বলতে কি পার তুমি!

বলতে কি পার তুমি! / নিবিড় রৌদ্র৷
৩০শে বৈশাখ, ১৪২১ বাংলা৷
রাত- ৩টা ৫২মিনিট৷
———————

শুণ্যতা উকি মারে,
চুপিসারে ঘরে!
বলতে কি পার তুমি,
নিঃসঙ্গ নাবিকের সম্বল-
ছোট তরী কেন উঠে নড়ে,
ছেড়া পাল কেন যায়
বারে বারে ছিড়ে?
প্রবল বেগে ধেয়ে আসা ঝড়ে!
শুণ্যতা উকি মারে,
চুপিসারে ঘরে!

প্রভাতে ফুটে যে ফুল,
সাঁজে যায় ঝরে!
বলতে কি পার তুমি,
কতটা হিংস্রতা হানা দেয়-
কত আত্ম-চিত্কার দেয়ালে
আটকে পড়ে, কত অভিশাপ
চোখ থেকে ঝরে? অচিরেই
মুছে যায় রাতের জলসাঘরে!
শুণ্যতা উকি মারে,
চুপিসারে ঘরে!

নগ্নতা ঢেকে রাখি,
কলঙ্ক ভেসে উঠে পর্দাটা সরে!
বলতে কি পার তুমি,

বলতে কি পার তুমি! / নিবিড় রৌদ্র৷
৩০শে বৈশাখ, ১৪২১ বাংলা৷
রাত- ৩টা ৫২মিনিট৷
———————

শুণ্যতা উকি মারে,
চুপিসারে ঘরে!
বলতে কি পার তুমি,
নিঃসঙ্গ নাবিকের সম্বল-
ছোট তরী কেন উঠে নড়ে,
ছেড়া পাল কেন যায়
বারে বারে ছিড়ে?
প্রবল বেগে ধেয়ে আসা ঝড়ে!
শুণ্যতা উকি মারে,
চুপিসারে ঘরে!

প্রভাতে ফুটে যে ফুল,
সাঁজে যায় ঝরে!
বলতে কি পার তুমি,
কতটা হিংস্রতা হানা দেয়-
কত আত্ম-চিত্কার দেয়ালে
আটকে পড়ে, কত অভিশাপ
চোখ থেকে ঝরে? অচিরেই
মুছে যায় রাতের জলসাঘরে!
শুণ্যতা উকি মারে,
চুপিসারে ঘরে!

নগ্নতা ঢেকে রাখি,
কলঙ্ক ভেসে উঠে পর্দাটা সরে!
বলতে কি পার তুমি,
কতটা নগ্নতা চাপা পড়ে-
একে একে কত কলঙ্ক
জড়ো হয়, কালের সাক্ষীঘরে?
কতটা ধৈর্য্য স্তরে স্তরে
জমা হলে, বাঁধ ভাঙ্গে হুংকারে!
শুণ্যতা উকি মারে,
চুপিসারে ঘরে!

ডুবন্ত তরী! পাড়ি দিতে তীরে,
সবলেরা চেপে ধরে দুর্বলেরে!
বলতে কি পার তুমি,
নিন্দার স্রোতে যতবার ভাসে ভূমি-
আধমরাটা-ই কেন বারে বারে মরে!
যখন, আধমরাটাও থাকবেনা আর বেঁচে!
কি ভাবছো বসে, কে বাঁচাবে তখন?
তুমিও মরবে ডুবে শুণ্য পাথারে!
শুণ্যতা উকি মারে,
চুপিসারে ঘরে!

২ thoughts on “বলতে কি পার তুমি!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *