Posted in Uncategorized

রানুকে

ঠোঁটে হালকা করে লিপস্টিক দিয়েছি খানিক আগে। হাতে পড়েছি মায়ের চুড়ি। শাড়ি পড়িয়ে দিয়েছেন মেজো ফুপু। বলা নেই কওয়া নেই মেজো ফুপু এসে বললেন, এই রানু, ঝটপট নেংটো হয়ে যা তো। আমি তো আকাশ থেকে পড়ার মত করে বললাম, কেন ফুপু! – আজ তোকে আগা গোড়া মনের মত করে সাজাবো।…

বিস্তারিত পড়ুন... রানুকে
Posted in Uncategorized

জনক

আমাকে দেখতে এসেছেন বাবা। দীর্ঘদিন গ্রামের বাড়ি যাওয়া হয় না। বাবা আমার কাছে এসে প্রথম যে কথা বললেন, তোকে দেখতে এসেছি ভাবিস না। এসেছিলাম অফিসের একটা কাজে। ভাবলাম এসেছি যখন তোকে দেখেই যাই। আমি বাবাকে এ ব্যাপারে তেমন কিছু বলি নি। শুধু মুঁচকি হেসে বলেছি, বাড়ি থেকে খাবার দাবার এসব…

বিস্তারিত পড়ুন... জনক
Posted in Uncategorized

একটি না ভোলা দিন!

জীবন অনেক সুন্দর। অনেক বৈচিত্রময়। প্রতিটা প্রদক্ষেপেই আমাদের শিখার অনেক কিছুই আছে। জীবন অনেক ক্ষুদ্র হলেও এই ক্ষুদ্রেও জীবন থেকে আমাদের প্রাপ্তি বিশাল। একে কখনোই অর্থ দন্ডে মাপা যাবে না। মাপাটাও বড় বেয়াদবি। জীবন হল উপভোগের জিনিষ। আর উপভোগ কখনোই পুরোপুরি ভোগ নয়। বিধাতার কাছে একটাই চাওয়া, ডেক না মোরে,…

বিস্তারিত পড়ুন... একটি না ভোলা দিন!
Posted in Uncategorized

মায়া মৃগ!

-স্যার, আমার একটু আর্লি ছুটি দরকার। -কেন? আর্লি ছুটি লাগবে কেন? -স্যার, বাবার সাথে দেখা করতে যাব। -বাবার সাথে দেখা করতে যাবে মানে? কোথায় উনি? -স্যার আমি বলতে পারব না কোথায় উনি। তবে আমার দেখা করতে যেতে হবে। -তোমার বাবা কোথায় সেটাই জানো না, কিন্তু ছুটি চাইছ! এ কেমন কথা?…

বিস্তারিত পড়ুন... মায়া মৃগ!
Posted in Uncategorized

সিগারেট থেকে শুরু, শেষকালে হেরোইন! মাঝখানে একটু আধটু…!!!

১১ সেপ্টেম্বর, ২০০৮ ইং আমার HSC ফলাফল দেয়ার পরের দিনের ঘটনা। আমি কোচিং ক্লাসে যাই। কোচিং শেষ করার পর, নোয়াখালি’র মাইজদী নূতন বাস স্টেশনের পাশের একটি দোকানে গেলাম। আশে পাশে লোকজন দেখে নিলাম। পরিচিত কাউকেই দেখছিলাম। প্রথমে দোকানদারের কাছ থেকে একটা এনার্জি ড্রিঙ্ক নিলাম। তারপর ২টা চুইং গাম নিলাম। এরপর…

বিস্তারিত পড়ুন... সিগারেট থেকে শুরু, শেষকালে হেরোইন! মাঝখানে একটু আধটু…!!!
Posted in Uncategorized

একটি ঈদ এবং স্বপ্নের অপমৃত্যু!

১. বাইরে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। গাড়ির জানালার কাঁচ বেয়ে বৃষ্টির ফোটা গুলো আঁকা বাকা হয়ে নেমে আসছে। ঝাপসা জানালায় জমে যাওয়া বাষ্পে তর্জনী দিয়ে দুটো নাম লিখল মোহাম্মদ জয়নাল। মোবারক, ঝুমুর। মোবারক তার বড় ছেলে। বয়স ৭ বৎসর। ক্লাশ টু তে পড়ে। আর ঝুমুর তার ছোট মেয়ে। একমাত্র মেয়ে।…

বিস্তারিত পড়ুন... একটি ঈদ এবং স্বপ্নের অপমৃত্যু!
Posted in Uncategorized

তাই সাধু সাবধান!

অমি আসরের নামাজ পড়ে মসজিদ থেকে বেরিয়েছে মাত্র। একটা ২৫ কি ২৬ বৎসর বয়সের লোককে খেয়াল করল সে। বারবার তার দিকে তাকাচ্ছে। লোকটাকে মসজিদেই দেখেছে সে। অমিকে কিছু একটা বলতে চাচ্ছে সে। কিন্তু অই লোকটার দিকে তাকালেই লোকটা অন্য দিকে ফিরে যাচ্ছে। এমনি এমনি তাকাচ্ছে ভেবে অমি আর লোকটার দিকে…

বিস্তারিত পড়ুন... তাই সাধু সাবধান!
Posted in Uncategorized

শিরোনামহীন!!!

বাবা মায়ের একমাত্র ছেলে সুপ্ত। সুপ্তের জন্মের আগে তাঁর মায়ের আরও তিনটি সন্তান পৃথিবীর মুখ দেখার আগেই দুনিয়াছাড়া হয়েছিল। সুপ্তর জন্মের পর ডাক্তাররা বলে দিয়েছিল সুপ্তের মা আর গরভধারন করতে পারবেন না। তি সুপ্তকে ঘিরেই তাঁর বাবা মায়ের অনেক আশা ভরসা। অনেক আদরে যতনে সুপ্তকে বাড়িয়ে তুলেছেন তাঁর বাবা মা।…

বিস্তারিত পড়ুন... শিরোনামহীন!!!
Posted in Uncategorized

অবেলায়

এই যুগে যেখানে প্রায় ছেলে মেয়েই নিজেরা নিজেদের পাত্রপাত্রি পছন্দ করে বিয়ে করে, সেখানে নিধি ও করিম বিয়ের ৫ দিন আগেও কেউ কাউকে চিনত না। পারিবারিক ভাবেই তাঁদের বিয়েটা সম্পন্ন হয়েছে। দুজনেই আবার বিয়ের আগে প্রেম ও করে নি। বিয়ের আগের প্রেমটাকে দুইজনের কাছেই জঘন্য বলে মনে হত। তবে তাঁরা…

বিস্তারিত পড়ুন... অবেলায়
Posted in Uncategorized

ব্যক্তিগত কথা!

আমার এক বন্ধুর সাথে কথা বলছিলাম। পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষকতা করে। শিক্ষকতা পেশা তাঁর কাছে কেমন লাগে প্রশ্নটির জবাবে সে সদা হাস্য একজন মানুষ। বন্ধুটি রসিকও বটে! তো তাঁর শিক্ষকতা জীবনের অনেক সুখে দুঃখের অভিজ্ঞতার কথা বলতে গিয়ে সে খুব মজার দুটি ঘটনা বলেছে আমাকে। সে ৭ম শ্রেণির কৃষিশিক্ষা খাতা কাটতেছিল।…

বিস্তারিত পড়ুন... ব্যক্তিগত কথা!