দুপুরের গল্প

দু হাত বাড়িয়ে দেই , কেউ নেই ।
খাঁ খা দুপুর ।
রাজপথে , অলি গলিতে ,
বাকুশাহ মার্কেটে সস্তার হোটেলে ,
কোন চেনা মুখ !
অবিরাম তৃষ্ণা কলকাঠি নাড়ে,
দু হাত বাড়িয়ে দেই , দ্রোহ অথবা প্রেমের মশাল জ্বেলে ,
অগোচরে অগোচরে ।

কেউ নেই , যার একতিল অবসর
আমায় স্বান্তনা দেবে ।



দু হাত বাড়িয়ে দেই , কেউ নেই ।
খাঁ খা দুপুর ।
রাজপথে , অলি গলিতে ,
বাকুশাহ মার্কেটে সস্তার হোটেলে ,
কোন চেনা মুখ !
অবিরাম তৃষ্ণা কলকাঠি নাড়ে,
দু হাত বাড়িয়ে দেই , দ্রোহ অথবা প্রেমের মশাল জ্বেলে ,
অগোচরে অগোচরে ।

কেউ নেই , যার একতিল অবসর
আমায় স্বান্তনা দেবে ।
পৃথিবীর ছুটে চলা ছুটে চলা
থিয়েটারের পার্টের ফাঁকে ,
আমায় মুচকি হেসে বলবে ,
এইতো আছি ।

সেসব পুরনো কথা ।
দু হাত বাড়িয় দেই তবু সেই রাতে-
আধা চাঁদের বাড়োয়ারি সুখে ।

নস্টালজিক হয়ে পড়ে খাঁখাঁ দুপুর ।
আমার মত সেও হয়তো ,
দু হাত বাড়িয়ে কাউকে খোঁজে ।
কোন এক স্বান্তনার গল্প বলিয়ে ,
মিষ্টি মেদুর প্রহর ।

শশ্মানের হাড়গোড় খুলির নির্জন ফেয়ারনেস ক্রিম মেখে ,
আমি ও দুপুর –
খাঁজকাটা খাঁজকাটা মেঘের ফটোশেসনে মুগ্ধ ,
দুই হাত পকেটে এনে রাখি ।
কাউকে পাবার মত আজ,
আমার আর কেউ নেই ।

১ thought on “দুপুরের গল্প

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *