অকথ্য কথন

তোমাকে দিয়া আমাদের যেটুকু হইবার ছিল তাহা হইয়াছে। তোমারও যে কম হইয়াছে তাও বলিতেছি না, আমাদেরকে দিয়াছ যতটুকু তার অধিক নিজে নিয়েছো। আজ তোমার নেওয়ার পাল্লা ভারী হইতে হইতে এমন স্থানে আসিয়া দাঁড়াইয়াছে যেখান হইতে নিচের আমাদেরকে আর তুমি চিনিতে পারিতেছিলে না, তাই তোমাকে নামাতেই হইলো। আজ হইতে তুমি কেউ নও, আজ হইতে আমরাই সব। আজ হইতে আমরাই আমাদের টা বুঝিয়া লইব, তুমি আজ শুধু তোমার হিসাবটা বুঝাইয়া দিয়া যাও। কোথা হইতে কত পাইয়াছ, কোথা হইতে কত খাইয়াছ, কত খাইয়াছ আর কত বিলাইয়াছ তাহার হিসাব আজ দিতে হইবেক। তুমি যা দখল করিয়াছিলে তাহা আজ পুনরুদ্ধার করা হইলো, আজ হইতে আমরা খাইব তুমি চাহিয়া দেখিবে যেমনটি ইতোপূর্বে আমরা দেখিয়াছি। আমাদেরকে অভুক্ত রাখিবার সাজা তোমাকে পাইতেই হইবে, হাজার হাজার মানুষের শক্তিকে তুমি একাই গলাধকরন করিবে তাহা হইবে কেন? আজ যেটুকু অবশিষ্ট আছে তাহা ছাড়িয়া দাও, আমরাও একটু খাইয়া পড়িয়া বাঁচি!

তোমাকে সরানো হইলো বলিয়া দুঃখ পাইতেছ? ভাবিয়া দেখো, এভাবেই কতজনকে গলাধাক্কা দিয়া সরাইয়া দিয়াছ তুমি, তোমার স্বার্থে আঘাত দিয়াছে বলিয়া কতজনের কণ্ঠ রুদ্ধ করিয়াছিলে তাহা ভুলিয়া গেলে? সময় সবসময় তোমার দখলে থাকিবে এমনটি ভাবিয়াছিলে বলেই আজ তোমাকে অবাঞ্চিত ঘোষণা করা হইলো।

এবার তুমি আসিতে পারো।

৬ thoughts on “অকথ্য কথন

  1. যারা দখল নিয়াছে তার টিকবে তো?
    যারা দখল নিয়াছে তার টিকবে তো? দুদিন পর হালুয়া রুটির ভাগাভাগি নিয়ে নিজেরাই না খুনোখুনি হয়!

    1. তাঁরা হালুয়া রুটি খাইয়া
      তাঁরা হালুয়া রুটি খাইয়া যাইবার পর যাহা টিকিবে তাহার জন্য আবার কেউ না কেউ তো তৈয়ার হইয়া রহিয়াছে।

      চিন্তার কোন কারন নাই!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *