সময়ের দাবি । পাপের শাস্তি পাপিকেই পেতে দিন

ধর্ষনের পরে একটা মেয়ে মানষিক ভাবে ভেঙে পড়ে তার উপরে পীড়া সৃষ্টি হয় ধর্ষিতার ঠিকানা দিয়া পত্রিকায় খবর ছাপন । কিম্বা পড়ার লোকেদের কানাকানিতে সে মেয়ে মানসিক ভাবে আরো বিপর্যস্ত হয়ে পরেন । সমাজ তাকে ধর্ষিতা হিসাবে চেনে । সে সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পরে । ধর্ষিতা নয়,
ধর্ষকের ছবি সহ
নাম,
ঠিকানা পরিচয়
বিস্তারিত
প্রকাশ করা হোক
সব পত্রিকা
এবং টেলিভিশন
চ্যানেল গুলোতে।
সমাজ তাদের
ধর্ষক রুপে চিনুক…
তারা মানুষ না,
তারা ধর্ষক !!
আসুন আমরা জোর দাবি তুলি । পাপির শাস্তি পাপিকেই পেতে দেই । তাতে যদি এই মেয়েটার দুঃখ কিছুটা কমে ।

৭ thoughts on “সময়ের দাবি । পাপের শাস্তি পাপিকেই পেতে দিন

  1. এ ব্যপারটা যখনি ভাবি তখনি
    এ ব্যপারটা যখনি ভাবি তখনি নিজেকে অতি ছোট মনে হয় । লজ্জায়, ঘেন্নায় নিজ গা থেকে গন্ধ পাই । আর ব্যপারটা ঘাটতেও বেশি ভালো লাগেনা । তাই অতি ছোট করে লিখেছি, বড় করে লিখবার ধর্য্য ছিল না । আর আমার বক্তব্য সুস্পষ্ট…

    1. হুম… স্পষ্ট এবং অনেক পুরনো
      হুম… স্পষ্ট এবং অনেক পুরনো অথচ অপ্রকাশিত এবং অবহেলিত একটা দাবী!

      আপনি ধর্ষনের খবরগুলো কোথায় পড়েন?
      – মিডিয়াতে।
      মিডিয়া কী?
      – একটা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান।
      সুতরাং তারা ব্যবসার স্বার্থে যেভাবে সংবাদ প্রেজেন্টেশন করা উচিৎ সেভাবেই করবে। এখন কথা হলো- মানুষ ধর্ষনের খবরগুলো আগ্রহ করে কেন পড়ে?
      – রসালো বর্ণনা থাকে তাই!
      রসালো বর্ণনা কাকে নিয়ে?
      – নিশ্চয়ই ধর্ষিতাকে নিয়ে! ধর্ষকের আর রস কী? তার যা রস তা তো ঢেলে দিয়েই গেছে!
      সুতরাং কার বর্ণনা-নাম-ঠিকানা বললে পাঠক বেশি আকৃষ্ঠ হবে?
      – হে হে হে…

      বুঝতেই পারছেন ব্যাপারটা! আমরা সব চেতনা ব্যবসায়ী। ধর্ষকের নাম ঠিকানা জেনে কোন ফায়দা নেই। আপনি আমি কেউই যাব না ধর্ষকের অন্ডকোষ চেপে ধরতে! কিন্তু ধর্ষিতার নামটা জানলে অন্তত একটা জ্বালাময়ী স্ট্যাটাস দিতে পারবো- “ধর্ষিতা ইয়াসমিন আমার বোন! আমার বোন আজ ধর্ষিত… জাগো গো ভগিনী!!!”
      :কেউরেকইসনা: :আমারকুনোদোষনাই:

  2. আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ সফিক
    আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ সফিক ভাই । শুনতে খারাপ হলেও আপনার কথাই সত্য । তবে দুঃখটা হল ইন্ডিয়ান স্টাররা বাথরুমে গেলেও আমাদের মিডিয়া তা ঘটা করে দেখায় বা হেড লাইনে থাকে । আর ধর্ষনের খবর থাকে ভিতরের সাদাকালো পাতার কোন এক বিঙ্গাপনের পাশে অতি ছোট করে । বেশিরভাগ ধর্ষনের পর যা হয় তাহলো ধর্ষকের কিছুই হয় না, থানাতে কেস পর্যন্ত হয়না । তারচেয়েও বড় কথা যখন ঐ ধর্ষক ঐ ধর্ষিতার সামনে দিয়া মাথা উচু করে ঘুরে বেরায় তখন ঐ অভাগির মনের অবস্থা কি হয় । অভাগা দেশ, অভাগা মানুষ । সবচেয়ে আশ্চার্য ব্যপার সবাই এই ব্যপারটাকে এরিয়ে চলেগেছে । তবে যত যাই হোক আমার এই দাবি বন্ধ বা দূর্বল হবে না । আমি চেষ্টা চালাবোই । সারা তো পাবোই, আজ না হয় কাল…

  3. দোষ তো আমাদেরই। যে কোন অনলাইন
    দোষ তো আমাদেরই। যে কোন অনলাইন নিউজ সাইটে ঢু মারলেই দেখবেন সবচেয়ে বেশী পঠিত নিউজগুলা হচ্ছে ধর্ষণের বা যৌন সুড়সুড়ি মার্কা নিউজ। পাঠকের রুচি অনুযায়ীই তারা নিউজ করে। আগে আমাদের নিজেদের ঠিক হওয়া দরকার।

  4. আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ আতিক
    আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ আতিক ভাই । সেটাই তো সমস্যা রে ভাই । আমরা পড়ি তাই মিডিয়াগুলো রসিয়ে রসিয়ে ব্যক্ষা করে । যথেষ্ট শিক্ষা আর সচেতনতাই পাড়ে এটা বন্ধ করতে । আমারা যারা দু একজন সচেতন আছি তারা যদি এই কাজটা করতে পাড়ি, যদি ইন্ডায়ার মত বিচারের দাবিতে রাজপথে নামতে পাড়ি । তবেই ব্যপারটাতে সরকারের নজরে আসবে আর দু একজন সঠিক শাস্তি পেলেই বাকিগুল ঠিক সোজা হয়ে যাবে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *