কিংবদন্তীর পথে

আজ আর রবীন্দ্রনাথের কবিতা ধার করি না
এখন আমি নিজেই রবীন্দ্রনাথ-
একের পর এক শব্দরা আমার পায়ে লুটায়
কবিতা হবে বলে,
জানো তো-সবই তোমার জন্য কবিতা।
আজ আর উদাস হতে আমার জীবনানন্দ লাগে না-
আমি নিজেই প্রকৃতির বুকে তোমাকে দেখি,
দেখি দেবপুত্র কার্তিকের মতো তোমার অপার্থিব চোখ
আর তার নগর বিরান করা চাহনি,
তোমার হাসির মতো অনন্য মুগ্ধতারা আমায়



আজ আর রবীন্দ্রনাথের কবিতা ধার করি না
এখন আমি নিজেই রবীন্দ্রনাথ-
একের পর এক শব্দরা আমার পায়ে লুটায়
কবিতা হবে বলে,
জানো তো-সবই তোমার জন্য কবিতা।
আজ আর উদাস হতে আমার জীবনানন্দ লাগে না-
আমি নিজেই প্রকৃতির বুকে তোমাকে দেখি,
দেখি দেবপুত্র কার্তিকের মতো তোমার অপার্থিব চোখ
আর তার নগর বিরান করা চাহনি,
তোমার হাসির মতো অনন্য মুগ্ধতারা আমায়
নিত্য উদাস করে রাখে।
রোমান্টিক হতে এখন আর আমি নজরুল কিংবা
দূর দেশের শেলীর কবিতার ভিখিরি নই-
এখন আমিই জাহান্নামের উনুনে
মিলনের খই ফুটাই;
রোমিওর সাথে কুস্তি লড়ি রোমান্টিকতার রাজ্য জয়ে,
বিশ্বাস করো কবিতা-জুলিয়েট আমাকেই চায়-
কেবল একবার তোমার কবির ঠোঁট ছোঁয়াবে বলে।
আজ আর সর্বহারা হয়ে আকাশের ঠিকানায়
চিঠি লিখতে হয়না- রুদ্রের মতো-
আমার প্রতি মুহূর্তেই আমি সর্বহারা,
তোমার কাছে, তোমার উষ্ণতার কাছে।
আজ সুনীলের মতো আক্ষেপ নেই কথা না রাখার
সমরেশের মতো মাধবীলতাদের খুঁজি না আমি
পূর্ণেন্দুর মতো জলন্ত সিগারেট হাতে
কোন দুর্দান্ত যুবতীর চোখ কিংবা বুকে দৃষ্টি রাখি না।
দেখো কবিতা-
তোমার কবি আজ বিশ্ব জয় করতে চলেছে,
তোমায় আবিষ্কারের পর সে কিংবদন্তীর পথে;
বিনিময়ে তার কলমটাকে তুমি আদর দিও
তার যত্ন নিও কবিতা।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *