Posted in কবিতা

‘ছুঁতে হবে দিগন্ত রেখাটা’

 মাইনুর নাহার  “ছুঁতে হবে দিগন্ত রেখাটা তবেইতো খুঁজে পাবে মনের ঠিকানা ! দিন গেলে যাক চলে যাক, হলুদ-বিবর্ণ ফুল হতে দেব না তোমায়!”

বিস্তারিত পড়ুন... ‘ছুঁতে হবে দিগন্ত রেখাটা’
Posted in কবিতা

আত্ম প্রবঞ্চনা

“জানি স্বপ্নের কোন রূপরেখা নেই হাত বাড়ালেই ছোঁয়া যায় না তাও জানি তবু স্বপ্নেই তার হাত ধরি একলা বসে পুকুর ঘাটে ওপারের তার সাথে ভাব করি-লুকোচুরি ইশারায় । এটা ঠিক ভালবাসা নয়, এখনতো আমি রাখি দুরত্বের জ্যামিতির মাপ। তোমার শ্রুতি এড়াতে কতোশত দীর্ঘশ্বাস বুকে চেপে রাখি, তোমার ছায়ায় দাঁড়িয়ে আড়াল…

বিস্তারিত পড়ুন... আত্ম প্রবঞ্চনা
Posted in কবিতা

তোমার অজান্তে

“আজ ঘুমের ঘোরে পাশ ফিরতে গিয়ে দেখি, আমার অজান্তে তুমি ঠোটজোড়া স্পর্শ করে আছ! তাই মস্তিষ্ক অবশ আজ ; হৃদয়জুড়ে রক্তের বন্য ছোটাছুটি! এবার আমরা হোলি খেলব- প্রিয় জবা তৈরি থেকো প্রিয় পথ জেগে থেকো প্রিয় মুখ অভিসম্পাত করো- সময়ের প্রয়োজনে প্রিয় চাঁদ বেনোজলে নেমেছিলো বলে।”

বিস্তারিত পড়ুন... তোমার অজান্তে
Posted in কবিতা

বিষাক্ত প্রলাপ

“আকাশটাই যতসব নষ্টামির মুল, ওর বুকে মেঘ জমলেই আমারও খুব ইচ্ছে করে সদর দরজার চৌকাঠ মারিয়ে দূরের মাঠের বৈরাগী হয়ে যেতে , ঝড়ো বাতাসের ডানায় চড়ে ঈশাণকোণে হারিয়ে যেতেও ইচ্ছে করে খুব । এমন ইচ্ছেও উঁকি দিয়ে যায় – বজ্র হয়ে নেমে এসে মুহূর্তের ঝলকানিতে নিঃশেষ করে দিই ধর্মষাঁড়ের পোক্ত…

বিস্তারিত পড়ুন... বিষাক্ত প্রলাপ
Posted in কবিতা

মানবিক মায়া

মাইনুর নাহার “দারুন কিছু মুহূর্ত হারিয়ে সময়কে থামিয়ে রাখার চেষ্টা সে তো ক্ষণিকের ভাবনা ; চাইলেই তা মুঠোবন্দী– কেন মিছে করছো এমন দুরাশা? দাঁড়াও মুহূর্তকে ভেঙ্গে আটকাই যদিও রোমান্টিক কোন ভাব বিনিময় শর্তের অলিতে গলিতে গন্ধ ছড়াবে শরীরী খেলায় । শীতল থেকে আরও শীতল কিংবা,বাষ্পায়িত আবেগ হবে বিষণ্ণ বিরহানলঃ কী…

বিস্তারিত পড়ুন... মানবিক মায়া
Posted in কবিতা

মানিয়ে যাস-

মাইনুর নাহার “জানি না কে তুই; এসেছিস কোন তীর্থ হতে, কীভাবে মানিয়ে যাস এইভাবে তুই – আমাকেও টেনে নিস নিজ-ছায়াতলে! মেঘের ঘনঘটা দেখে সোনারোদ হেসে নেয় আড়াল, তুই কোন তপস্যার বলে বল ছড়িয়ে রাখিস এই প্রশান্তির জাল! কী করে পারিস তুই বুকভরা অভিমান ভোলাতে আদরে ঠিকই জানি, দর্প আছে তোরও…

বিস্তারিত পড়ুন... মানিয়ে যাস-
Posted in কবিতা

মাধবী

মাইনুর নাহার “হাঁসের মতো জলকেলি শেষে জলেই যেত যদি রতিপাপ ধুয়ে তবে আমি মাধবী হতাম সঙ্গম শেষে জলেই কামগন্ধ ধুয়ে নিতাম বারবার,প্রতিবার কামকলা পারদর্শী যোগিনী সেজে কামরসে হতাম সিক্ত। এসবের কোন কিছুই সম্ভব নয় বলে আজও আমি রস কলা বুঝতে পারিনি!”

বিস্তারিত পড়ুন... মাধবী
Posted in কবিতা

তবুও কি তুমি যাবে?

মাইনুর নাহার “খুব করে মাখাব আজ গাঢ়লাল লিপস্টিক, কাজলটানা চোখ, গোলাপী ব্লশ-অন করা চিবুক, আর কী চাই? তবুও কি যাবে নাকি তুমি সোনাগাছি? ইউটিউব ঘেটে জেনে নিয়েছি চুমুর আদ্যান্ত; ফোর-প্লে, তবুও কি যাবে না কি তুমি সোনাগাছি? অনেক নির্জন রাতের দীর্ঘশ্বাস সাক্ষী হয়ে আছে, কামনায় কামনায় ক্ষতবিক্ষত হওয়া এই দেহ…

বিস্তারিত পড়ুন... তবুও কি তুমি যাবে?
Posted in কবিতা

এখন আমার কোন প্রিয় ফুল নেই

মাইনুর নাহার “একটা সাদা ফুল, পাহাড়ে হারিয়ে এসেছি। এখনতো তার নামটাই মানে আছে শুধু। নিকষকালো অন্ধকার রাতেও কী ভীষণ অভিমানে তীব্র ঘ্রাণ ছড়িয়ে সে জানান দিতো তার উপস্থিতিটুকু। কখনও ঘোরলাগা অন্ধকারে তুমি জাগতিক সব রঙ মুছে দিয়ে যদি সজাগ দৃষ্টিতে তাকাতে পারো আঁধারের তীব্রতা ভেঙেচুরে দিয়ে, হয়তোবা দেখা পাবে তার;…

বিস্তারিত পড়ুন... এখন আমার কোন প্রিয় ফুল নেই
Posted in Uncategorized

চোরাবালি সময়

মাইনুর নাহার “সময়ের কোন চোরাবালিতে আটকে গেছে জীবনের সব কোলাহল? নরোম সুখের পরশ- লাল, নীলরঙ মাধুকরি সুখ অধরে তুলে নিয়ে কোন আকাশের অচিন তারায় পরিণত হওয়া আমাকে তুমি পরম প্রতারণায় বিসর্জন দিতে চাও আজ? কে আজ প্রতিচ্ছবি হয়ে আছে কার আরশিতে; চোরাবালি রাখে না কি সময়-হিসাব? সময়ই বয়ে চলে- সময়ের…

বিস্তারিত পড়ুন... চোরাবালি সময়