Posted in Uncategorized

দর্পণ

ক – ১ সালমা রুদ্ধশ্বাসে দৌড়াচ্ছে। দিগ্বিদিক কোন খেয়াল নেই। দৌড়াচ্ছে। কোথায় যাচ্ছে, কোন খেয়াল নেই। দৌড়াচ্ছে। ‘দৌড়াচ্ছে’ শব্দটা অবশ্য ভুল। ভেসে যাচ্ছে। স্রোতটা যেদিকে যাচ্ছে, তার সাথে নিয়ন্ত্রণহীন ভাবে ভেসে যাচ্ছে। মানুষের স্রোত। ওড়নাটা হঠাৎ রাস্তার ধারে একটা কাঁটাগাছের সাথে আটকে গেল। ছাড়িয়ে নেয়ার সময় নেই। ওড়না ফেলেই দৌড়াচ্ছে।…

বিস্তারিত পড়ুন... দর্পণ
Posted in Uncategorized

আজকের দুপুরের পর

অতঃপর আজ দুপুরের প্রবল উত্তাপে, দুটো ঠোঁটে অরুচি ধরেছে। আলতো গোলাপী রং এর দুটো ঠোঁট ছাড়া আর কিছুই রোচে না মুখে। মধ্য দুপুরের র‍োদে পুড়ে আমার সকল অনুভূতি আজ মরে গেছে। তুলতুলে হাত শক্ত করে ধরা ছাড়া আর কোন কিছু অনুভবে নেই। দশদিকে দূষিত বাতাসে আর শ্বাস নিতে ইচ্ছে নেই।…

বিস্তারিত পড়ুন... আজকের দুপুরের পর
Posted in Uncategorized

সেদিন

যদি একদিন আমার পুনর্জন্ম হয়ে যায়; কথা দিচ্ছি ভালবাসব। সেদিন আর বলব না, কথা দিচ্ছি – আমি যে বড্ড অযোগ্য, তিমিরাভ, পাপাচারী, অচ্ছুৎ, কাঙাল। সেদিন হাসনাহেনার তলায় মই লাগিয়ে, আমি বেয়ে বেয়ে উঠব চন্দ্রাবধি। তোমার ঠোঁটে সেদিন আলতো করে চুমু খাব। তোমার শ্যামরঙা গাল লাজে লাল হয়ে যাক। কিছু আসে…

বিস্তারিত পড়ুন... সেদিন
Posted in Uncategorized

শ্রাবণের অবিশ্বাস

হ্যাঁ বলেছিলাম, একদিন হব তোমার আকাশ। এবং তোমার দুই হাত শক্ত করে ধরে আর তোমার প্রশ্বাস হ্যাঁ বলেছিলাম, ছাড়ব না এই হাত কোনদিন – দিয়েছি আশ্বাস। কাউকে দিই নি আমি কখনও এক ফোঁটা কথা। তুমিই প্রথম… এবং এটাও আমি জানতাম, তুমিই শেষের কোন নীরবতা; দুঃসাহস আমি দেখিয়েছিলাম, যাকে কথা দিয়ে…

বিস্তারিত পড়ুন... শ্রাবণের অবিশ্বাস
Posted in Uncategorized

লিভিং টুগেদার : কিছু ফ্যান্টাসি, কিছুটা অতি-বিপ্লবী মানসিকতা, অতঃপর বাস্তবতা…

লিভ টুগেদার / কোহ্যাবিটেশন এর সংজ্ঞা দিতে গিয়ে উইকিপিডিয়াতে বলা হয়েছে, “Cohabitation is an arrangement where two people who are not married live together in an emotionally and/or sexually intimate relationship on a long-term or permanent basis.” [1] ওয়েব ডেফিনিশন অনুযায়ী, “The act of living together and having a sexual…

বিস্তারিত পড়ুন... লিভিং টুগেদার : কিছু ফ্যান্টাসি, কিছুটা অতি-বিপ্লবী মানসিকতা, অতঃপর বাস্তবতা…
Posted in Uncategorized

একুশে

হয়তো দিনটা ছিল আর দশটা দিনের মতই; পার্থক্য, ওরা প্রতিবাদকে করতে চেয়েছিল শৃঙ্খলিত; পার্থক্য, এই দিনটাতে সাড়ে চার কোটি আত্মা তার ভাষার প্রতি, তার মায়ের প্রতিটি ধ্বনির প্রতি, যেটুকু ভালবাসা রুদ্ধ করে রেখেছিল অন্তহীন কারায়- তারা হৃদয়ের লৌহকপাট বিচূর্ণ করে প্রস্ফুটিত হয়- শ্বেত-পদ্মেরন্যায়। যা প্রতিটি বাঙালিকে ধাবিত করেছিল, মৃত্যুভয় উপেক্ষা…

বিস্তারিত পড়ুন... একুশে
Posted in Uncategorized

সে নেই ! ( বর্ষপূর্তি গল্প প্রতিযোগিতা )

তার সাথে আমার পরিচয় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। শিখা চিরন্তনের দু’পাশে যে দু’টো উঁচু ঢিবির মত ‘কিছু একটা’ আছে, সেখানে বসে ছিলাম তখন আমি। এবং আমি নিজেও ছিলাম তখন খানিকটা অনিয়ন্ত্রিত অবস্থায়। নিজের ওপর নিয়ন্ত্রণ ঠিক সেই মুহূর্তে আমার খুব কম ছিল। আর তার সাথে দেখা হবার ওপর নিয়ন্ত্রণ ছিল না বললেই…

বিস্তারিত পড়ুন... সে নেই ! ( বর্ষপূর্তি গল্প প্রতিযোগিতা )
Posted in Uncategorized

ইয়াবা সম্মেলন!

বের হবার কথা ছিল তিনটায়। আম্মু ঘুম থেকেই তুলল তিনটায়। ঝড়ের বেগে খাওয়া গোসল সেরে বেরোলাম তিনটা বাইশে। গন্তব্য শাহবাগ। জাতীয় জাদুঘরের সামনে বিকেল চারটায় আজকে ইয়াবা সম্মেলন।

বিস্তারিত পড়ুন... ইয়াবা সম্মেলন!
Posted in ব্লগ

পথ [[শেষ পর্ব]]

প্রথম পর্ব শাহবাগে যখন পৌঁছুলো তখন মাত্র পঞ্চাশ ষাট জন লোক হবে। জয় খানিকটা হতোদ্যম হয়ে গেল। কিন্তু, হঠাৎ খেয়াল করল মানুষ বাড়ছে। চারটা রাস্তা ধরেই মানুষ আসছে। হঠাৎ দেখলেন রাস্তার পাশে একটা মেয়ে বসে আছে। হাতে একটা প্ল্যাকার্ড – রাজাকারের ফাঁসি চাই। জয়ের মাথার ভেতরে বো বো করে ঘুরতে…

বিস্তারিত পড়ুন... পথ [[শেষ পর্ব]]
Posted in ব্লগ

পথ [[প্রথম পর্ব]]

“রা’আদ ভাই, গল্প তো আরেকটা লাগবে। হাজার দেড়েক শব্দের।” নির্ঝর ঘরে ঢুকতে ঢুকতে কথাটা রহমান রা’আদের দিকে ছুড়ে দিল। রা’আদ সাহেব অবাক হলেন না। নির্ঝরের কথা বলার ধরণই এমন। কোন ভূমিকা ছাড়া হঠাৎ কিছু নিয়ে কথা বলতে শুরু করবে। যেমনটা এখন করল। কারও বাসায় এলে দরজা খোলার পর সাধারণত অভিবাদনমূলক…

বিস্তারিত পড়ুন... পথ [[প্রথম পর্ব]]