Posted in Uncategorized

কবিতাঃ অগত্যা নির্বাসন ২

তুমি আসো, তুমি যাও, হেঁটে হেঁটে কথা কও- ক্যানভাসে রঙ দাও, পদরেখা মনে এঁকে, হিয়া কাঁদে, বলি তাও, অভিমান চুপ রও হৃদাকাশে যারে চাও, সেই নারী নাহি ডাকে। ছেঁড়া তুলি, সবগুলি, সাদা রঙ কালো হয় অসহায় বুলবুলি, পরাজিত আঁকিয়ে- তুমি কড়ি, তুমি কলি, তবু ফুল আলো নয় যাতনায় ব্যাথ্যাঝুলি, ঠোঁট…

বিস্তারিত পড়ুন... কবিতাঃ অগত্যা নির্বাসন ২
Posted in Uncategorized

কবিতাঃ অগত্যা নির্বাসন

কথা নাই, কথা নাই, কথাগুলো উড়বে ঠোটে নাই, নীড়ে নাই, শ্রাবণেতে ঝড়বে। প্রেম কই, ফ্রেম কই, ছবিগুলো ভাসছে কথাগুলো ফ্রেমে ভরে প্রেম শুধু হাসছে। অন্দরে বন্দরে মিছিমিছি খোঁজাখুঁজি প্রেমিকের কপটতা শশী বলে সোজাসুজি। কথা নাচে, প্রেম বাঁচে, ক্ষণিকের জন্য ভণিতার কথা শেষে প্রেম হয় হয় বন্য। আঁখি নায়, মন যায়,…

বিস্তারিত পড়ুন... কবিতাঃ অগত্যা নির্বাসন
Posted in Uncategorized

প্রজেক্টঃ নতুন জামা সফল। নতুন জামা পড়ে ঈদ করবে দুই শতাধিক পথশিশু। (একটি জীবন্ত গল্প)

পৃথিবীতে যুদ্ধ শেষ, বন্ধ সৈনিকের রক্ত ঢালাঃ ভেবেছ তোমার জয়, তোমার প্রাপ্য এ জয়মালা; জানো না এখানে যুদ্ধ- শুরু দিনবদলের পালা।। সুকান্ত ভট্টাচার্য

বিস্তারিত পড়ুন... প্রজেক্টঃ নতুন জামা সফল। নতুন জামা পড়ে ঈদ করবে দুই শতাধিক পথশিশু। (একটি জীবন্ত গল্প)
Posted in ব্লগ

নেশা

নেশা করতে গিয়েছিলাম সেদিন বেগুনি মশালে চড়ে, শনি গ্রহের লাল আলো ছিল শরাবের পাত্রে কপালের স্থির টিপটির মত একখন্ড বরফ খুজেছিলাম সূর্যটাকে খানিক পরেও ডুবতে বলেছিলাম, শোনে নি। মন্দ হয় নি অবশ্য শর্ত ছাড়াই চাঁদ এসে গেল প্রক্সি দিতে তুমি তো জানোই আমি গাছ বুনতে পারি! হেয়ালির বাকল দিয়ে ঢাকা…

বিস্তারিত পড়ুন... নেশা
Posted in ব্লগ

আমরা এমন নির্মম নাটক দেখতে চাইনা। প্লিজ আমাদের রেহাই দিন।

প্রথম দৃশ্যঃ (ফাটল দেখা যাওয়ার পর) সৎ ইঞ্জিনিয়ারঃ বিল্ডিং ব্যাপক রিস্কি হয়ে আছে রানা ভাই। কন্টিনিউ করলে ঝামেলা হয়ে যেতে পারে। মালিকঃ তাইলে আমি কি কাজ না করাইয়া লোকসানে পড়মু নাকি!হুদাই বিল্ডিং ভাঙ্গমু? কত্ত লোকসান জানে্ন?? মগের মুল্লুক নাকি? সৎ ইঞ্জিনিয়ারঃ বিল্ডিং ধ্বসে পড়লে কিন্তু আপনারও রক্ষা নাই, আমারও নাই।…

বিস্তারিত পড়ুন... আমরা এমন নির্মম নাটক দেখতে চাইনা। প্লিজ আমাদের রেহাই দিন।
Posted in কবিতা

কষ্ট!

বালিকার কষ্টগুলো কখনও মুখে বলেনি আমাকে গভীর রাতে আমার ঘরে এসে যখন গল্প করতে চাইত, কষ্টগুলো তখনই বোধহয় খুব ছটফট করাত বালিকাকে। ঈদের জামাটিতে নিজের মত করে ফুল আকত যখন, মাঝে মাঝে চায়ে চিনি না দিয়েই যখন খেত আবার বাড়ির কোণের ঝলমলে বেলী ফুলের গাছটির দিকে যখন শূণ্য চোখে তাকাতো,…

বিস্তারিত পড়ুন... কষ্ট!