আমার সোনার বাংলা,আমি তোমায় ভালবাসি।

প্রজন্ম চত্ত্বরের আন্দোলন এবং আজ জামাত শিবিরের তাণ্ডব আমাকে আবার মানুষ করে দিয়েছে। আমি এই কয়েক ২৫দিনে ২৫ বছরের সমান সমৃদ্ধ হয়েছি।প্রতিদিন প্রতিটা খবর মনোযোগ দিয়ে পড়েছি। প্রতিটা নেতা,উপনেতা,পাতি নেতা,ভেকধারী নেতা,ছদ্ম নেতা সবার কথাই মনোযোগ দিয়ে শুনেছি।প্রতিটা নিউজের দিকে নজর রেখেছি চাতকের মতো। দিয়াশলাইয়ের প্রতিটা কাঠিতে নজর দিয়েছি। প্রতিটা বারুদ জ্বলে উঠার জন্য অপেক্ষা করেছি। কিছুই আমার চোখ এড়ায়নি এই কয়দিনে।


প্রজন্ম চত্ত্বরের আন্দোলন এবং আজ জামাত শিবিরের তাণ্ডব আমাকে আবার মানুষ করে দিয়েছে। আমি এই কয়েক ২৫দিনে ২৫ বছরের সমান সমৃদ্ধ হয়েছি।প্রতিদিন প্রতিটা খবর মনোযোগ দিয়ে পড়েছি। প্রতিটা নেতা,উপনেতা,পাতি নেতা,ভেকধারী নেতা,ছদ্ম নেতা সবার কথাই মনোযোগ দিয়ে শুনেছি।প্রতিটা নিউজের দিকে নজর রেখেছি চাতকের মতো। দিয়াশলাইয়ের প্রতিটা কাঠিতে নজর দিয়েছি। প্রতিটা বারুদ জ্বলে উঠার জন্য অপেক্ষা করেছি। কিছুই আমার চোখ এড়ায়নি এই কয়দিনে।

এই ২৫ দিনে অনুভব করেছি। দেশকে ভালবাস কেবল মুখ দিয়ে বললেই হয় না অন্তর দিয়ে অনুভব করতে হয়। অশান্ত দেশ দেখে আমি শান্তিতে ঘুমাতে পারিনি। এবং বুঝতে পেরেছি আমার মতো অনেকেই দুশ্চিন্তায় নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছেন। প্রতিটা চোখের জল আমাকে ছুয়ে গেছে নিভৃতে। আমিও কেঁদেছি সবার সাথে। অসহায়ত্ব আমাকেও কুড়ে কুড়ে খেয়েছে।

কেন যেন বার বার মনে হয়েছিল একাত্তুর আমার দরজায় কড়া নাড়ছে। সেই হায়েনা,সেই শকুন আমার রাষ্ট্র ,পতাকা ,শহীদ মিনার গ্রাস করতে ব্যাস্ত।

আমি ভাবতাম এই সময়ে দেশের কথা চিন্তা করে ঘুমাতে না পারার লোক কি আছে? গভীর ঘুম থেকে দুঃস্বপ্ন দেখে জেগে দেশের অবস্থার কথা ভাবনার মানুষ কি আছে? নিরবে দেশের জন্য চোখের জল ফেলা মত মন কি মানুষের আছে? এই ২৫ দিনে বুঝতে পারলাম এই দেশটাকে ভালবাসার মতো মানুষ এখনো আছে। এই দেশের জন্য প্রাণ দেবার মতো মানুষ এখনো অনেক। তাই এখন আর একা লাগে না। এখন আর ত্রাসে ভয় পাইনা। এখন আর অন্ধকার রাত আমাকে ভীত করতে পারেনা। আমি জানি,নিশ্চিত জানি সকাল সামনেই। আমরা নতুন সূর্যের আলোয় প্রভাত দেখতে পাবই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *