Posted in Uncategorized

তোমার জন্য কবিতা’

প্রিয়তমা, আজ রাতে, তোমার জন্য কবিতা লিখবো বলে বসেছি। তোমার জন্য টেবিলের উপর রেখে দিয়েছি র্যাপিং পেপারে মোড়ানো ভালোবাসা। ভালোবাসার বিদগ্ধ তৃষ্ণা কতকাল আমায় কুঁড়ে কুঁড়ে খেয়েছে, ভ্রান্তির ছলনাময়ী হাসি দেখে কতদিন প্রেমমাখা বেদনায় লুটোপুটি খেয়েছি। ভালোবাসার বিতৃষ্ণা মাখা কন্ঠে আমি ভালোবাসা নিয়ে ঢুকে পড়েছি তোমার দেরাজ ভেঙে। আজ রাতে,…

বিস্তারিত পড়ুন... তোমার জন্য কবিতা’
Posted in Uncategorized

ভালোবাসা এবং মহাকর্ষ ( স্থান-কাল বক্রতার মায়া)

ভালোবাসা জিনিসটা অনেকটা মহাকর্ষের মত। মহাকর্ষ যেমন গ্রহ-নক্ষত্র সহ সকল বস্তুর মধ্যেই বজায় থাকে। তেমনি ভালোবাসাও মানবসম্প্রদায় এমনকি প্রাণীকুলেরর মধ্যেও বজায় থাকে। মহাকর্ষ মুলত স্থান-কাল বক্রতার ফল। যার স্থান-কাল বক্রতা যত বেশি, তার মহাকর্ষ বলও তত বেশি। অর্থাৎ অন্য সকল বস্তু স্থান-কাল বক্রতার উপর নির্ভর করেই ঐ বস্তুটির উপর আকর্ষণ…

বিস্তারিত পড়ুন... ভালোবাসা এবং মহাকর্ষ ( স্থান-কাল বক্রতার মায়া)
Posted in Uncategorized

প্রতি রবিবারের গল্প

যার চুলের বেনীতে পায়ের নুপূরে নখের প্রতিটি আচড়ে কাব্য লুকিয়ে রয়েছে; যার প্রতিটি কথায় রয়েছে ফুল অধিক শুভ্রতা, রয়েছে মিস্টতা; রয়েছে ধৃষ্টতা। যার জন্য এখনও প্রতিটি বিকেলে বেলকণিতে আলো ঝলসায়, ফুলের টবে পানি পড়ে, ফুল হাসে। যার জন্য আজো রক্তারক্তি হয়, আনন্দের জোয়ার ভাসে। যার একটুকরো হাসির জন্য বোবা মুখেও…

বিস্তারিত পড়ুন... প্রতি রবিবারের গল্প
Posted in Uncategorized

শহর – নগর

হে শ্বাশত নগরী আমি তোমােক চিনি, আমি দু’চারটা বাদামের খোসা আর ওই নাকবোচা ছেলেটাকে চিনি, ব্যাথার দাঁড়গোঁড়ায় পৌঁছানো বিকৃত মানবতাকে চিনি। আমি লাল টেপে মোড়া কৌটা হাতে তিনচারটা টোকাইকে দেখেছি। কে দিল তাকে? কে বাঁচালো তাকে? কে ওই বাদামবেচা ছেলেটার হাতে হাতঘড়ি পড়লো?? কে ওই রক্তবেচা লোকগুলোকে বিজয়মালা পড়ালো? কে…

বিস্তারিত পড়ুন... শহর – নগর
Posted in Uncategorized

আমাদের শহর

দ্যাখো আমাদের শহরে উঁচু উঁচু পাহাড়, দ্যাখো আমাদের শহরে আজ চাঁদের সমাহার, দ্যাখো, আমাদের শহরে উঠেছে জ্যোৎস্না গিলে খাওয়া রোদ, আলো ঝিকিমিকি প্রশস্ত ফুটপাত, আর বেনামি কিছু হাসি।

বিস্তারিত পড়ুন... আমাদের শহর