মৃত্যু অতঃপর বিজয়

বিস্তর মরু,ধু ধু প্রান্তর;
অবলা হৃদয়,
স্থির চোখ।
মন্থর গতি,
ভারসাম্যহীন পথ চলা।
শত হোঁচটের পরও পুনরায় পথ চলা।

উত্তাপ চলার পথ,
ফোস্কাপড়া পদতল;
যন্ত্রনাহীন এক বিষম অনুভূতি।
বৈরী উষ্ম হাওয়া,জ্বালাময়ী নিশ্বাস।



বিস্তর মরু,ধু ধু প্রান্তর;
অবলা হৃদয়,
স্থির চোখ।
মন্থর গতি,
ভারসাম্যহীন পথ চলা।
শত হোঁচটের পরও পুনরায় পথ চলা।

উত্তাপ চলার পথ,
ফোস্কাপড়া পদতল;
যন্ত্রনাহীন এক বিষম অনুভূতি।
বৈরী উষ্ম হাওয়া,জ্বালাময়ী নিশ্বাস।

এ যেন কারুকার্যময় সুনিপুন অত্যাচার ।
যা শিল্পের পর্যায়ের অধিভুক্ত।
নিরাশার চারদেয়ালে বন্দি বেদুঈনের মৃত্যুক্ষণ সন্নিকটে।
পিপাসার্ত এ পথিকের চোখে তবুও ক্ষুদ্র এক বিন্দু আশার আলো অপেক্ষমান।

শুস্ক ঠোঁটকে আরেকবার জিহব্বা দিয়ে চেটে নুনতা করার ব্যার্থ চেষ্ঠা।
রহস্যময়ী এ বলয়ের ভেতর তবুও খঞ্জর গাঁথা প্রাণ পা তুলে সম্মুখে অগ্রসরের চেষ্টায়। নিয়তির এ হঠকারি নিয়মের কাছে আজ আবদ্ধ বেদুঈন।

অবশেষে…..

পড়ে থাকে পানির বোতল,
অসাড় এক মানব শরীর,
একটুকরো স্বপ্ন,
একটি প্রিয় মুখ।

তবে এটা যে মরন নয়,
একটি নতুন জয়ের সূচনা মাত্র।
একটি নুতন পথচলার শুরু,
যে পথ লক্ষ্য খুলির আর অস্থির সমন্বয়ের গঠিত,
হাজার বছরের লালিত স্বপ্ন দেখে সফলতার মুখ।

চেয়ে দেখ ঐপারে,
বিজয়ী বেদুঈন আজ হাসছে,
হাসছে অট্টহাসির সূরে,
বিজয়ীর নিশান আজ তার দু আঙ্গুলে,
দেখ চেয়ে!

এটিই বুঝি সত্যিকার বিজয়!

৬ thoughts on “মৃত্যু অতঃপর বিজয়

  1. ভাই কবিতা লিখি নাই ত!
    কিছু

    ভাই কবিতা লিখি নাই ত!
    কিছু দিন ধইরা কথাগুলো মাথায় প্যাঁচ খাইতেছিলো।তাই হুদাই পোস্ট কইরা দিলাম।খুব বেশি ভুল করছি?

    1. না ভাই, বেশি ভুল করেন নাই। তয়
      না ভাই, বেশি ভুল করেন নাই। তয় যা লিখছেন সেটা কবিতা হিসাবে মানায়। যেটা কিছু না, সেটাই কবিতা।

  2. হইতে পারে।জং ধরা মস্তিষ্কের
    হইতে পারে।জং ধরা মস্তিষ্কের নাট বল্টু সব ঢিলা হয়া গেছে ত!কোনডা কী কিছুই মাথায় খেলে।আপ্নেরা আছেন ত!চিন্তা নাই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *