মা দিবস” সারা বিশ্বের জন্য হলেও বাঙালীর জন্য নয়

“মা’ শব্দটা সবার সবচেয়ে প্রিয় শব্দ। আমার মতে পৃথিবীর সবচেয়ে মধুর শব্দটি হলো এই “মা” শব্দটি। শব্দটি শোনার সাথে সাথে সবার সবার মনের মধ্যে ভেসে উঠে সবচেয়ে প্রিয় কোমল একটা চেহারা, যিনি সব সময় উদ্দীগ্ন থাকেন তার সন্তানের ভালো মন্দ নিয়ে। সন্তানের কাছে তার মা তার সবচেয়ে প্রিয় ব্যক্তিত্ব।

আজ বিশ্ব মা দিবস। সারা বিশ্বে এই দিনটি পালন করা হয় মা’র প্রতি সম্মান দেখিয়ে, মাকে ভালোবাসার প্রদর্শনের মাধ্যমে।


“মা’ শব্দটা সবার সবচেয়ে প্রিয় শব্দ। আমার মতে পৃথিবীর সবচেয়ে মধুর শব্দটি হলো এই “মা” শব্দটি। শব্দটি শোনার সাথে সাথে সবার সবার মনের মধ্যে ভেসে উঠে সবচেয়ে প্রিয় কোমল একটা চেহারা, যিনি সব সময় উদ্দীগ্ন থাকেন তার সন্তানের ভালো মন্দ নিয়ে। সন্তানের কাছে তার মা তার সবচেয়ে প্রিয় ব্যক্তিত্ব।

আজ বিশ্ব মা দিবস। সারা বিশ্বে এই দিনটি পালন করা হয় মা’র প্রতি সম্মান দেখিয়ে, মাকে ভালোবাসার প্রদর্শনের মাধ্যমে।

পশ্চিমা বিশ্বে এই দিনটি খুব ঘটা করে পালন করা হয়। কেননা, কিছুটা বড় হলেই পশ্চিমা ছেলে মেয়েরা তাদের মা বাবা থেকে আলাদা হয়ে যায় এবং পরে সহজে তাদের সাথে দেখাও হয় না। ফলে তারা মা বাবার সাথে দেখা করার জন্য আজকের মত দিবসগুলো বেছে নেয়। আজকের দিনে তারা তাদের মা বাবার সাথে দেখা করতে যায়। বৃদ্ধাশ্রমগুলো বিভিন্ন ভাবে সাজানো হয়। সন্তানেরা বৃদ্ধাশ্রমে যেয়ে তাদের মা বাবার সাথে দেখা করে, সময় কাটায় তারপর আবার তাদেরকে বৃদ্ধাশ্রমে ফেলে রেখে আসে। এভাবেই তারা মা বাবাকে সম্মান দেখায়, ভালোবাসে!!!!!

আমরা বাঙালী। যত বড়ই হই না কেন মায়ের আঁচল ছেড়ে আমরা কোথাও যেতে চাই না। ছোট বেলায় আমরা যেমন মাকে ভালোবাসি, সম্মান করি বড় হলেও এর কোন পরিবর্তন হয় না। ৩০ বছরের যুবকও মায়ের ধমক খেয়ে মাথা নিছু করে রাখে। মা যতই বৃদ্ধ হোক না কেন, তাকে ফেলে যাওয়ার কথা আমরা চিন্তাও করতে পারি না। মাকে ভালোবাসতে বাঙালীর কোন আলাদা দিনের প্রয়োজন নাই। কেননা, আমরা বাঙালী ৩৬৫ দিনেই মাকে সমান ভাবে ভালোবাসি। বছরের প্রতিটা দিনই আমাদের কাছে এক একটা “মা দিবস”।

মাঝেমাঝে খুব গর্ববোধ করি। বুক ফুলিয়ে বলতে পারি “আমি একজন বাঙালী”

৫ thoughts on “মা দিবস” সারা বিশ্বের জন্য হলেও বাঙালীর জন্য নয়

  1. সহমত। দিনটি আমাদের জন্যে
    সহমত। দিনটি আমাদের জন্যে আলাদা কিছু অবশ্যই হওয়া উচিৎ না। বরং প্রতিটা দিনই আমাদের জন্যে মা’দিবস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *