মধ্যদুপুর

মধ্যদুপুর ।
রেললাইনের উপর হাঁটছি…
উদ্দেশ্যহীন হাঁটা ।
একা না, সাথে একটা কুকুরও আছে । তখন থেকে আমার আশেপাশেই ঘুরঘুর করছে , মাঝে মাঝে পায়ের কাছে এসে আহ্লাদী হয়ে ঘেউ ঘেউ করে ডাকছে ।

যা ! তোর নাম দিলাম ঘেউ , মি. ঘেউ ।

একেবারে মাথার উপরে সূর্যটা ।
মৃদু মৃদু উষ্ণ বাতাসও হচ্ছে…
ঘেমে একেবারে যেমন-তেমন অবস্থা !
কিন্তু খারাপ লাগছেনা……বরং ভালোই তো !
এমন মধ্যদুপুরে উদ্দেশ্যহীন হাঁটা-ই হল নিয়ম ।

মাথার মধ্যে একটা গান ঘুরপাক খাচ্ছে, অঞ্জন দত্তের ‘ রং পেন্সিল ‘ ।
এমন সময়ে এই গানটাই কেন মাথায় আসছে বুঝতে পারছিনা । ব্যাকগ্রাউন্ডে অন্য গান বাজানোর চেষ্টা করছি কিন্তু পারছিনা ।

মধ্যদুপুর ।
রেললাইনের উপর হাঁটছি…
উদ্দেশ্যহীন হাঁটা ।
একা না, সাথে একটা কুকুরও আছে । তখন থেকে আমার আশেপাশেই ঘুরঘুর করছে , মাঝে মাঝে পায়ের কাছে এসে আহ্লাদী হয়ে ঘেউ ঘেউ করে ডাকছে ।

যা ! তোর নাম দিলাম ঘেউ , মি. ঘেউ ।

একেবারে মাথার উপরে সূর্যটা ।
মৃদু মৃদু উষ্ণ বাতাসও হচ্ছে…
ঘেমে একেবারে যেমন-তেমন অবস্থা !
কিন্তু খারাপ লাগছেনা……বরং ভালোই তো !
এমন মধ্যদুপুরে উদ্দেশ্যহীন হাঁটা-ই হল নিয়ম ।

মাথার মধ্যে একটা গান ঘুরপাক খাচ্ছে, অঞ্জন দত্তের ‘ রং পেন্সিল ‘ ।
এমন সময়ে এই গানটাই কেন মাথায় আসছে বুঝতে পারছিনা । ব্যাকগ্রাউন্ডে অন্য গান বাজানোর চেষ্টা করছি কিন্তু পারছিনা ।
অদ্ভুত !
.
.
.
জনমানবহীন রেললাইনের উপর আমি হাঁটছি , আমার পাশে মি. ঘেউ । আমার সাথে সাথেই হাঁটছে ।
তবে তার লম্বা জিহ্বার অর্ধেকটাই বের করা ।

মি. ঘেউর দিকে একটু ঝুঁকে এসে জিজ্ঞেস করলাম,
– কিরে ? পিপাসা পেয়েছে ?
জবাবে ছোট্ট করে ঘেউ বলে শব্দ করলো ।
প্রশ্ন বুঝতে পারলো নাকি ?!!!
– আমার সাথে সাথে হাঁটছিস কেন ? যা, চলে যা !
কথা বুঝতে পেরে নাকি না বুঝেই কি জানি; আমার পাশে এসে বসে পড়লো কুকুরটা ।
ভালোই যন্ত্রণা তো !

কিছুক্ষন বসে থাকার পর আবার হাঁটা শুরু করলাম ।
রোদের চোটে মাথা ভনভন করা শুরু করেছে ।
তীব্র সোনালি আলোয় চোখ মেলতেও কষ্ট হচ্ছে ।
ব্যাকগ্রাউন্ডে গান বাজা আপাতত বন্ধ ।

কুকুরটার ছোটাছুটি হঠাৎ বেড়ে গেছে ।
বারবার পেছনে ফিরে কিছু একটার দিকে লক্ষ্য করে অনবরত ডাকছে , তারপর কাছে এসে আমার চারপাশে ঘুরছে ।
বুঝতে পারছি , ট্রেন আসছে । দূর থেকে ট্রেনের শব্দ পাচ্ছি ।
আসুক ! এই ট্রেনের জন্যই তো আমার অপেক্ষা…

কুকুরটা অস্থির হয়ে পড়েছে ।
সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছে বোধ হয়…
এই সময়টায় আমার সাথে থাকা উচিত না আমার সঙ্গ ত্যাগ করা উচিত এই সিদ্ধান্তহীনতা ।

খুব কাছ থেকেই ট্রেনের শব্দ পাচ্ছি।
মি. ঘেউও আর আমার সাথে নেই, চলে গেছে । এখন একাই রেললাইনের উপর হাঁটছি ।
যাওয়ার সময় শুধু আমার দিকে মাথা উঁচু করে তাকিয়ে একবার ঘেউ করে শব্দ করেছে ।
ক্ষমা প্রার্থনা করছিল হয়তো… আমার সঙ্গ ত্যাগ করার জন্যে ক্ষমা ।

যা ! তোর প্রার্থনা মঞ্জুর করা হল ।
আমার অপেক্ষার পালা শেষ ! সেই খুশীতে তোর একটা অপরাধ মাফ !

আর একটু সময় বাকি…
এই অদ্ভুত সময়টায় মাথার ভেতর আবার গানটা উঁকি-ঝুঁকি দিচ্ছে…
অঞ্জন দত্তের… ‘ রং পেন্সিল ‘ ।

” ছিল সবুজ রঙের আকাশ আমার এক
ছিল হলুদ রঙের কত গাংচিল
ছিল নীল রঙের কোকিল, লাল রঙের কাক
গেল কোথায়… গেল কোথায়…পেন্সিল…
রঙ পেন্সিল ”

( বিঃদ্রঃ প্রায় ৪ মাস আগে এই ইস্টিশনে টিকিট কেটেছিলাম । কিন্তু কখন কোন কিছু পোস্ট করিনি ।
সাহস পাইনি…
কিন্তু আজকে অনেক সাহস নিয়ে, চোখ মুখ বুজে, কাঁপতে কাঁপতে সংরক্ষণ বাটনে টিপ দিলাম !
জ্ঞানী গুণীদের সমালোচনা শুনলেও নাকি লাভ ! 🙂 )

৭ thoughts on “মধ্যদুপুর

  1. চটুল শব্দ বিন্যাসে ছোট ছোট
    চটুল শব্দ বিন্যাসে ছোট ছোট বাক্যে অসম্ভব সুন্দর একটি দৃশ্যপট অঙ্কন করেছেন।
    ভাল লেগেছে।

  2. রেললাইন আর ট্রেনের কথা শুনে
    রেললাইন আর ট্রেনের কথা শুনে জীবনের একটা সত্য ঘটনা মনে পড়ল। বেশ কয়েক বছর আগে চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশনে একরাত ছিলাম।বাসা থেকে বের হয়ে গিয়েছিলাম রাগ করে।সিদ্ধান্ত নিছিলাম আর কখনো বাসায় ফিরবো না।সকালের ট্রেনে ঢাকায় যাওয়ার জন্য অপেক্ষা করছিলাম। স্টেশনে থাকা নাম না জানা এক মধ্যবয়স্ক লোকের সাথে পরিচয় হয়।তার সাথে আড্ডা জমে যায়।পরবর্তীতে ফজরের আজান পড়লে তিনি আমাকে জোর করে নামাজ পড়ার জন্য মসজিদে নিয়ে যান। নামাজের পর হুজুর পিতা-মাতার প্রতি সন্তানের কর্তব্য বিষয়ক কিছু হাদীস তুলে ধরেন। মসজিদ থেকে বের হয়ে আবার আমরা স্টেশনের ওয়েটিং জোনে অপেক্ষা করতে থাকি।হুজুরের কথা গুলো আমার কানে বাজতে থাকে।আমার সাথে ব্যক্তিটি বাথরুমের কথা বলে চলে যায়।এদিকে ট্রেন যথা সময়ে চলে আসে। কিন্তু লোকটি আর ফিরে আসে নি। আর আমারও আর ঢাকার ট্রেনে ওঠা হয়নি।এখনও মাঝে মাঝে লোকটিকে খুঁজতে আমি স্টেশনে যায়।

    1. ওটাই হয়তো হওয়ার ছিল…আপনার
      ওটাই হয়তো হওয়ার ছিল…আপনার নিয়তি…।
      যাইহোক,
      আপনার মন্তব্যের জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ 🙂

  3. চমৎকার হাতের লিখা, চালিয়ে
    চমৎকার হাতের লিখা, চালিয়ে যান! হয়তো একদিন বড় ধরনের ব্লগার হয়ে যাবেন হিংসা হচ্ছে ..শুভকামনা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *