বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট হ্যার্কাস ও তাদের প্রজেক্ট সমূহ

আপনারা হয়ত সবাই হ্যাকিং শব্দটার সাথে পরিচিত ।হ্যাকিং শব্দটা আপনাদের কাছে নেতিবাচক অর্থ বহন করলেও বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট হ্যার্কাস সময় দেশের জন্য ইতিবাচক কাজ করছে এবং কাজ করে যাবে ।বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট হ্যার্কাস বাংলাদেশের সাইবার স্পেসের খুবই পরিচিত একটি নাম। নামে ব্ল্যাক হ্যাট হলেও এই গ্রুপটির জম্মই হয়েছিল দেশের সাইবার স্পেসকে রক্ষা করার তাগিদ এবং বিদেশী হ্যাকার দের আক্রমনের জবাব দেওয়ার প্রত্যয়ে! আপনারা অনেকেই হউত লক্ষ্য করেছেন যে বিদেশি কোনও দেশ বাংলাদেশের সাথে অন্যায় করলে বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট হ্যার্কাস তার প্রতিবাদ জানানোতে দেরি করে না । বাংলাদেশের কিছু মেধাবি ও দেশপ্রেমিক গড়ে তুলে এই বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট হ্যার্কাস । সীমান্তে বিএসএফ একের পর এক বাংলাদেশী হত্যা করছে। তখন সরকার নিশ্চুপ ছিল তখনি বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট হ্যার্কাস ভারতের বিপক্ষে ঘোষণা করে সাইবার যুদ্ধ ।উদ্দেশ্য ছিল নিরীহ বাঙ্গালী হত্যার এই বিষয়টিকে সারা বিশ্বকে জানিয়ে দেওয়া। এছাড়া ভারত সরকারকে সীমান্তে হত্যা বন্ধের মেসেজ দিতে। কিন্তু ইন্ডিয়ান হ্যাকাররা শুরু করে বাড়াবাড়ি।তারা হুমকী দিয়ে বলেছিল তারা বাংলাদেশী সাইবার স্পেস গুড়িয়ে দেবে, বাংলাদেশীরা নাকি কম্পিউটারে মাউস আর কী বোর্ড ধরতে জানে না !!! এরকম রসিকতাও তারা করছিল। তারা ভেবেছিল বাংলাদেশে কোনও মেধাবি হ্যাকার নাই । তার হয়তও ভুলে গিয়েছিল এই বাংলাদেশিরা হার মানে না। তারা হয়ত জানত না এই বাংলাদেশি হ্যাকাররা বুকে ধারন করে ৭১ এর চেতনা ।ক হ্যাট সহ দেশের অপর দুইটি হ্যাকিং টীম যুদ্ধে নামার ২ দিনের মাথায় ভারতীয় সকল হ্যাকার গোষ্টি সব লেজ গুটিয়ে পালায়, এর পর তাদের আর সাইবার স্পেসে দেখা যায়নি।আমাদের তরুণরা তাদের সক্ষমতা দেখিয়ে দিয়েছিল, কারা কম্পিউটারের মাউস আর কী বোর্ড ধরতে জানে না। এই বাংলাদেশি তরুণরা পুরা বিশ্বকে দেখিয়ে দিল তাদের মেধা এবং দেশপ্রেম। এই হ্যাকিং এর কারনে এই তরুণদের জেলে যাওয়ার একটা ঝুঁকি ছিল । কিন্তু তারা স্বদেশী ভাইবোনদের সীমান্তে মরতে দেখা সহ্য হয়নি ।তাই এত ঝুঁকি নিয়েও তারা প্রতিবাদ জানায় । এই প্রতিবাদ মনে করিয়ে দেয় ৭১ এর কথা । নামে ব্ল্যাক হ্যাট হলেও মুলত বাংলাদশের সাইবার স্পেসের জন্য হোয়াইট হ্যাট হিসেবে কাজ করছে বিডি ব্ল্যাক হ্যাট হ্যার্কাস। আর অন্য দেশের ক্ষেত্রে ব্ল্যাক হ্যাট। প্রতি নিয়ত দেশের দুর্বল সাইট গুলোর সিকিউরিটি বাড়াতে সাইট এডমিনদের মেইল করা হচ্ছে। যদিও দুঃখ জনক হলেও সত্য বাংলাদেশের সাইট এডমিনদের এটা নিয়ে কোন মাথা ব্যাথা নেই। বিদেশী হ্যাকাররা হ্যাক করলেই তাদের হুশ হয়। বার বার সিকিউরিটি রিপোর্ট পাঠিয়েও তাদের কোন সাড়া শব্দ পাওয়া যায়না। তার পরেও নিরলসভাবে ব্ল্যাক হ্যাট হ্যার্কাস তাদের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।
র পর আরো কিছু সাইবার যুদ্ধে জয় লাভ করে বিডি ব্ল্যাক হ্যাটসরা। কিন্তু শুধু মাত্র হ্যাকিং এর মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকতে চায়নি বিডি ব্ল্যাক হ্যাটরা। তাই তারা শুরু করে জনসচেতনতা মূলক কর্মকান্ড। আজ আমরা দেখব বিডি ব্ল্যাক হ্যাটের বিভিন্ন প্রজেক্ট এবং ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা। উল্লেখ্য বিডি ব্ল্যাক হ্যাট হ্যাকার্সের সকল কার্যক্রম বা যে কোন প্রজেক্ট সম্পুর্ন বিনামুল্যে করানো হয়। কোন ধরণের আর্থিক লেন দেনের সাথে বিডি ব্ল্যাক হ্যাটের কোন সম্পর্ক নেই। ব্ল্যাক হ্যাট সব সময় এসবের উর্ধে থেকে কাজ করে।

১। অপারেশন পাসওয়ার্ডঃ বাংলাদেশের টিভি চ্যানেলে ইতিহাসে প্রথমবারের মতো হ্যাকারদের নিয়ে একটি পরিপুর্ন প্রোগ্রাম অপারেশন পাসওয়ার্ড। বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট হ্যার্কাসের সহযোগীতায় যমুনা টিভিতে এই প্রোগ্রামটি সম্প্রচার করা হয়। এর মাধ্যমে হ্যাকিং নিয়ে মানুষের অনেক অজানা বিষয় সবার সামনে উঠে আসে। বিশেষত যারা এত দিন হ্যাকিং বলতে শুধুমাত্র ফেসবুক হ্যাকিং কে বুঝতেন। তাদের সবার চিন্তা চেতনায় পরিবর্তন এসেছে এই প্রোগ্রামের মাধ্যমে।
২। দ্যা ব্ল্যাক হ্যাট ম্যাগাজিনঃ বাংলাদেশের প্রথম এবং একমাত্র সিকিউরিটি – তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক মাসিক ম্যাগাজিন। আইটি বিমুখদের আইটি মুখি করে তোলা, উৎসাহ দেওয়া, এই সেক্টরের বিশাল সুযোগের কথা জানানো, আউটসোর্সিং এর দিক-নির্দেশনা দেওয়া, বিভিন্ন সিকিউরিটি টিপস দেওয়া সহ আরো অনেক অনেক সপ্ন নিয়ে এই ম্যাগাজিনের পদচারনা শুরু হয়েছে। এখানে বিভিন্ন সিকিউরিটি বিষক টিউটোরিয়াল দেওয়া হয় যার মাধ্যমে একজন সাইট এডমিন বা সাধারণ ব্যাবহার কারীরা উপকৃত হবে। ইতি মধ্যেই এর দুটি সংখ্যা প্রকাশিত হয়েছে। খুব তাড়াতাড়ি প্রকাশিত হতে যাচ্ছে তৃতীয় সংখ্যাটি।এছাড়া নিয়মিত থাকছে প্রোগ্রামিং টিউটোরিয়াল, আউটসোর্সিং, ওয়ার্ডপ্রেস সিকিউরিটি, গুগলের ব্যাবহার নিয়ে ধারাবাহিক, সায়েন্স ফিকশন, নেটওয়ার্কিং, হোস্টিং টিউটোরিয়াল সহ আরো অনেক নিয়মিত বিভাগ। ম্যাগাজিন সম্পর্কিত সকল আপডেট পাবেন আমাদের অফিশিয়াল ফ্যান পেজ গুলোতে।
মেইন ফ্যান পেজঃ http://www.facebook.com/bd.black.hat.hackers
ম্যাগাজিন ফ্যান পেজঃ http://www.facebook.com/theblackhatmagazine
এখন থেকে খুব সহজেই ম্যাগাজিনের কপি পেতে পারেন আমাদের BBHH Apps থেকে।

BBHH এন্ড্রয়েড অ্যাপসঃ সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট হ্যার্কাস বের করেছে তাদের নিজস্ব এন্ড্রয়েড অ্যাপস! মাত্র ৩ এমবি সাইজের এই অ্যাপসের মাধ্যমে এখন থেকে খুব সহজেই জানা যাবে এই হ্যাকিং টীমটির সকল আপডেট। ব্ল্যাক হ্যাটকে আরো সবার কাছে নিয়ে যাবে এই অ্যাপসটি খুব সহজেই। অ্যাপসে রয়েছে বিডি ব্ল্যাক হ্যাট হ্যার্কাসের ইতিহাস, অফিশিয়াল মেম্বারদের নাম, প্রজেক্ট সমূহ সহ সকল আপডেট।

সব চেয়ে বড় বেনিফিট হলো আপনারা সবাই এখন থেকে এই অ্যাপস থেকেই বিডি ব্ল্যাক হ্যাটে সিকিউরিটি বিষয়ক মাসিক ম্যাগাজিন দ্যা ব্ল্যাক হ্যাট এর পুর্বের সংখ্যা সহ নতুন সংখ্যা গুলো খুব সহজেই ডাওনলোড করতে পারবেন। অ্যাপসটি বর্তমানে বেটা ভার্সনে বের করা হয়েছে। সবার মতামত সাপেক্ষে অ্যাপসটিকে কিছু দিনের মধ্যেই আরো আপগ্রেড করা হবে। এজন্য সবাই অ্যাপসের ফীড ব্যাকে গিয়ে আপনাদের মতামত জানিয়ে আসতে পারেন।
Apps টি ডাওনলোড করুন এই লিঙ্ক থেকেঃ – http://goo.gl/CzZajQ গুগলে প্লে স্টোর। বা আপনারা চাইলে গুগল প্লে স্টোরে গিয়ে BBHH দিয়ে সার্চ করলেও পেয়ে যাবেন বিবিএইচএইচের এই অ্যাপসটি।

BBHH প্রোগ্রামিং ক্যাম্পঃ সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট হ্যাকার্স চালু করেছে বিবিএইচএইচ প্রোগ্রামিং ক্যাম্প যেখানে জন সাধারণকে বিভিন্ন প্রোগ্রামিং জ্ঞানে সমৃদ্ধ করা হবে, শিখানো হবে বিভিন্ন প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গয়েজ। এখানে রয়েছে বিভিন্ন ক্যাটাগরী। কিছু দিন আগে BBHH এর অফিশিয়াল ফ্যান পেজ, গ্রুপে এই ব্যাপারে পোস্ট দেওয়া হয়। অংশগ্রহনকারী বেশি হওয়ায় একটি পরীক্ষাও নেওয়া হয়। পরীক্ষার উপড় মেম্বার নিবার্চন করা হবে । কিছুদিনের মধ্যেই BBHH তার নিজস্ব প্রোগ্রামিং গ্রুপে প্রোগ্রামিং এর এই ক্যাম্প শুরু হবে। এখানে রয়েছে বিভিন্ন ক্যাটাগরি। যা যা শিখানো হবেঃ
1.C extends C++ with OpenGL
2.Java extends Android & web App Development
3.Problem Solving & Different Algorithms
4 PHP with HTML
5.Cross Plat formGame Development

অনলাইন সেলফ সিকিউরিটি শর্ট কোর্সঃ আপনি কি অনলাইনে নিরাপদ আছেন? আপনার পিসি, ব্যক্তিগত তথ্য নিরাপদ আছে? এই স্লোগানে সম্পুর্ন বিনামুল্যে অনলাইনে পার্সোনাল সিকিউরিটি যেমন ফেসবুক, পিসি হ্যাকিং, কম্পিউটার ভাইরাস এসব থেকে কিভাবে রক্ষা পাওয়া যাবে তার উপড় তিন দিনের একটি কোর্স করানো হয় ব্ল্যাক হ্যাটের অফিশিয়াল মিডিয়া গ্রুপে গত ২১,২২ এবং ২৩ মে ২০১৪ তারিখে। যেখানে ফেসবুক হ্যাকিং থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য কি কি সিকিউরিটি দিতে হবে, পিসি হ্যাকিং থেকে বাঁচার উপায়, স্পাইওয়ার, কী লগার, ট্রোজান হর্স সহ আরো অনেক বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়। আপনারা চাইলে আমাদের এই গ্রুপে জয়েন করতে পারেন।

জয়েন করুনঃ https://www.facebook.com/groups/BdBlackhatsMedia
BBHH Font: মুলত ম্যাগাজিন বের করতে গিয়ে ফন্ট সংক্রান্ত নানা জটিলতা থেকেই এই ফন্টের চিন্তা মাথায় আসে। তাই বিডি ব্ল্যাক হ্যাট হ্যাকার্স হাতের লেখা সদৃশ্য তাদের নিজস্ব ফন্ট বের করছে! কিছুদিনের মধ্যেই ফন্টটি সবার জন্য উম্মুক্ত করে দেওয়া হবে।

BBHH Tools: এবার দেখা যাক আমাদের আন্ডার-কন্সট্রাকশন টুলস গুলো সম্পর্কে। বর্তমানে আমাদের অনেক প্রজেক্টের কাজ চলছে। যদিও টুলস গুলো আমরা শুধুমাত্র নিজেদের জন্যই ব্যবহার করতাম, এখন থেকে আমাদের টুলসগুলো উম্মুক্ত করে দেওয়া হবে।
BBHH Operating System: বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট হ্যার্কাস তৈরি করছে তাদের নিজস্ব অপারেটিং সিস্টেম BTS Linux. যে খানে অনেক গুরুত্বপুর্ন টুলস এড করা হয়েছে। এই অপারেটিং সিস্টেমের কাজ আন্ডার কন্সট্রাকশনে আছে। সময় হলেই তা সবার জন্য উম্মুক্ত করে দেওয়া হবে।

BBHH Sqli Bullet: এটি বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট হ্যার্কাসের আরেকটি টুলস। যার কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। এর ফিচার সমূহ প্রকাশের সময় জানানো হবে। থাকুক না একটু গোপন .

BBHH Shell: এর কাজ এখন আন্ডার কন্সট্রাকশনে আছে। সব কিছু পরীক্ষা নিরাক্ষার পর শেলটি সবার জন্য উমুক্ত করে দেওয়া হবে।

BBHH Hash Zone: এর মাধ্যমে হ্যাশ ক্রাক করা যাবে। খুব শিঘ্রই এটি উমুক্ত করে দেওয়া হবে। বর্তমানে এটি আন্ডার কন্সট্রাকশনে আছে।

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনাঃ
বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট হ্যার্কাসের রয়েছে কিছু সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনাঃ
১। বাংলাদেশের মানুষকে আইটি শিক্ষায় দক্ষ করে তোলা।

২।অনলাইন এ আইটি এবং সাইট সিকিরিটি এর উপর বিভিন্ন সেমিনার করা । এছাড়া ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষার জন্য বিভিন্ন টিপস শেয়ার করা।

৩। দরিদ্র ও ছিন্নমুল মানুষদের যথাযথ শিক্ষা দিয়ে তার মাধ্যমে আত্ন কর্মসংস্ঠানের জন্য যোগ্য করে তোলা।

৪। ওয়েব ডিজাইন এবং ওয়েব ডেভেলপ এ অন লাইন ওয়েভিনার এর মাধ্যমে শিখানো এবং আউট সোর্সিং এ উৎসাহিত করা।

৫। সাইট এডমিন দের অন লাইন ওয়েভিনার এর মাধ্যমে সাইটের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশিক্ষন ।

আশা করছি আপনারা আমাদের কার্যক্রম সম্পর্কে একটু হলেও ধারনা পেয়েছেন। আমাদের আরো অনেক জন কল্যান মূলক প্ল্যান/ প্রজেক্ট আছে, যা এখনই প্রকাশ করছি না। আমরা ধীরে ধীরে বাস্তবায়ন করব। সব সময় আমাদের সাথেই থাকুন, আমাদের উৎসাহিত করুন। কোন ভুল থাকলে তা ধরিয়ে দিয়ে সহায়তা করুন। আপনার মতামত দিন। মনে রাখবেন বিডি ব্ল্যাক হ্যাট শুধুই একটি হ্যাকিং গ্রুপ না। BBHH হ্যাকিং গ্রুপ হলেও তা শুধু মাত্র হ্যাকিং এর মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। সাধ্য মত ছড়িয়ে দিচ্ছে প্রযুক্তির জ্ঞান সবার মাঝে। তাই তো একটি হ্যাকিং গ্রুপ হয়েও আজ আমরা লক্ষ লক্ষ মানুষের ভালবাসায় সিক্ত!!! আমাদের সব কাজ দেশের জন্য, দেশের মানুষের জন্য উৎসর্গকৃত। আমরা কিছু তরুন এক হয়ে কাজ করে যাচ্ছি আমাদের সপ্নের আরো কাছাকাছি যেতে। আমরা সপ্ন দেখি একদিন আমরা তথ্য-প্রযুক্তিতে সারা বিশ্বের রোল মডেল হবো। এ দেশেই গড়ে উঠবে মাইক্রোসফট, অ্যাপল, এর মত কোম্পানী। সপ্নের এই পথ চলা হয়ত কোন একদিন ঠিকই ধরা দেবে।
সে প্রত্যাশায় থাকলাম …….

“Power That Can’t Be Imagined,
Strength That Can’t Be Compared,
On The Way Of Justice,
With The Path Of Honesty,
We Are BD Black Hats.”

special thanks to Black Explorer,Tanvirul Islam Dipto,Shahzada Al Shahriar

৮ thoughts on “বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট হ্যার্কাস ও তাদের প্রজেক্ট সমূহ

  1. হ্যাকিং জগৎ নিয়ে আমার বেশ
    হ্যাকিং জগৎ নিয়ে আমার বেশ কৌতুহল ছিল! অনেক কিছু জানতে পারলাম সাথে বিরুপ চিন্তা ও দুর হল! এগিয়ে যান, প্রতিটি অন্যায়ের প্রতিবাদ করুন আমরা আছি থাকব ইন্শা আল্লা

    1. অনেক অনেক ধন্যবাদ । মনে
      অনেক অনেক ধন্যবাদ । মনে রাখবেন বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট হ্যার্কাস প্রতিটি অন্যায়ের প্রতিবাদ জানাবে

  2. আপনারাই হ্যাকিং করেন, আবার
    আপনারাই হ্যাকিং করেন, আবার আপনারাই সিউকিরিটি শেখান, মজার তো। অনেকটা এন্টিভাইরাস কোম্পানির মত ব্যাপার স্যাপার। হা হা হা…

      1. বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট
        বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট হ্যার্কাস বাংলাদেশের কার কোনও ক্ষতি কিরছে ? বলতে পারবেন ?

    1. ভাইয়া বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট
      ভাইয়া বাংলাদেশ ব্ল্যাক হ্যাট হ্যার্কাস কখনও বাংলাদেশের ক্ষতি করে নাই এবং করবেও না । সীমান্তে যখন বাংলাদেশি মারছিল তখন আপনারা তো কোনও প্রতিবাদ করেন নাই । করলেও তার কোনও প্রভাব ছিল না । ভাইয়া দয়া করে না জেনে শুনে কথা বলবেন না

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *