থাবা বাবা এবং তার একটি পোস্ট

ব্লগার রাজীব ওরফে ” থাবা বাবা ” এর একটা ফেসবুক স্ট্যাটাস নিয়ে এখনো ফারাবী এবং তার সমগোত্রীয় শ্রেনী মাঝেমাঝেই যত্রতত্র চিৎকার চেঁচামেচি করে থাকে । স্ট্যাটাস টা এমন ছিল যে, কোন এক রমণীর সাথে তার বাবার সম্পর্ক একটি দীর্ঘ সময়ের জন্য ছেদ হয় এবং পরবর্তীতে যখন তাদের মধ্যে আবার দেখা হয় তখন তারা একে অপরের প্রেমে পড়ে যায় এবং বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয় । পরবর্তীতে একটি সংবাদ মাধ্যমের সাক্ষাতকারে সেই তরুণী বলেন যে তিনি অনেক সুখী আছেন এবং এই বিয়ে তার ইচ্ছেমতেই হয়েছে । এবং এই ব্যাপারটিকেই থাবা বাবা সমর্থন করেছিলেন ।

ব্লগার রাজীব ওরফে ” থাবা বাবা ” এর একটা ফেসবুক স্ট্যাটাস নিয়ে এখনো ফারাবী এবং তার সমগোত্রীয় শ্রেনী মাঝেমাঝেই যত্রতত্র চিৎকার চেঁচামেচি করে থাকে । স্ট্যাটাস টা এমন ছিল যে, কোন এক রমণীর সাথে তার বাবার সম্পর্ক একটি দীর্ঘ সময়ের জন্য ছেদ হয় এবং পরবর্তীতে যখন তাদের মধ্যে আবার দেখা হয় তখন তারা একে অপরের প্রেমে পড়ে যায় এবং বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয় । পরবর্তীতে একটি সংবাদ মাধ্যমের সাক্ষাতকারে সেই তরুণী বলেন যে তিনি অনেক সুখী আছেন এবং এই বিয়ে তার ইচ্ছেমতেই হয়েছে । এবং এই ব্যাপারটিকেই থাবা বাবা সমর্থন করেছিলেন ।
এই ঘটনাকে দুটি দৃষ্টিকোণ থেকে চিন্তা করা যেতে পারে । এখানে আমি আগেই বলেছি বাবা মেয়ের দীর্ঘ সম্পর্ক ছেদের কথা । যেখানে বাবা মেয়ের মাঝে কোন পিতৃজনিত সম্পর্ক গড়ে উঠেনি , সেক্ষেত্রে এই ব্যাপারটাকে সহজ ভাবে মেনে নেয়া যেতেই পারে । এখানে ফতোয়াবাজীর কিছু নেই । কিন্তু কতিপয় মুমীন মহাশয়গণ এটাকে স্বাভাবিক বাবা-মেয়ের সম্পর্কের দিকে টেনে নিয়ে গিয়ে ফতোয়াবাজীর ধান্দায় আছেন । এই ক্ষেত্রে আসে দ্বিতীয় দৃষ্টিকোণ থেকে চিন্তা করার বিষয়টি ।
স্বাভাবিক ক্ষেত্রে পিতা-কন্যা বা মাতা-পুত্র বিবাহ একটি সামাজিক এবং মানষিক ব্যাধি । পিতা মাতার স্বাভাবিক আবস্থানে আপনি হাজার চেষ্টা করেও অন্য কোন সম্পর্ক স্থাপন করতে পারেন না , যদি করতে পারেন তাহলে ধরে নিতে হবে আপনার মস্তিষ্ক বিকৃতি ঘটেছে অথবা আপনার মনুষ্যত্ব সম্পুর্ণরূপে লোপ ঘটেছে । কতিপয় ব্যাক্তি নাস্তিক হয়ে এই ধারণা পোষন করেন যে , ‘ আমি নাস্তিক হয়েছি , তার মানে ধর্মীয় সকল অনুশাষনের মায়েরে বাপ করা আমার নৈতিক দায়িত্ব ‘ । তাদের কে বলি – ধর্ম ত্যাগ করতে গিয়ে যদি আপনার মনুষ্যত্ব লোপ পায় , তাহলে জানামাজ হাতে নিয়ে মসজিদে দৌড়ানোই হবে আপনার জন্য উত্তম । ধর্মে মিথ্যা বলা মহাপাপ , এই জন্যে আপনি যদি মিথ্যাবাদী হয়ে নিজেকে নাস্তিক ঘোষণা করার চেষ্টায় রত থাকেন – তবে তা মোটেও গ্রহনযোগ্য নয় । আমরা নাস্তিক কারন আমরা মানি মানবধর্মের চেয়ে বড় কিছু নাই , আর সেটা মানতে গিয়ে আপনি যদি মনুষ্যত্ব লোপ পেয়ে পশুর স্তরে চলে যান – তাহলে তা গ্রহনযোগ্য নয় ।
আর ছাগু আস্তিকদের বলব – যখন কারো লেখা পড়বেন , আগে বুঝুন সে কি বলতে চাইছে । থাবা বাবা এটাই বলতে চেয়েচিলেন যে -যেহেতু বাবা মেয়ের মাঝে সম্পর্ক ছিল না , তাহলে এই সম্পর্ক মেনে নিতে কারো কোন অসুবিধা হবার কথা নয় । কিন্তু স্বাভাবিক পিতা মাতার স্বম্পর্ক নিয়ে তিনি কোন কথা বলেননি ।
অতএব ফারাবী এবং তার চামচাদের বলব – আগে লেখা বোঝার যোগ্যতা অর্জন করুন তারপর সেটার রেফারেন্স দেবেন । ছাগলের তিন নম্বর বাচচার মত হুদাই লাফাবেন না ।

১৫ thoughts on “থাবা বাবা এবং তার একটি পোস্ট

  1. থাবা বাবা এটাই বলতে চেয়েচিলেন

    থাবা বাবা এটাই বলতে চেয়েচিলেন যে -যেহেতু বাবা মেয়ের মাঝে সম্পর্ক ছিল না , তাহলে এই সম্পর্ক মেনে নিতে কারো কোন অসুবিধা হবার কথা নয় ।

    এই পোস্টের মাদ্যমে আপনি অযাচারকে সিদ্ধ করতে চাইছেন, রাজিবের মতই।

    আপনাদের প্রতি ঘৃণা জানানোর ভাষা আমার নেই।

    ধরুণ আপনি ছোটবেলায় আপনার মায়ের কাছ থেকে হারিয়ে গিয়েছিলেন। এখন অনেকদিন পর আপনার মায়ের সাথে দেখা হলে আপনি তার সাথে কি সেক্স করতে পারবেন?

    আসলে, আপনাদের মত মানুষ নিজের জানেনা তারা কি বলছে আর কি করতেছে!

      1. কিছু লোক রাজিব ভাইকে একেবারে
        কিছু লোক রাজিব ভাইকে একেবারে পুজনীয় ভাবে। তারা এটা ভাবেনা যে রাজিবের যেটুকু ভুল বা অপরাধ, সেটুকু ভুল বা অপরাধই।

        রাজিবের অনেক ভালো গুণ ছিল, যেগুলোর কথা আমরা জানি, কিন্তু অযাচারকে সমর্থন করে রাজিবের দেয়া পোস্ট শুধু মারাত্মক ভুলই নয়, এটা অপরাধের পর্যায়ে পড়ে। রাজিব এবং তার ঐ পোস্টকে সমর্থন করে যারা পোস্ট দেয়, তারা একধরণের ‘নাস্তিক ছাগু’। অথবা এর থেকেও নিকৃস্ট কিছু!

    1. ধরুণ আপনি ছোটবেলায় আপনার

      ধরুণ আপনি ছোটবেলায় আপনার মায়ের কাছ থেকে হারিয়ে গিয়েছিলেন। এখন অনেকদিন পর আপনার মায়ের সাথে দেখা হলে আপনি তার সাথে কি সেক্স করতে পারবেন?

      আমার মনে হয় তথাকথিত ফ্যাশনবাজ নাস্তিকের পক্ষে এহেন অপকর্ম সাধন করা সম্ভব না । এই সব বাল-ছাল শুধু মানুষের এটেনশন সিক করার জন্যই তারা করে থাকে …..

      1. ঠিক। উলটাপালটা না লিখলে তো
        ঠিক। উলটাপালটা না লিখলে তো বিখ্যাত হওয়া যায়না। এখন দেখিবেন রিফাট ভাইছাহেবও বিক্কাত হইয়া যাইবেন।

  2. Inchest কোনভাবেই সমর্থন যোগ্য
    Inchest কোনভাবেই সমর্থন যোগ্য না। স্বাধীনতা, আর স্বেচ্ছাচার এক জিনিস না। আমি ঠিক ক্লিয়ার না ঐ মেয়ে কি বিয়ের আগেই জানতে পারছিলেন যে যাকে বিয়ে করতে যাচ্ছেন উনি উনার জন্মদাতা পিতা? যদি না জেনে করে থাকেন সেটা ভিন্ন বিষয়। কিন্তু জেনেশুনে এটা করার কোন যুক্তি দেখিনা।

    1. ব্যাপারটা এটাই। কিন্তু ছাগুরা
      ব্যাপারটা এটাই। কিন্তু ছাগুরা এটাকে ভিন্ন দৃষ্টিকোন থেকে দেখা ছাড়া অন্যকিছু ভাবতেই পারে না।

      1. এখানে ছওকত সাহেবের নলেজের
        এখানে ছওকত সাহেবের নলেজের ঘাটতি আছে।

        অযাচারকে সমর্থন না করলেই ছাগু, এটা জীবনে প্ররথম জানিলাম!

        :মাথাঠুকি: :হাসি: :মাথাঠুকি: :হাসি: :মাথাঠুকি: :হাসি: :মাথাঠুকি:

        1. শ্যাজা ভাই, গায়ে লাগছে নাকি?
          শ্যাজা ভাই, গায়ে লাগছে নাকি? আমি কি বলতে চাইসি, সেটা না বোঝারই ফল এই কমেন্ট। ছাগুরা সবসময়ই বাপ-মেয়ে, মা-ছেলে ইনসেস্ট, লাগালাগি বিষয়ক প্রসঙ্গের অবতারণা করে কোনো নাস্তিকের বিরোধীতা করার সময়। অনলাইন/অফলাইনে ছাগু পুন্দানোতে কিঞ্চিৎ কুখ্যাতি থাকার আলোকে বলছি। রাজীবের সমালোচনাপর্বের প্রথম ৫টা পয়েন্টের এটা একটা। একজন পুরুষের হারিয়ে যাওয়া মেয়ের সাথে আচানক পরিচয় (পূর্ব সূত্র ছাড়া) এর পরে যদি তাদের মধ্যে শারিরীক সম্পর্ক ঘটে যায়, সেটাকে অযাচার বলার কোন উপায় নাই। কিন্তু এই দৃষ্টিকোন থেকে না দেখে ছাগুরা ‘বাপ-মেয়ে লাগালাগি’ বিষয়টাকে পুঁজি করে ল্যাদানোতে ব্যস্ত থাকে। আপনার ক্যাটাগরী বোঝানোর জন্য ধন্যবাদ।

    2. জ্বি ভাই, ঐ মেয়েটা বাপকে খুজে
      জ্বি ভাই, ঐ মেয়েটা বাপকে খুজে বের করার পড়েই এই ঘটনা। দুজনেই অযাচারে লিপ্ত হয়ে যায়।

  3. রিফাত রাফি ছাগলের ছয় নম্বর
    রিফাত রাফি ছাগলের ছয় নম্বর বাচ্চা।আগে নিজে বুঝেন তারপর কথা বলেন।টপিক ছাড়া কথাবার্তা বালছাল পুলাপান।

  4. আচ্ছা পুটুনদা আপনে বলছেন,বাবা
    আচ্ছা পুটুনদা আপনে বলছেন,বাবা মেয়ের মাঝে কোন সম্পর্ক হয়ে উঠেনি।আরে ছাগল যদি সম্পর্ক নাই হইয় উঠে তাইলে অরে বাবা কইবি কেন?
    আচ্ছা আপনের মায় যেন হারায়া গেল প্রায় 20বছর পর আপনার মাকে আপনি পাইলেন আচ্ছা আপনার মায়ের সাথে তো 20বছর আপনার সম্পর্কচ্ছেদ ছিলো তেমন মায়া মমতার আছর ও নাই।আচ্ছা তাইলে তার সাথে কি আপনে সংসার করতে পারবেন তার সাথে সঙ্গমে লিপ্ত হইতে পারবেন?
    কোন সুস্থ মষ্তিষ্কের পোলাই তা পারবনা।
    অবশ্য আপনি পারতে পারেন কেননা আপনার লেখার ভিতর নোংড়া নোংড়া একটা ভাব পাওয়া যাইতেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *