একটি রিলেশনশীপ স্ট্যাটাসের পেছনের গল্প

কযেক বছর আগে হঠাৎ একটা মেয়ের প্রোফাইলে দেখি ইন আ রিলেশনশীপ দেয়া আরেকটা মেয়ের সাথে। [তখন এই ট্রেন্ডটা নতুন চালু হইছে। এখন যেমন এইরকমটা প্রায়ই দেখা যায় তখন সেইরাম কিছু ছিলো না। অন্ততঃ আমি দেখি নাই। ঐটাই প্রথম দেখছিলাম।] তো আমি তো পুরা টাসকি। বাংলাদেশে লেসবো?! কস কি মমিন? তার উপর সেইটা এইভাবে প্রোফাইলে লেইখা জানান দিতেছে সবাইরে। হেভি সাহস তো মাইয়াদ্বয়ের। পরে নিজের মাথা নিজে চাটি মাইরা কইলাম ধুর কি সব ভাবতেছি। আসল ঘটনা হয়তো অন্যকিছু। হোয়াই নট আই আস্ক হার?


কযেক বছর আগে হঠাৎ একটা মেয়ের প্রোফাইলে দেখি ইন আ রিলেশনশীপ দেয়া আরেকটা মেয়ের সাথে। [তখন এই ট্রেন্ডটা নতুন চালু হইছে। এখন যেমন এইরকমটা প্রায়ই দেখা যায় তখন সেইরাম কিছু ছিলো না। অন্ততঃ আমি দেখি নাই। ঐটাই প্রথম দেখছিলাম।] তো আমি তো পুরা টাসকি। বাংলাদেশে লেসবো?! কস কি মমিন? তার উপর সেইটা এইভাবে প্রোফাইলে লেইখা জানান দিতেছে সবাইরে। হেভি সাহস তো মাইয়াদ্বয়ের। পরে নিজের মাথা নিজে চাটি মাইরা কইলাম ধুর কি সব ভাবতেছি। আসল ঘটনা হয়তো অন্যকিছু। হোয়াই নট আই আস্ক হার?

ইনবক্স করলাম। -”ইয়ে আপু কিচু মনে করবেন না। ঐ মেয়ের সাথে আপনার রিলেশনশীপ ব্যাপারটা একটু উইয়ার্ড লাগছে আমার কাছে।” সেই মেয়ে বিশাল ব্যস্ত। রিপ্লাই দিলো ঘন্টাখানেক পর। “আরে ভাই বইলেন না সবাই খালি এইটা জিগায়। কি আর কমু।” বল্লামঃ

: ঘটনা আসলে কি?
: আরে পোলারা আমাদের ভাত দেয় না। তাই দুজনই দুজনরে রিলেশনশীপ দিছি।
: ভাত দেয় না মানে কি? আপনাদের বাসায় কি ভাত রান্না হয় না?
: আরে মিয়া ভাত দেয় না মানে বেইল দেয় না। পাত্তা দেয় না।
: ওহ সরি, আমি বুঝিনি।
: হুম, এই জন্য মনের দুঃখে দুই বান্ধবী দুইজনকে রিলেশনশীপ দিছি।
: আইচ।ছা এই তাহলে ঘটনা। আমি তো কি না কি ভাবছিলাম।
: আপনি কি ভাবছিলেন?
: না তেমন কিছু না। তা এই রিলেশনশীপ স্ট্যাটাসের দেয়ার পর কি কোন ফল হইসে? মানে ছেলেরা কি এখন ভাত টাত দেয়?
: আরে ধুর এখন তো আমরাই পোলাগো বেইল দেই না। আমাদের এখন পোলা লাগে না। আমরা দুইজন খুবই সুখী।
: পোলা লাগে না? দুই বান্ধবী সুখী? ছি ছি এগুলো কি বলতেছেন?
: আরে ধুর কুচিন্তা করতেছেন কেন? বল্লাম যে ছেলেদের আশায় আমরা আর বইসা নাই। আমরা দুইজনই দুজনের জন্য এনাফ।
: খাইছেয়ামারে। আচ্ছা ঠিকাছে আপু আপনার সাথে কথা বলে অনেক কিছু জানতে পারলাম। ভালো থাকবেন।
: অনেক কিছু জানতে পারলেন মানে?
: না মানে বলতেছিলাম যে ছেলেদের ছাড়াও মেয়েরা যে নিজেদের নিয়ে থাকতে পারতেছে, সাবলম্বী হইতেছে, এইটা জানতে পারলাম।
: ওহ, আচ্ছা।
: নারীদের তো সাবলম্বী হওয়া খুবই দরকার এই পুরুষ শাসিত সমাজে।
: হুম। ঠিকই বলছেন। কিন্তু আপনি কি কোন কু ইংগিত দিতেছেন নাকি?
: না না ছি ছি আপু কি বলেন। কু ইংগিত দিবো কেন?
: আচ্ছা ঠিকাছে।
: ওকে আপু ভালো থাকবেন। আমি আসি? শুভ রাত্রি।
: ওকে যান কিন্তু এত আপু আপু করতেছেন কেন? আমি তো আপনার ছোট। নাম ধরে তুমি করে বলতে পারেন।
: আচ্ছা ঠিকাছে। দেখি আপু। ভালো থাকবেন। শুভ রাত্রি।
: শুভ রাত্রি।

আমি হাফ ছাইড়া বাচঁলাম। এরপর তার সাথে আর কখনো কথা হয় নাই। তার পরের কয়েকমাসে দেখলাম অনেক মেয়েই তাদের বান্ধবীদের ট্যাগ করে রিলেশনশীপ স্ট্যাটাস দিতেছে এবং বুঝলাম ইহা নিশ্চয়ই আগামীর ট্রেডিশনে পরিনত হবে। এবং আমার ধারনা খুব একটা মিথ্যা হয় নাই।

৬ thoughts on “একটি রিলেশনশীপ স্ট্যাটাসের পেছনের গল্প

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *