বৈশাখীর প্রেমে

একদা বদলে গেল আমার ছেলেবেলা,
দিনগুলো কাটতে থাকল বড্ড একেলা।
১৬ বছর ঘুরে আমাতে এল বসন্ত,
পথ চলতে চলতে দিলাম হসন্ত।
ছিলাম ভাল নিয়ে আমার মধুর শৈশব,
মন মাঝারে এল বাসন্তী পাখির কলরব।
দুষ্টুমিতে মেতে থাকতাম বন্ধুদেরই মাঝে,
এখন আমার সময়গুলো ব্যস্ত অন্য কাজে।
চাঁদ ছিল নিতান্ত পৃথিবীর একমাত্র উপগ্রহ,
আজ সে আমায় জোছনা বিলায়; করে অনুগ্রহ।



একদা বদলে গেল আমার ছেলেবেলা,
দিনগুলো কাটতে থাকল বড্ড একেলা।
১৬ বছর ঘুরে আমাতে এল বসন্ত,
পথ চলতে চলতে দিলাম হসন্ত।
ছিলাম ভাল নিয়ে আমার মধুর শৈশব,
মন মাঝারে এল বাসন্তী পাখির কলরব।
দুষ্টুমিতে মেতে থাকতাম বন্ধুদেরই মাঝে,
এখন আমার সময়গুলো ব্যস্ত অন্য কাজে।
চাঁদ ছিল নিতান্ত পৃথিবীর একমাত্র উপগ্রহ,
আজ সে আমায় জোছনা বিলায়; করে অনুগ্রহ।
এই সেদিনের শিশু আজ টগবগে তরুণ,
রাত্রি শেষে পূর্বাকাশে জাগিছে অরুণ।
চারিদিকে শুনি জাগরণী গানের আহবান,
কল্পনার জগতে আমি করি নতুন ভান।
লাল পেড়ে সফেদ বসনে মন পড়ে বাঁধা,
কৃষ্ণ হয়ে খুঁজে নিই আমার প্রেমের রাধা।
পান্তা-ইলিশ জিভে এনে দেয় জল,
অন্তরে তখন ঝড় উঠেছে প্রবল।
হাঁটু মুড়ে বলি, “এসো হে বৈশাখী,
আঁচল উড়িয়ে আজ এসো।
আমি না হয় বেশি বাসলাম
তুমি একটু কম ভালোবেসো।”

৭ thoughts on “বৈশাখীর প্রেমে

Leave a Reply to মাজনু শাহ Cancel reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *