এক পাল উন্মাদের গল্প !

হুমায়ুন আহমেদের একটা উপন্যাসে এ ধরণের একটা ঘটনা পড়ছিলাম –
এক বয়স্ক লোক ভিক্ষা করেই জীবিকা নির্বাহ করে , কিন্তু ভিক্ষুকদের এ রমরমা যুগেও বেচারার আয় রোজগারের অবস্থা তথৈবচ !! তাই উপন্যাসের নায়ক তাকে একটা বুদ্ধি দিলেন – “ভাই আপ্নে এমনে ভিক্ষা করলে ত ধান্ধাপাতি ভাল হবে না, তার চেয়ে একটা কাজ করেন- আপ্নি ল্যাংটা হয়ে ভিক্ষা করেন, খালি লজ্জাস্থান টা ছোট্ট এক খন্ড কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখবেন ! এরকম অবস্থায় আপ্নে যার সাম্নেই পড়েন, খালি একটা লুঙ্গির আবেদন করলেই নগদে লুঙ্গীকেনার টাকা পাবেন, গ্যারাণ্টেড !

হুমায়ুন আহমেদের একটা উপন্যাসে এ ধরণের একটা ঘটনা পড়ছিলাম –
এক বয়স্ক লোক ভিক্ষা করেই জীবিকা নির্বাহ করে , কিন্তু ভিক্ষুকদের এ রমরমা যুগেও বেচারার আয় রোজগারের অবস্থা তথৈবচ !! তাই উপন্যাসের নায়ক তাকে একটা বুদ্ধি দিলেন – “ভাই আপ্নে এমনে ভিক্ষা করলে ত ধান্ধাপাতি ভাল হবে না, তার চেয়ে একটা কাজ করেন- আপ্নি ল্যাংটা হয়ে ভিক্ষা করেন, খালি লজ্জাস্থান টা ছোট্ট এক খন্ড কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখবেন ! এরকম অবস্থায় আপ্নে যার সাম্নেই পড়েন, খালি একটা লুঙ্গির আবেদন করলেই নগদে লুঙ্গীকেনার টাকা পাবেন, গ্যারাণ্টেড !
তবে আপ্নি কখনোই ধনীদের কাছে হাত পাতবেন না ! হুদাই সময় নস্ট, তারা আপ্নাকে একটাকাও দেবে না ! আপ্নি ধরবেন গরীব দের, তারা অবশ্যই টাকা দেবে !!!

কারণ তারা ভাবে, একদিন তার অবস্থাও হয়ত এমন হতে পারে, এখন যদি সে বিপদগ্রস্ত ব্যাক্তিকে সাহায্য না করে, একদিন এমন বিপদে পড়লে তাকেও হয়ত কেউ হেল্প করবে না !
কিন্তু পয়সা ওয়ালারা এভাবে ভাববেই না কখনো !!! তাই ফকিরদের কে তারা পাত্তাই দেয় না !!
বলাই বাহুল্য, উপন্যাসের নায়কের তরফ থেকে ফকিরকে দেওয়া বুদ্ধিটা চরম ফলপ্রসু !

এই গল্পের তর্জমাহীন তফসির হচ্ছে, ভুক্তভোগীর দুঃখ কেবল ভুক্তভোগীই বোঝে, অন্যেরা সাধারণত বোঝে না বা বুঝতে চায় না ! তবে আমরা একটু আলাদা ! আমরা ভুক্তভোগী হলেও, ভুক্তভোগীর দুঃখ বুঝি না বা বুঝতে চাই না !!

মাথামোটা ফাকিস্তানী জারজদের আমরা ঘৃনা করি- তাদের অমানুষিক বর্বরতা এবং নিষ্ঠুরতার জন্য !!! ৭১ এ তো বটেই, তার আগে-পরে ও এই জারজ বেজন্মা জাতি বাংলাদেশের নিরীহ জনতার সাথে যেসব বদমাইশি করছে , সে জন্য তাদের কে ক্ষমা করার প্রশ্নই আসেনা এবং কখনোই তা করা হবে না ।

এদের অবর্ননীয় পাশবিক নির্যাতনে আমরা কি হারাই নাই !!? মা বাবা ভাইবোন পরিবার এমন কি হাসি আনন্দ ও হারাইছে এক দঙ্গল মাথা োটা স্বৈরাচারী জারজ সামরিক শাসকদের খেয়াল-খুশির বলী হয়ে ! এদেশের খুব অল্প পরিবারই আছে, মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে যাদের কেউ নিহত হয় নাই, বা পাশবিক নির্যাতনের শিকার হয় নাই !! ক্ষমাটা করি কিভাবে এদের !??

এখন সেই একইভাবে আমরা যদি এই সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতন চালাই, তাইলে আমাদের আর বর্বর ফাকিস্তানীদের মধ্যে কি পার্থক্য রইল !!?

আমরা ত ৭১ এ ভুক্তভোগী ছিলাম, সেই আমরাই যদি ২০১৪’র ভুক্তভোগীদের দুঃখ না বুঝি, তাইলে ক্যাম্নে কি !!?

নরেন্দ্র মোদী ৭১ এ ভারতে আশ্রয় নেয়া অবৈধ বাংলাদেশীদের কে বাংলাদেশে পুশব্যাক করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিচ্ছে । কিন্তু এরা বহুদিন ধরে সেদেশেই থাকে এবং বেশির ভাগই ইন্ডিয়া ছেড়ে আসতে চায় না । খুবই স্বাভাবিক, এতদিন সেখানে থাকতে থাকতে সেখানকার পরিবেশ পরিস্থিতির সাথে ও মানাই নিছে, সেখানেই জীবিকা নির্বাহের বন্দোবস্ত করছে । কিন্তু এখন যদি আবারো পুশব্যাক করে এদের কে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেয়, তাইলে আবার নতুন করে সবকিছু শুরু করতে হবে !

এদের কারোই বাংলাদেশে ভিটা মাটি নাই !! আস্তাকুড়ে, ফুটপাত ব রেল স্টেশন ছাড়া আর কোথাও জুটবে কি না সন্দেহ ! ছেলে মেয়ের পড়া শোনা পুরাই বর্বাদ!
সব কিছু ছেড়ে তাদের কে নতুন দেশে এসে সব কিছুর সাথে মানিয়ে নেওয়া অসম্ভব ঝামেলার ! তাই সঙ্গত কারণেই এরা এদেশে আসতে চাইবে না, এটা খুবই স্বাভাবিক !!

কিন্তু নরেন্দ্র মোদী গং যদি অভিবাসী বাংলাদেশীদের তাড়ানোর জন্য আতঙ্ক সৃস্টির মাধ্যমে আগুন লাগিয়ে, বোমা মেরে পাইকারী হারে মানুষ মারা শুরু করে, সেটা কি খুব বিশাল বীরত্বের ব্যাপার হিসাবে চিহ্নিত হবে !? আপ্নি কি মোদী কে সমর্থন করবেন!?? যেসব ইন্ডিয়ান রা এর প্রতিবাদ করবে , তাগোরে আপ্নি ছাগু ট্যাগ লাগায়া দিবেন !!? এরা কি মানুষ না !? ইতর প্রাণী কাউয়া ও ত কখনো নিজেরা নিজেদের খুন করে না ! আমরা আসলে কাউয়ার চেয়েও খারাপ !

একটা রিক্সাওয়ালা বা ঘরের হেল্পিং হ্যান্ড রে মাইরা বীরত্ব ফলানোর কোন মানে আছে !?

সিপি গ্যাংর মত কিছু কিছু বেজন্মা এই ইস্যুতে বিহারীদের উপর নির্বিচারে ধর্ষন এবং হত্যাযজ্ঞ চালানোর জন্য উস্কানী দিয়ে যাচ্ছে ! এরা কি মানুষ ? এরা অবশ্যই ফাকিস্তানীদের বংশধর, এ কারণেই তাদের চিন্তা ভাবনা ও তাদের বাপ ফাকিস্তানীদের মতো !!
এরা কি স্বজাতির সাথেই চরম বেঈমানী করা গোয়াজম, সাঈদীদের চেয়ে ও নিকৃস্টতম অপরাধী !!?? এই গোয়াজম রাও যদি সুষ্ঠু বিচারের স্বার্থে আইনী সহায়তার সুযোগ পায়, তাইলে এদের ও কি সে সুযোগ পাওয়া উচিত না !?

সিপি গ্যাং কি জানে বাংলাদেশ কে প্রথমবারের মত বিশ্বকাপে নিয়ে যাওয়া সর্বজন শ্রদ্ধেয় অধিনায়ক আকরাম খান কোন জাতির লোক ? কিংবা আতাহার বা গোল্লারা কোন অঞ্চল থেকে এদেশে এসে থিতু হয়েছে !? তাদের ও ত অবদান আছে বাংলাদেশের জন্য !

চট্টগ্রামের সিংহভাগ সুইপার বা মেথররা জাতিতে বিহারী ! সিপি গ্যাং এদের হত্যা করে নিজেরাই কি সুইপারগিরি করতে আগ্রহী !?

সিপির দাবী তারা আওয়ামীলীগের শুভাকাঙ্খী কিন্তু তাদের উস্কানিমূলক আচরণ দেইখা এটা মনে হয় না ! গতকালের ঘটনায় তারা এমন ভাবে সংখ্যা লঘু বিহারীদের ওপয় নির্যাতন চালানোর অত্যাবশ্যকীয়তা ব্যাখ্যা করছিল, তাতে যে কারোই মনে হবে – এতে সরকারের ও ইন্ধন আছে ! যেহেতু তারা সরকারের হার্ডকোর সাপোর্টার হিসাবে দাবি করে নিজেদের !
এমনি তেই বহিঃবিশ্বে সরকারের সমালোচনা হচ্ছে ,তার উপ্রে কোনভাবে যদি এটাও আওয়ামীলীগের কাজ হিসাবে প্রসিদ্ধি লাভ করে – তাইলে সরকার আরো চাপে পড়বে !

সেটাই কি চায় তারা !?
তাদের মনে রাখা উচিত ২০০৩-০৪ এর দিকে বিম্পি সরকারের আমলে আহমেদিয়াদের মসজিদ, বাসস্থান কিংবা বিহারি ক্যাম্পে বোমা হামলার ব্যাপারে সব চেয়ে সোচ্চার ছিল আওয়ামীলীগ এবং চৌদ্দ দল ! আর এখন রাজনৈতিক কারণে তারা বেজন্মা চুতিয়া হয়ে গেল !? আবার নিজের শাসনামলে পোষা জঙ্গী দিয়ে বিহারীদের ওপর বোমা হামলা চালানো খালেদা এখন রাজনৈতিক কারণে “হার্ডকোর বিহারী প্রেমী” !!
যদিও এর নাম রাজনীতি , তবে আদতে এখানে “নীতি” নামক কোন কিছুর অস্তিত্বই নাই !!

১০ টা মানুষ খুন হওয়া এমনিতেই ন্যাক্কারজনক ঘটনা, তার ওপর এমন নিকৃস্টতম হত্যাকান্ডকে ‘ফাকিস্তানী’ ট্যাগ লাগিয়ে জায়েজ করার চেষ্টা করা আরো মর্মান্তিক ! অগ্নিদগ্ধ হয়ে একৈ পরিবারের যে ৪ জন মারা গেছেন ,তাদের ঘরের দরজায় তালা মেরে বাইরে থেকে আগুন লাগিয়ে দেয়া হয় ! তাদের পাশের ঘরে ও একৈ পরিবারের দুই ভাই মারা যায় একৈ রকম ভাবে ! বাইরে থেকে তালা আটকে দেয়া হৈছিল তাদের ! মর্মান্তিক হত্যাকান্ডের পর ও যাদের শখ মেটে না, তারা মানসিক ভাবে সম্পূর্ণ অসুস্থ ।
এসব অসুস্থ মানসিকতার পাবলিকের কাছে একটাই অনুরোধ- তাদের প্রতি সহানুভূতি দেখানোর দরকার নাই , এত নির্মমতার পর অরো উস্কানী মূলক কথাবার্তা বলে আরো ঘৃণা বা বিদ্ধেষ ছড়াবেন না, দয়া করে ! আপনি যে বিকৃত মস্তিস্কের উন্মাদ, তা বারংবার প্রমাণের প্রচেষ্টায় গৌরবের কিছু নাই !!

১০ thoughts on “এক পাল উন্মাদের গল্প !

  1. পোষ্ট পড়ে আপনার ক্ষোভের
    পোষ্ট পড়ে আপনার ক্ষোভের মাত্রাটা বোঝা গেল। আমাদের সবারই একই অবস্থা। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে দেশে কোন আইন কানুন নাই। যার যা মনে হচ্ছে, করে বেড়াচ্ছে। সুসঠ তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিচার প্রক্রিয়ায় আনা দরকার।

    1. ভাই এই মগের মুল্লুকে ক্ষোভ
      ভাই এই মগের মুল্লুকে ক্ষোভ প্রকাশ ছাড়া আর কিছুইকরার নাই ! btw মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ :ধইন্যাপাতা:

  2. সিপি গ্যাংর মত কিছু কিছু

    সিপি গ্যাংর মত কিছু কিছু বেজন্মা এই ইস্যুতে বিহারীদের উপর নির্বিচারে ধর্ষন এবং হত্যাযজ্ঞ চালানোর জন্য উস্কানী দিয়ে যাচ্ছে ! এরা কি মানুষ ? এরা অবশ্যই ফাকিস্তানীদের বংশধর, এ কারণেই তাদের চিন্তা ভাবনা ও তাদের বাপ ফাকিস্তানীদের মতো !!

    ছিপি গ্যাং আওয়ামী বেজন্মাদের সংগঠন! এরা জন্মেছে পাকিস্তানী বাপ আর আওয়ামী মায়ের বীর্যে।

    1. ছিপি গ্যাং আওয়ামী বেজন্মাদের

      ছিপি গ্যাং আওয়ামী বেজন্মাদের সংগঠন!

      আপনি না কইচিলেন রাসেল রহমান আপনার জানের দোস্ত, ফেসবুক ফেরেণ্ড!
      তাইলে ক্যামনে কি?

      এরা জন্মেছে পাকিস্তানী বাপ আর আওয়ামী মায়ের বীর্যে।

      আপনি বলদের পাছা দিয়া বেরোইচেন নাকি?

  3. ১০ টা মানুষ খুন হওয়া এমনিতেই

    ১০ টা মানুষ খুন হওয়া এমনিতেই ন্যাক্কারজনক ঘটনা, তার ওপর এমন নিকৃস্টতম হত্যাকান্ডকে ‘ফাকিস্তানী’ ট্যাগ লাগিয়ে জায়েজ করার চেষ্টা করা আরো মর্মান্তিক !

    যারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে সত্যিকারভাবে ধারণ করে, তারা এটাকে জায়েজ করেনা। জায়েজ করে কেবল ব্লগ ও নেটে উগ্র জাতীয়তাবাদ আর ফ্যাসিজম ছড়ানোর কাজে নেতৃত্ব দেয়া আওয়ামী সমর্থক গোষ্ঠী ।

    1. হাহাহাহা আমিও কড়া আওয়ামী
      হাহাহাহা আমিও কড়া আওয়ামী সাপোর্টার ভাই ! এ কারণেই তাদের আকামগুলা খুব বেশি কস্টদায়ক আমার জন্য । তাই লেখালেখির প্রতিভা এবং সমালোচনা করার জন্য যথেষ্ঠ মেধা না থাকা স্বত্বেও নিতান্তই ফালতু মানের কিছু লাইন লিখে ক্ষোভ প্রকাশ করে ঝাল মেটানোর চেস্টা করি

  4. হাহাহাহা আমিও কড়া আওয়ামী

    হাহাহাহা আমিও কড়া আওয়ামী সাপোর্টার ভাই !

    এই ডা কি কাম করলেন ভাই?
    এইবার শেইজ্জা মিয়া আপনারে আবার ভাদা না কইয়া ডাকে!

    1. হাহাহাহাহাহা ব্যাপার না ভাই,
      হাহাহাহাহাহা ব্যাপার না ভাই, ‘ভাদা’ ট্যাগ বহুবার খাইছে, তবে আল্লাহ’র অশেষ রহমতে “ছাগু” ট্যাগ লাগে নাই কখনো ! এনিওয়ে, মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ :ধইন্যাপাতা:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *