শহীদ জিয়াও বীর বিক্রম আর ডা: ইমরানও বীর।

বাংলাদেশে বীর পুরুষের অভাব ছিল না কোনদিনই। তবে একটা শর্ত আছে। মামুলি শর্ত। বীরত্বটা দেখাতে হবে ঘড়ে। অনেকটা আমাদের পররাষ্ট্রনীতির মতো। কারো সাথে শত্রুতা নয় সবার সাথে বন্ধুত্ব। কারন আমরা বাইরের কারো সাথেই তো পারে উঠি না, তাই আগেই ক্ষমা করে বসে থাকি। শহীদ জিয়া বীর বিক্রম ছিলেন কিন্তু কোনদিন তিনি তা ব্যাবহার করেননি। কারন সেই যুদ্ধটা মুসলমানদের মধ্যে সংগঠিত হয়েছিল। হিন্দুদের নাপাক হাতে ইয়াহিয়া নিয়জীরা অপদস্ত হয়েছিলেন। ঐতিহাসিক সত্য হলো পাকিস্তান ১৯৭১এর যুদ্ধে জেনেভা কনভেনশানের সুবিধা নিতে ভারতের কাছেই আত্মসর্মাপন করেছিল। যৌথবাহিনীর সত্যটুকু শুধু ভারত আর বাংলাদেশের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল। বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশকে রাষ্ট্র হিসাবে দার করাতে বাংলাদেশকে অনেকটা পথ হাটতে হয়েছে।

গনজাগরণ মঞ্চের প্রতিপক্ষ আওয়ামী লীগ। তাই র্নিদিধায় বলতে পারছে প্রয়োজনে টেনে হিছরে সরকারের পতন ঘটাবেন। শুশীল মানে ভালো নরসুন্দর অর্থাৎ নাপিত। এটা শাকার উক্তি। সাকা জামাত বিএনপির একজন নীতি র্নিধারক ছিলেন। শেখ হাসিনা কেন তার সোনা নিয়ে টানাটানি করেন তার পরিনামে তিনি এখন জেলের ঘানি টানছেন। তা টানুক তাতেও আমার কোন যায় আসে না। ডা: ইমরানের সাথের মুখ গুলি আমাদের সবার পরিচিত। তারা যেন ধনুক ভাঙ্গা পন করেছেন জামাতকে যে করেই হোক নিষিদ্ধ করতে হবে। মানলাম আপনাদের আন্দোলন সঠিক আওয়ামী লীগ জামাতের সাথে আতাত করে আমাদের ঠকাচ্ছে। আওয়ামী লীগকে ক্ষমতাচুত করতেও আপনারা কামিয়াব হলেন। একটিবার ভেবে দেখেছেন কি ক্ষমতার ঐ মশনদটা কি ফাকা পড়ে খাকবে। ওখানে কাউকে না কাউকে তো বসতেই হবে। হয় সেনাবাহিনী নযতো বিএনপির ছায়ায় একটি রাজাকার মায়ার সরকার ক্ষমতায় বসবে। সেটা কি জাতীর জন্য শুভ হবে। কোন অবস্থাতেই তা শুভ হবে না।

নিজের নাক কেটে পরের যাত্রা ভঙ্গ করতে বাঙ্গালীর জুড়ি নেই। দেশ আওয়ামী লীগ চালাচ্ছে। তার শক্ত কোন প্রতিপক্ষ নেই। তারিক জিয়ার কলঙ্ক মোচন করতে গিয়ে আওয়ামী লীগকে বিএ্নপির এই ফাকা মাঠটিকে উপহার দিতে হয়েছিল। ফাকা মাঠ পেয়ে যদি গরুগুলি বেশী বেশী ঘাস খায় সেটাও কি আওয়ামী লীগের দোষ। রাজনীতি হল ক্ষমতায় টিকে থাকার কৌশল। আওয়ামীলীগ কায়মনোবাক্যে সেই কাজটাই বড় নিষ্ঠার সাথে করে যাচ্ছে। এখানে আমি দোষের কিছু দেখছি না।

আন্দোলন যদি করতেই হয় আসুন আমরা সবাই কাধে কাধ মিলিয়ে আন্দোলন করি। বাংলাদেশ থেকে চির জীবনের জন্য ধর্মরাষ্ট্র ও ধর্মরাজনীতির ভুত উচ্ছেদ করি। এতে আমার পরবর্তি প্রজন্ম আরো ভালো থাকবে। আরো সুন্দর ভাবে রেড়ে উঠবে। খুজে নিতে পারবে মানুষ হয়ে বেচে থাকার সার্থকতা।

১৩ thoughts on “শহীদ জিয়াও বীর বিক্রম আর ডা: ইমরানও বীর।

  1. বেকুব সাহেব আপনি আসলেই বেকুব!
    বেকুব সাহেব আপনি আসলেই বেকুব! আপনার ছুপা আওয়ামী সমর্থন একেবারে দিবালোকের মত স্পষ্ট হয়ে গেল এতদিনে।

    আপনি আজাইরা লিখেছেন ইমরান আর গণজাগরণ মঞ্চ আওয়ামী লীগের পতনের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। আপনার এই কথার কোন সত্যতা নেই।

    আপনি এরকম উলটাপালটা পোস্ট দিয়ে নিজেরও ভাবমূর্তি নষ্ট করছেন।

    আর আপনার পোস্টে তো আপনি কারও কমেন্টের উত্তর দেননা। আপনি থাকেন চুপ– যেমন নেজে আপনি ছুপ-আ!

      1. হুম, বেকুবের কথায় খেপে কি
        হুম, বেকুবের কথায় খেপে কি লাভ!

        :ঘুমপাইতেছে: :ঘুমপাইতেছে: :ঘুমপাইতেছে: :ঘুমপাইতেছে: :ঘুমপাইতেছে: :ঘুমপাইতেছে:

    1. @ শে.আ: ছুপা হোক বা প্রকাশ্য
      @ শে.আ: ছুপা হোক বা প্রকাশ্য হোক, আওয়ামী সমর্থন কবিরা গুণাহের অন্তর্ভূক্ত হয়ে গেলো নাকি? এ সংক্রান্ত ফতোয়াটা উদ্ধৃত করুন। সব কিছুতেই যখন গুয়ের গন্ধ খুঁজে পাবেন, তখন পরিবেশের উন্নয়ণ ঘটানোর আগে নাকে লেগে থাকা গু ধুয়ে নিন। সমাধান হয়ে যাবে।

  2. তারিক জিয়ার কলঙ্ক মোচন করতে

    তারিক জিয়ার কলঙ্ক মোচন করতে গিয়ে আওয়ামী লীগকে বিএ্নপির এই ফাকা মাঠটিকে উপহার দিতে হয়েছিল। ফাকা মাঠ পেয়ে যদি গরুগুলি বেশী বেশী ঘাস খায় সেটাও কি আওয়ামী লীগের দোষ। রাজনীতি হল ক্ষমতায় টিকে থাকার কৌশল। আওয়ামীলীগ কায়মনোবাক্যে সেই কাজটাই বড় নিষ্ঠার সাথে করে যাচ্ছে। এখানে আমি দোষের কিছু দেখছি না।

    এটা বড়ই পক্ষপাতদুষ্ট কথা!
    আমিও চাই আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় থাকুক, কিন্তু যেন তেন ভাবে সেটা আঁকড়ে ধরে থাকতেই হবে সেটা সমর্থন যোগ্য হতে পারে না।

    1. এটা বড়ই পক্ষপাতদুষ্ট

      এটা বড়ই পক্ষপাতদুষ্ট কথা!
      আমিও চাই আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় থাকুক, কিন্তু যেন তেন ভাবে সেটা আঁকড়ে ধরে থাকতেই হবে সেটা সমর্থন যোগ্য হতে পারে না।

      ভাই, আপনার মধ্যে এই নবচিন্তার উদয়কে স্বাগত জানাই। :গোলাপ: : :গোলাপ: :গোলাপ:

  3. ভাই, আপনার মধ্যে এই নবচিন্তার

    ভাই, আপনার মধ্যে এই নবচিন্তার উদয়কে স্বাগত জানাই

    আপনার এই এক ঘেয়ে ঘ্যানঘ্যানে কান্না দেখতে দেখতে ত্যাক্ত-বিরক্ত হয়ে যাচ্ছি ভাই।
    আমি পরিষ্কার করে বলছি, আমি আগে যে ধ্যান-ধারনা পোষণ করতাম এখনও তার থেকে বিন্দু পরিমান সরে আসিনি।
    আপনার অযথা টেনশন না করলেও চলবে।
    ধন্যবাদ।

    1. আপনার মইধ্যে কি হইছে আর কি
      আপনার মইধ্যে কি হইছে আর কি হয়য় নাই, সেইটা সম্মন্ধে কিন্তু ধারণা রাখি! :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া:

  4. আন্দোলন যদি করতেই হয় আসুন

    আন্দোলন যদি করতেই হয় আসুন আমরা সবাই কাধে কাধ মিলিয়ে আন্দোলন করি।

    বর্তমানে গণজাগরণ মঞ্চ কি পা’য়ে পা মিলিয়ে আন্দোলন করছে?

    1. না, লেখক মনে হয় বলতে চাইছে
      :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে:

      না, লেখক মনে হয় বলতে চাইছে ঘোড়ায় চড়িয়া আন্দোলন করিয়াছে।

Leave a Reply to বৃত্তবন্দী চন্দ্রবিন্দু Cancel reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *