আত্মদন্ডপ্রাপ্ত কার্ট কোবেইনঃ শুন্যে কতিপয় অপলাপ (Kurt Cobain’s “suicide note”)

শৈশবের হে ‘মানবিক’বন্ধু,

পোড় খাওয়া পাগলের মুখ দিয়ে নিঃসৃত যে কোন বাক্যই বীর্যহীন ও বালখিল্যতায় ভরপুর হবে হয়তো।নোটটা তবু সহজ করব, স্থির হয়ে দাঁড়িয়ে থাকা ইউক্যালিপটাসের মতই।

আমার সেই পরিচয়ের আদি থেকে বহু সময় ধরে পাংক রক ওয়ান জিরো ওয়ানের নৈরাজ্যবাদের কাছ থেকে যে সত্যপাঠ পেয়ে আসছি তা স্বাধীনতার বিপ্রতীপে লৌকিকতা ও শহুরে থাবাকে আরো পরিচিত করে তুলেছে আমার চোখে।অনেকটা সময় ধরেই সুর খাওয়া কিংবা খাওয়ানোতে আর আসক্ত নই;বুদ হয়ে থাকা হয় না পড়ায় অথবা লেখায়।‘শব্দ’ বড্ড অপরাধী করে দেয়।


শৈশবের হে ‘মানবিক’বন্ধু,

পোড় খাওয়া পাগলের মুখ দিয়ে নিঃসৃত যে কোন বাক্যই বীর্যহীন ও বালখিল্যতায় ভরপুর হবে হয়তো।নোটটা তবু সহজ করব, স্থির হয়ে দাঁড়িয়ে থাকা ইউক্যালিপটাসের মতই।

আমার সেই পরিচয়ের আদি থেকে বহু সময় ধরে পাংক রক ওয়ান জিরো ওয়ানের নৈরাজ্যবাদের কাছ থেকে যে সত্যপাঠ পেয়ে আসছি তা স্বাধীনতার বিপ্রতীপে লৌকিকতা ও শহুরে থাবাকে আরো পরিচিত করে তুলেছে আমার চোখে।অনেকটা সময় ধরেই সুর খাওয়া কিংবা খাওয়ানোতে আর আসক্ত নই;বুদ হয়ে থাকা হয় না পড়ায় অথবা লেখায়।‘শব্দ’ বড্ড অপরাধী করে দেয়।

পর্দার পেছনে চলে যাই, বাতিগুলো নিভে যায়, অতৃপ্ত শ্রোতাদের চিৎকার শুনতে পেয়েও নিজের মধ্যে ‘ফ্রেডি মার্কারিকে’ খুঁজে পাইনা যে কিনা সংগীতের সাথে সংগম করত, সুরের কামে ডুব দিত,শ্রোতাদের কাছ থেকে অর্ঘ্য পেত বলেই আমার ঈর্ষার কারণ হয়ে দাড়িয়েছিল।না, আমি তোমাদের ফাঁকি দেব না, কাউকেই না।সেটা তোমার- আমার কারো জন্যই ভাল নয়। বরং মানুষের সাথে প্রতারণা করা, হেসে উড়িয়ে দেওয়াটা বাজে ধরনের অপরাধ বলে মনে হয় ইদানিং। স্টেজ ছাড়ার সময় কেবলই ভাবতে থাকি সব ঘড়িতেই কেন টাইমকার্ড নেই। সাধ্যমত নাটক করে যাওয়ার চেষ্টা করেছি (হে অন্ধ ঈশ্বর, বিশ্বাস কর, আমি করেছি যদিও তোমার অন্ধত্বের কল্যাণে তা যথেষ্ট নয়)। এটা মনে করতেই খুব ভাল লাগে যে আমি এবং আমরা অনেকগুলো মানুষের মাথায় ‘বিষ’ ঢুকিয়েছি।এটা অবশ্যই সে অহংবোধীদের মধ্যে যে কেউ যারা কেবল দাঁত গেলে দাতের মর্যাদা বোঝে। আমি প্রতিক্রিয়া নামের গোলমেলে বস্তুটাকে হয়তো একটু বেশিই নিজের মধ্যে ধরে রাখি।ধাতস্থ শৈশবের মত উদ্যম ফিরে পেতে অবশ রক্ত- মাংসের থাল হতেই হবে আমাকে।

গত তিনটি ট্যুরে কাছের লোকগুলো আমাকে সাহস জুগিয়েছে, আমাদের গানকে ভালবেসে কিন্তু নৈরাশ্য, দোষ কিংবা সকলের প্রতি সহানুভূতি আমার ভেতর বাসা বেঁধেছে, স্থায়ীভাবে। আমাদের সবার ভেতরেই ভাল’র বাস, হয়তোবা আমি মানুষকে খুব বেশি ভালবাসি, এজন্যই বোধ হয় আমার কষ্টটুকু তীব্রতর হয়। সেই ভোতা দুঃখ, সংবেদন,প্রেরণার অনুৎপাদন,মীন, যিশু।কেন মেমব্রেনে তুলে রাখছ না? জানি না।

আমার ভালবাসার ‘অপ্সরী’ মমতা ঢেলে স্বপ্নের চাষ করে আর আমার মেয়ে আমাকে সবসময়ই মনে করিয়ে দেয় আমি কি হতে চেয়েছিলাম।ভালবাসা আর আনন্দে সে সবাইকেই চুমু খায় প্রত্যেকেই ভাল এবং তার কোন ক্ষতি করবে না বলে।আমি সে সময় ভয় পেয়ে যাই, আমার শ্বাস বন্ধ হয়ে যায়। আমি কখনই ভাবতে পারি না ফ্রান্সেস আমার মতই নিঃস্ব, আত্মবিনাশী, মৃত রকার হয়ে যাচ্ছে দিন দিন।

আমি অভিনয় করেছি,রঙ্গমঞ্চে;ভালভাবে,বেশ ভালভাবেই করেছি।মাঝখানে সাত বছর বয়সে আমি ক্রুদ্ধ হয়ে উঠি, মানুষের ওপর। সহানুভূতি দিয়ে ঘায়েল করার প্রচেষ্টা মানুষের মধ্যে খুব জনপ্রিয় হয়ে উঠছিল। সব ভালবাসা বা আর্তহাহাকার কেন আমি একাই করব?

জ্বলন্ত অগ্নির একরাশ স্ফুলিঙ্গ,শাব্দিক জঞ্জালে আমার উদগীরনোদ্যম,বিগত বছরগুলোতে তোমার উৎকণ্ঠা- সব কিছুর পরেও তোমাকে ধন্যবাদ।আমি খেয়ালি আর বিষণ্ণ এক বালক। আমার আর কিছুই দেবার নেই,হারাবারও নেই। তাই,বিবর্ণ হওয়ার আগেই পুড়ে নিঃশেষ হওয়াটাই ভাল।

শান্তি, ভালবাসা, মমতা

কার্ট কোবেইন।

ফ্রান্সেস এবং কোর্টনি,আমি তোমাদের সাথেই থাকব।

কোর্টনি,চালিয়ে যাও, ফ্রান্সেসের জন্য হলেও।

আরো সুন্দর কোন সময়ের জন্য, আমাকে ছাড়া।

ভালবাসি। ভালবাসি।

২ thoughts on “আত্মদন্ডপ্রাপ্ত কার্ট কোবেইনঃ শুন্যে কতিপয় অপলাপ (Kurt Cobain’s “suicide note”)

  1. তাই,বিবর্ণ হওয়ার আগেই পুড়ে
    তাই,বিবর্ণ হওয়ার আগেই পুড়ে নিঃশেষ হওয়াটাই ভাল।

    “It’s better to be burned out than to faded away”

    –Kurt Cobain

    কার্ট কোবাইনের এমন মৃত্যু খুবই পরিতাপের বিষয়।

    আসলে কার্ট অনেক ভাল গান আমাদের উপহার দিয়েছেন। অনেক প্রতিভাবান ছিলেন। ছিলেন খ্যাতির মধ্যগগণে, ছিল কোরটনি লাভের মত সুন্দরী স্ত্রী, ছিল কিউট একটা বাচ্চা।

    কিন্তু, দুঃখের ব্যাপার হল, তিনি ছিলেন মানসিকভাবে অসুস্থ। তাই, এভাবে আত্মহত্যা করেছেন।

    তিনি বেচেছিলেন নিজের জন্য; পৃথিবীর মানুষের জন্য, ভক্তদের জন্য তিনি বেঁচে ছিলেন না। তাই, তার আত্মকেদ্রিকতাই তাকে এমন পরিণতির দিকে নিয়ে গেছে।

    যারা শুধু নিজেদের জন্য বাঁচে তাদের পরিণতি তো এমন হওয়াই স্বাভাবিক!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *