Posted in Uncategorized

এভাবেই বৈশাখ আসে!

চৈত্র সংক্রান্তিতে মায়ের হাতের পাঁচন খেয়েছি অনেকবার পাঁচ তরকারি শাক- আতপচালের অন্ন আর মিষ্টান্নভোজন, শেষ বিকেলে চড়ক পূজো থেকে বাড়ি ফিরতাম বিস্ময় নিয়ে! পহেলা বৈশাখ আমার কাছে কখনোই অন্যরকম ছিলনা, এক বৈশাখেও কোনদিন পান্তা কিংবা ইলিশ খাওয়া হয়নি- সখের বশে বিলাসীতার বালাই দিতে আমার গায়ে বাঁধে! সন্ধ্যাটুকু পাঠ্যবইয়ের পাতা- সহজ…

বিস্তারিত পড়ুন... এভাবেই বৈশাখ আসে!
Posted in Uncategorized

লালন জিজ্ঞাসা ও আরো পাঁচ কথা! – নিবিড় রৌদ্র

লালন জিজ্ঞাসা _______নিবিড় রৌদ্র ঐ আকাশ যখন বর্ণমালার ‘আ’ তেও ছিলনাকো জিজ্ঞাসিলে খোদার কথা ওরা কোথায় দেখাতো! ও লালন জান নাকি তখন? জিজ্ঞাসিলে খোদার কথা ওরা কোথায় দেখাতো! শূন্যে শূন্যে মহাশূন্যে শূন্য ছাড়া আর কাহার বাস? গ্রহ তারা চাঁদের সাড়া সবই নাকি তাহার আভাস! তাই যদি হয় সৃষ্টির আগে চাঁদের…

বিস্তারিত পড়ুন... লালন জিজ্ঞাসা ও আরো পাঁচ কথা! – নিবিড় রৌদ্র
Posted in Uncategorized

‘স্বাধীনতার শুভেচ্ছা জানানোর আমি কে!’ এবং চারটে কবিতা।

স্বাধীনতার শুভেচ্ছা জানানোর আমি কে! _______ নিবিড় রৌদ্র স্বাধীনতার শুভেচ্ছা জানানোর আমি কে? স্বাধীনতা ঢুকরে কাঁদে দরজাআঁটা ঘরে, স্বাধীনতার শুভেচ্ছা জানানোর আমি কে? স্বাধীনতা বেঁচে আছে আজ ধর্মকে আঁকড়ে ধরে! স্বাধীনতার শুভেচ্ছা জানানোর আমি কে? স্বাধীনতা পেটের দায়ে অথচ পতিতার পরিচয়ে! স্বাধীনতার শুভেচ্ছা জানানোর আমি কে? স্বাধীনতা মরে পড়ে থাকে…

বিস্তারিত পড়ুন... ‘স্বাধীনতার শুভেচ্ছা জানানোর আমি কে!’ এবং চারটে কবিতা।
Posted in Uncategorized

নিবিড় রৌদ্রে’র চার কবিতা…!

যাচ্ছে যদি যাকনা চলে রৌদ্রজ্বলা দিন, আমার কাছে থাকনা জমা তোমার কিছু ঋণ আজ শহরে আগুন ঝড়ে ঝরছে বারুদ সেই মেয়েটির বারান্দাতে আজ অবরোধ! কোন সে পথিক পথের মাঝে সন্ধ্যা হারায় এ কোন পাখি রোদের ভেতর পালক ছড়ায়? আজকে আমি পাখি হব আগুন পাখি রোদন রোদের বক্ষ ছিঁড়ে উড়তে থাকি,…

বিস্তারিত পড়ুন... নিবিড় রৌদ্রে’র চার কবিতা…!
Posted in Uncategorized

এই অবাকাশ!

এখন ক্লান্ত সবাই, কোথাও ব্যস্ত শহর সুখআলাপনে- আমি হাতরে ফিরে স্মৃতি আজ কাঁদিনা আর অভিমানে! কি যেন জ্বলে দহনে ছাইদানিতে আর হৃদয় পুড়ে ওরা সুখে থাক্ খুব ভালো থাক্ সবে নিয়মের ঘরে, ভালবাসা একাকী যায়না ধরে রাখা বুকে, আপন বিশ্বাস আপনাতেই দাঁড়ায় যেন রুখে একা পথা চলা আর পাগল পাগল…

বিস্তারিত পড়ুন... এই অবাকাশ!
Posted in Uncategorized

নিবিড় রৌদ্রের পাঁচ-প্যাঁচাল

আমি বেঁচে আছি, জিজ্ঞেস করো প্রাণ চাহে কি মোর! কিসের ব্যাথা বাজে মনে রাতদুপুর। আমি বেঁচে আছি ঠাঁই দাও বুকে তাকাও,দেখো দ্রোহাগুন খুঁজে পাবে চোখে- কান পেতে শুনো হৃদে কম্পিছে প্রেমের নুপুর। আমি বেঁচে আছি তাই কোন নাম নেই আমি জীবিত বলে অনুভূতি সমাহারে দাম নেই, আর আমায় নিয়ে গবেষণা…

বিস্তারিত পড়ুন... নিবিড় রৌদ্রের পাঁচ-প্যাঁচাল
Posted in Uncategorized

শিশসূলভ কবি!

অথবা বলতে পারো, অদ্ভুত ইস্যুহীনতায় ভুগে কবি প্রতিজন নতুবা বলতে পারো সব ইস্যুতেই সব কবিদের শিশুসূলভ অংশগ্রহণ। হোক তা প্রেমানুরূপ হোক কিংবা প্রিয়ার স্বরূপ; আর যদি অধিকার ক্রমাগত বিদ্রোহে নেয় রূপ তাতেও কেঁদে উঠে, আচমকা কেঁপে উঠে কবিমন- সব ইস্যুতেই সব কবিদের শিশুসূলভ অাচরণ। যদি মুখর পথে পড়ে থাকে অনাহারী…

বিস্তারিত পড়ুন... শিশসূলভ কবি!
Posted in Uncategorized

পাকিস্থানের ইতিহাস!

আগুন ঝরা ফাগুন আমার রক্ত ঝরা মার্চ, এমনি এক কালো রাতে পাক সেনাদের সার্চ! বাঙালিদের ঘরে ঘরে সেই আগুনের রেষ, ঘুমন্ত বাপ ছেলে বুড়ো সব যে পুড়ে শেষ!

বিস্তারিত পড়ুন... পাকিস্থানের ইতিহাস!
Posted in Uncategorized

প্রত্যক্ষে আড়াল যে ভবিষ্যৎ!

দুর্বিত্তের ইতিবৃত্তে তুমিও মানুষ, আজ আমার মৃত্যুর জন্য কোন শোক প্রকাশ নয়! জেনে রেখো, একদিন অপঘাতে তোমার মৃত্যুর জন্যও কেউ দায়ী নয় কেউ দায়ী নয়। আমি দেখেছি জনপথে সত্যের মুন্ডকাটা লাশ, বিস্তৃত জনতার সম্মুখে মিথ্যার গলাছেঁড়া উল্লাস! প্রতিনিয়ত প্রচলিত সামাজিক নজরে আমি দেখেছি অবিরাম মূল্যবোধের অবক্ষয়, আমি জেনেছি পাষানের পাঁজরে…

বিস্তারিত পড়ুন... প্রত্যক্ষে আড়াল যে ভবিষ্যৎ!
Posted in Uncategorized

আমরা ঘাতক বাঙালি!

আমরা ইতিহাসের পাতার সাথে মিলেমিশে হাঁসের মাংস ঢেলে বিদেশী গ্লাসে প্রোগ্রাসে গিলি, আমরা বায়ান্ন আর একাত্তরের বোকা শহীদের পিঠ চাপড়ে হেসে হেসে আমরা ইতিহাসের পাতার সাথে মিলেমিশে হাঁসের মাংস ঢেলে বিদেশী গ্লাসে প্রোগ্রাসে গিলি, আমরা বায়ান্ন আর একাত্তরের বোকা শহীদের পিঠ চাপড়ে হেসে হেসে সাবাস সাবাস বলি! মৃত্যু দেখি মৃত্যু…

বিস্তারিত পড়ুন... আমরা ঘাতক বাঙালি!