নিঃসঙ্গ রাত্রিযাপন

শরতের আকাশ জুড়ে মেঘের মাতামাতি। কখনোবা একটু আধটু বৃষ্টির ফোঁটা, মনে হয় যেন আনমনে খসে পড়া কোন তরুণীর ওড়না। আস্তে আস্তে রাত নামে। আসে অন্ধকার। মাঝে মাঝে যখন ফোনটা বেজে উঠে, আমার উৎসাহী চোখজোড়া মোবাইলের স্ক্রিনে ছুটে যায়। অপরিচিত কোন নাম্বার থেকে আসা পরিচিত সেই কন্ঠস্বর খুঁজি আমি। -স্যরি, রং…

বিস্তারিত পড়ুন... নিঃসঙ্গ রাত্রিযাপন
Posted in Uncategorized

একটিবার মানুষ হয়ে

গ্রীষ্মের দুপুরে যখন ক্ষুধার্ত কাক হয়ে জন্মেছিলাম আমি, বাংলার নদী আমাকে নিরাশ করেনি। সবটুকু ত়প্তি দিয়ে তার জল আমি শুষে নিয়েছিলাম। সেই থেকে তার সাথে আমার আজীবনের বন্ধন। শুধু একবার মানুষ হয়ে জন্মাতে চাই, নইলে যে তাকে আর মা ডাকা হবেনা। বৃষ্টির টুংটাং শব্দগুলো, ধোঁয়া উঠা কাপে হারানো মুহূর্তগুলো কিংবা…

বিস্তারিত পড়ুন... একটিবার মানুষ হয়ে
Posted in Uncategorized

এখনো বৃষ্টি নামে

শহর জুড়ে স্নিগ্ধতা ছড়িয়ে দিতে নামে এক পশলা বৃষ্টি, যদি প্রতিদিন বৃষ্টি নামতো আমিও হতাম কবি। সময়টা আজ কেমন যেন। বৃষ্টির জলে মিশে যায় যুবকের প্রেমিকার জন্য রাখা শেষ অশ্রুটুকু।

বিস্তারিত পড়ুন... এখনো বৃষ্টি নামে
Posted in Uncategorized

হাজার বছর পরে

তখন তুমি নেই, আমি নেই। কিন্তু আমার হয়ে হয়তো অন্য কেউ। অন্য কেউ ঠিকই ভালবাসবে। আজগুবি শব্দে কারও খাতা ভরে যাবে। শুকিয়ে যাওয়া গোলাপ আবারও ফুটবে। নীল বুনোফুল ফুটবে এই শহরে। শহরের কাকগুলো হয়ে যাবে কোকিল। ডাস্টবিনকে মনে হবে সবুজ গাছ। আবারো শহরে নীল আলো জ্বলবে।

বিস্তারিত পড়ুন... হাজার বছর পরে