পৃথিবীর বিষাক্ত ৫ টি প্রানী

আজ ইস্টিশনের টিকেট পাইছি । চিন্তা করলাম ইস্টিশনের সকল যাত্রীদের জন্য বিষে বিষান্বিত একটি পোস্ট নিয়ে হাজির হয়ে সবার সাথে পরিচিত হই।
যেই চিন্তা সেই কাজ , আজ আপনাদেরকে পরিচয় করে দিবো পৃথিবীর সবচেয়ে বিষাক্ত ৫ টি প্রানীর সাথে সাথে। আসুন একে একে এই ভয়ংকর প্রানীদের সাথে পরিচয় হই…… !!



১) Box Jellyfish(বক্স জেলিফিস)ঃ


আজ ইস্টিশনের টিকেট পাইছি । চিন্তা করলাম ইস্টিশনের সকল যাত্রীদের জন্য বিষে বিষান্বিত একটি পোস্ট নিয়ে হাজির হয়ে সবার সাথে পরিচিত হই।
যেই চিন্তা সেই কাজ , আজ আপনাদেরকে পরিচয় করে দিবো পৃথিবীর সবচেয়ে বিষাক্ত ৫ টি প্রানীর সাথে সাথে। আসুন একে একে এই ভয়ংকর প্রানীদের সাথে পরিচয় হই…… !!



১) Box Jellyfish(বক্স জেলিফিস)ঃ

ধারনা করা হয়,পৃথিবীর সবচেয়ে বিশাক্ত প্রানী হচ্ছে বক্স জেলীফিশ। ১৯৫৪ সালে এই বক্স জেলীফিশ এর আক্রমণে রেকর্ড ৫,৫৬৭ মৃত্যু হয়েছে। বিষাক্ত প্রানিদের মধ্যে একে বেশী বিনাশকারী হিসেবে ধরা হয়। এটি আক্রমন করার সাথে সাথে ৩০ সেকেন্ডের মধ্যে শরীলের হার্ট, নার্ভ সিস্টেম, ও শরীলের কোষকে অকেজু করে মৃত্যু বরন করায়!! এই প্রানী আক্রমন করলে বাঁচার সম্ভবনা ০.১ %!!! এই বক্স জেলিফিস এশিয়া ও অস্টেলিয়ায় পাওয়া যায়।



২) King Cobra (কিং কোবরা)ঃ

কিং কোবরা পৃথিবীর সবচেয়ে লম্বা (১৮.৫ ফিট) বিষাক্ত প্রাণী। এই কিং কোবরা সধারনত অন্যান্য বিষাক্ত সাপ খেয়ে জীবনধারন করে থাকে। এই সাপের একটি কামড়ে মানুষের মৃত্যু হতে পারে। এই সাপের কারনে পৃথিবীর স্থলভাগের সবচেয়ে বড় প্রানী হাতিকে ৩ ঘন্টার মধ্যে মৃত্যু সংঘটিত করাতে পারে। এটি আমাদের দক্ষিন এশিয়ার গভীর জঙ্গলে বসবাস করে।



৩) Blue-Ringed Octopus (নীল আংটি অক্টোপাস)ঃ

এই বিষাক্ত প্রানীটি খুবই ছোট। আকারে একটি গলফ বলের সমান হবে!! একটা প্রবাদ আছে না, “ছোট মরিচে জ্বাল বেশী” এটার ক্ষেত্রেও সেটা প্রযোজ্য! কেননা নীল আংটি অক্টোপাসএর মধ্যে যে পরিমান বিষ থাকে তা ১ মিনিটে ২৬ টি পূর্ণ বয়স্ক মানুষকে মারতে সক্ষম! এটি প্যাসিফিক সাগর, জাপান ও অস্টেলিয়াতে পাওয়া যায়।



৪) Stone fish (পাথুরে মাছ) ঃ

এটি বিশ্ব সুন্দরী মাছ প্রতিযোগিতায় প্রথম না হলেও বিশ্বের সবচেয়ে বিষাক্ত মাছের মধ্যে প্রথম। পাথর মনে করে এই মাছের উপর একবার পা ফেললে শেষ! কারন পা ফেলার সাথে সাথে ইলেকট্রিক শকডের মত সাথে সাথে প্যারালাইসিস ও শরীলের সব টিস্যুকে মেরে ফেলবে। আসার কথা এটি বাংলাদেশে নাই, সো এই আজব প্রাণী নিয়ে টেনশন না করলেও চলবে!



৫) বিষাক্ত বান মারা ব্যাঙ ঃ

দক্ষিন আফ্রিকার রেইন ফরেস্টের মধ্যে দিয়ে হাটতে গেলে এই বিষাক্ত রূপবতী ব্যাঙ চোখে পড়বে। এই ব্যাঙকে পৃথিবীর বিষাক্ত প্রাণী বলে অনেক গবেষক মেনে নেন। এটি ১০ সেকেন্ডে যে পরিমান বিষ নিঃসরণ করে তাতে সেই বিষ দিয়ে ১০ টি মানুষ অথবা ২০,০০০ ইঁদুরকে মারতে সক্ষম!!! এই না বলে রূপেগুনে অনন্যা!



এই পোস্টটি লিখছি আর ভাবছি ১৯৭১ এ আমাদের মা বোন দের উপর পাকিস্তানি ও তার দৌসররা যে নির্যাতন করছে, তা এই বিষাক্ত প্রানিগুলোর বিষের চেয়েও নির্মম ছিল।
আমার খুব ইচ্ছে হয়, ১৯৭১ এর দৌসরদের ধইরা ধইরা এই বিষাক্ত প্রানীদিয়ে কামড়াইয়া মারতে!!!
…………মেহেদি৪৪

১৪ thoughts on “পৃথিবীর বিষাক্ত ৫ টি প্রানী

  1. ইস্টিশনে স্বাগতম। চারিদিকে
    ইস্টিশনে স্বাগতম। :গোলাপ: চারিদিকে শুধু রাজনৈতিক কটকট্টি পড়তে পড়তে বোর হয়ে গিয়েছিলাম। আপনার লেখাতে ভিন্ন ফ্লেভার পেলাম আর কিছু জিনিস জেনেও নিলাম। আল্লাহ বাচাইছে যে এইগুলা আমাদের দেশে নাই আর সাগরে ত নামিনা তাই সাগরেরগুলা নিয়া চিন্তা নাই :নৃত্য:

    বানানের দিকে একটু খেয়াল কইরেন। আমার নিজেরও অনেক বানান ভুল হয় তবে আপনার কিছু কিছু বানান বেশ দৃষ্টিকটুরকমভাবে ভুল হয়েছে। যেমন “শরীল”,”জাল”

    1. আপনার পোষ্ট ভালো লেগেছে জেনে
      আপনার পোষ্ট ভালো লেগেছে জেনে ভালো লাগলো………

      ভাই কোবরা কিন্তু আমাদের দেশের গভীর অরন্যতে বাস করে। বনে গেলে সাবধান!! :ভেংচি:

      ভুল ধরিয়ে দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ।

  2. ভিন্ন ধরণের পোস্ট পড়ার সুযোগ
    :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:
    ভিন্ন ধরণের পোস্ট পড়ার সুযোগ করে দেওয়ার জন্য জন্যবাদ।

  3. আপনাকে ইষ্টিশনে স্বাগতম।
    আপনাকে ইষ্টিশনে স্বাগতম। :গোলাপ: বানানের দিকে সিরিয়াসলি নজর দিন। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়য়ের একজন ছাত্রের কাছ থেকে এমন বানান ভুল সত্যিই দুঃখজনক।

    শরিলের, অকেজু, বরন, প্রানী, ছোট মরিচে জাল (!) বেশী, ইলেকট্রিক সকের (!), ১৯৭১ এর দৌসরদের (!), রেন (!) ফরেস্টের

    আপনার প্রথম পোস্টেই এতগুলো ভুল ধরলাম দেখে আশা করি কিছু মনে করবেন না। আপনার ভালর জন্যই করলাম। হ্যাপি ব্লগিং ইন ইষ্টিশন।

    1. ধন্যবাদ শঙ্খচিল ডানা
      ধন্যবাদ শঙ্খচিল ডানা ভাই,

      ইনশাল্লাহ নেক্সট টাইম বানানের দিকে সিরিয়াসলি নজর দিব। ।

  4. ব্যতিক্রম এবং তথ্য বহুল ব্লগ
    ব্যতিক্রম এবং তথ্য বহুল ব্লগ পোস্টের জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ। এরূপ আরও পোস্টের অপেক্ষায় রইলাম…… নতুন ব্লগার হিসেবে তাকে স্বাগতম জানানোর কারণে ব্লগার বন্ধু অধমকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ না জানিয়ে পারছি না। আসুন এভাবেই আমরা আরও নতুন বন্ধুকে আমন্ত্রণ জানাই চলার পথে বিভিন্ন জায়গায় ইস্টিশন ব্লগ পড়ার আহবান জানাই। আমি নিজেও কাজটা করে থাকি।

  5. আবারও মেহেদী ৪৪ কে ধন্যবাদ
    আবারও মেহেদী ৪৪ কে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আমি যা বিশ্বাস করি তাই বলি। কাউকে তেল দেয়ার জন্য কোন কিছু বলার মত রক্ত আমার শরীরে নাই। চালিয়ে জান………… আমি আছি আপনার সাথে সব সময়……..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *