“নন্দলাল” অবলম্বনে “জাফর ইকবাল”

‘নন্দলাল’ রিমেক করার বিষয়ে দ্বিজেন দাদুর নিকট হইতে গায়েবী মাধ্যমে অনুমতি লইয়াছি । কেউ বিশ্বাস করিলে করেন, না করিলে না করেন । দাদু আমার বিরুদ্ধে ‘তেনার’ আদালতে কেস করিবে না । সো….থ্রি….. টু……. ওয়ান….. জিরো…..GO…

জাফর ইকবাল
রিমেক বাই : কালবৈশাখী ঝড়

জাফর ইকবাল তো একদা একটা করিল ভীষণ পণ-
স্বদেশের তরে যে করেই হোক
রাখিবেই সে জীবন
সকলে বলিল, “আহা হা, কর কী, কর কী জাফর ইকবাল? ”
জাফর বলিল, “বসিয়া বসিয়া রহিব কি চিরকাল?
আমি না করিলে কে করিবে আর
উদ্ধার এই দেশ”
তখন সকলে কহিল, “বাহবা,
বাহবা, বাহবা, বেশ।”

জামাত নিষিদ্ধের মামলা চলে ,
সাক্ষী দিবে কে বা?

‘নন্দলাল’ রিমেক করার বিষয়ে দ্বিজেন দাদুর নিকট হইতে গায়েবী মাধ্যমে অনুমতি লইয়াছি । কেউ বিশ্বাস করিলে করেন, না করিলে না করেন । দাদু আমার বিরুদ্ধে ‘তেনার’ আদালতে কেস করিবে না । সো….থ্রি….. টু……. ওয়ান….. জিরো…..GO…

জাফর ইকবাল
রিমেক বাই : কালবৈশাখী ঝড়

জাফর ইকবাল তো একদা একটা করিল ভীষণ পণ-
স্বদেশের তরে যে করেই হোক
রাখিবেই সে জীবন
সকলে বলিল, “আহা হা, কর কী, কর কী জাফর ইকবাল? ”
জাফর বলিল, “বসিয়া বসিয়া রহিব কি চিরকাল?
আমি না করিলে কে করিবে আর
উদ্ধার এই দেশ”
তখন সকলে কহিল, “বাহবা,
বাহবা, বাহবা, বেশ।”

জামাত নিষিদ্ধের মামলা চলে ,
সাক্ষী দিবে কে বা?
সকলে বলিল, “যাও না জাফর ,
করনা দেশের সেবা।”
জাফর বলিল, “সাক্ষী হইয়া
জীবনটা যদি দিই-
না হয় দিলাম, কিন্তু,
অভাগা দেশের হইবে কী?
বাঁচাটা আমার অতি দরকার,
ভেবে দেখ চারিদিক। ”
তখন সকলে বলিল, “হাঁ হাঁ হাঁ ,
তা বটে, তা বটে, ঠিক। ”

জাফর একদা হঠাৎ একটা সাইট
করিল বাহির-
গালি দিয়া সব জামাত-শিবিরকে বিদ্যা করিল জাহির।
পড়িল ধন্য , দেশের জন্য জাফর
খাটিয়া খুন-
করে যত তার দ্বিগুণ কামায়, বলে
তার দশগুণ।
খাইতে ধরিল লীগের টাকা হয়ে গেল বেসামাল
তখন সকলে কহিল, “বাহবা,
বাহবা, জাফর ইকবাল।”

জাফর যায়না শাহবাগে আর ,
কখন কী ঘটে কি জানি,
বলে না কিছুই ভয়ে, যদি জোটে লীঁগের প্যাদানি !
‘নৌকা’ ফি-সন ডুবিছে ভীষণ, সে
তবু নির্ভয়,
লাইফ জ্যাকেট থাকিলে নাই নদীতে ডোবার ভয় ।
তাই মহা আনন্দে মজিয়া রয়েছে জাফর ইকবাল-
মন্দেরা বলে, “ভ্যালা রে জাফর,
বেঁচে থাক চির কাল”

মোরাল অব দ্য প্যারডি : কথায় নয়, কাজে পরিচয় ।

বি:দ্র: সকল চরিত্র কাল্পনিক । জীবিত কিংবা মৃত কাহারো সাথে মিল পাইলে লেখক দায়ী নয় । সেই সাথে ৫৭ ধারার আওতামুক্ত ।

১৩ thoughts on ““নন্দলাল” অবলম্বনে “জাফর ইকবাল”

  1. ইহা আপনি কি করিলেন!
    কি কহিব,

    ইহা আপনি কি করিলেন!

    কি কহিব, ভাষা খুজিয়া পাইতেছি না। অতীব সুন্দর হইয়াছে।
    প্যারোডি লিখিতে কলমে ধার লাগে, ইহা ষোলোআনা আপনার কলমে বিদ্যমান।

    আমার অভিনন্দন গ্রহন করুন।

  2. এইরে এমনিতেই শোরগোল হচ্ছে যে
    এইরে এমনিতেই শোরগোল হচ্ছে যে ইস্টিশন জাফর স্যাররে পচায়া হিট খাইতে চাইতেছে। ইস্টিশন ছাগু ব্লগ ব্লা ব্লা ব্লা… এর মাঝে আপনি আবার আগুনে ঘৃত ঢাকিলেন? আপনি খুব খ্রাফ। :মানেকি:

  3. শ্রদ্ধেয় জাফর ইকবাল স্যার কে
    শ্রদ্ধেয় জাফর ইকবাল স্যার কে নিয়ে প্যারোডির তীব্র নিন্দা জানালাম। লেখা মোটেও ভালো লাগে নাই।
    জাফর ইকবাল স্যারের প্রতি অনেকে অভিযোগ করেন, কিন্তু জাফর ইকবাক স্যার যা করেন নাই সেটা নিজে করে দেখাতে চাই না। আমাদের সমস্যা হল কি, আমরা আরেকজনের কাধে বন্দুক রেখে খুব গুলি ফোটাতে পারি, কিন্তু নিজে দায়িত্ব নিতে পারি না।

    1. ভাইজান আপনার দৃষ্টিভঙ্গি থেকে
      ভাইজান আপনার দৃষ্টিভঙ্গি থেকে আপনি দ্বিমত করতেই পারেন । তবে কি জানেন মহান ব্যাক্তিগন আসলে কালোত্তীর্ণ হয় । দেখুন না কতবছর পূর্বে ডি এল রায় কবিতা লিখেছিলেন সেটা আজও প্রাসঙ্গিক ! 😀

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *