কুকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদ

কোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাই

৩০ thoughts on “কুকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদান নাইকোনো উপাদ

  1. এরা আওয়ামীলীগে প্রবেশ করে
    এরা আওয়ামীলীগে প্রবেশ করে জামায়াতের এজেন্ট হিসাবে যে কাজ করবেনা সেই গ্যারান্টি কে দেবে? আর আদর্শগতভাবে কোন জামায়াত কর্মী বা নেতা বিএনপি’তে আসলে বিশ্বাসযোগ্যতা থাকে। কিন্তু আওয়ামীলীগ বা বাম দলে এদের আগমন কতটুকু বিশ্বাস করা যায়?

    1. আপনার কথা শতভাগ ঠিক আছে।
      আপনার কথা শতভাগ ঠিক আছে। কিন্তু সত্যিকার অর্থেই যদি কেউ সত্য অনুধাবন করে আওয়ামী লীগে আসতে চায় তখন তাকে সুযোগ দেওয়া উচিত। তবে খুব ভালোভাবে যাচাই করে দেখতে হবে যিনি আওয়ামী লীগে আসছেন তিনি কি আসলেই আওয়ামী লীগের আদর্শে উদ্ভুদ্ধ হয়ে আসছেন না কি জামায়াতের গুপ্তচরবৃত্তি করতে আসছেন। আর জামাত তো ডান দলসমূহের জন্য কলঙ্কস্বরুপ। অনেক ডান দল আছে যারা কখনোই ধর্ম বেচে খায় না।

  2. এ দেশের রাজনীতির সংকট টা কি
    এ দেশের রাজনীতির সংকট টা কি জানেন – এখানে আদর্শের রাজনীতির কোন চর্চা হয়না । হয় জিয়ার সৈনিক অথবা মুজিব সেনার রাজনীতি – দলীয় আদর্শ, উদ্দেশ্য,লক্ষ্য থাকে নির্বাসনে । আমি হলফ করে বলতে পারি এই দুই দলের ম্যাক্সিমাম নেতা নিজ দলের গঠনতন্ত্র ‘র কাভার পেজের রং কি বলতে পারবেনা । কর্মীদের কথা বলাই বাহুল্য ।

    একজন মানুষ দীর্ঘদিন একটা সাম্প্রদায়িক জঙ্গি দলের রাজনীতি করে এসে যখন হঠাৎ করে আওয়ামীলীগ নেতা বনে যান । তখন তা কেবল দুঃখজনক নয় -লীগ এবং ওই অঞ্চলের মানুষের জন্য আশংকাজনক । আরে ভাই আমি বলছিনা কেউ সংশোধিত হবার সুযোগ পাবেনা – কিন্তু এমন একজন মানুষকে দলে ভেড়ানোর আগে একটা দলের কোন ধরণের পূর্বশর্ত থাকবেনা ? অন্ততপক্ষে তাকে ২ বছর পর্যবেক্ষণে রাখা উচিৎ নয় কি ?

    আহ্লাদিত হবার আগে কিছুটা আক্কেল দিয়ে বিচার করতে হবে আমাদের । আপনাকে ধন্যবাদ এরকম একটা নিউজ জানানোর সুযোগ করে দেওয়ার জন্য ।

    1. ঠিকই বলেছেন। গভীরভাবে যাচাই
      ঠিকই বলেছেন। গভীরভাবে যাচাই করা উচিত। আবার এরকমও হতে পারে আদর্শের জন্যে নয়, পদ পদবী ক্ষমতার জন্যে দলবদল।

    2. এই দুই দলের ম্যাক্সিমাম নেতা

      এই দুই দলের ম্যাক্সিমাম নেতা নিজ দলের গঠনতন্ত্র ‘র কাভার পেজের রং কি বলতে পারবেনা ।

      :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :বুখেআয়বাবুল: :বুখেআয়বাবুল: :বুখেআয়বাবুল:

    3. “তাকে ২ বছর পর্যবেক্ষণে রাখা
      “তাকে ২ বছর পর্যবেক্ষণে রাখা উচিৎ”— এই মতে আমি ১০০% সহমত!! দুই বছর ওয়েটিং লিস্টে রাইখা তারপর ছোটোখাটো পোস্ট দিয়ে আরও ২ বছর দেখা উচিৎ..তারপর বলার মত কোন পোস্ট! তারআগে না…
      আওয়ামীলীগের কি নেতার অভাব পড়েছে? এই নির্বাচনেই তো ৩০০ আসনে ২৭০০ এরমত নমিনেশন ফর্ম কিনেছে। তাহলে কেন এইসব জঞ্জাল কাছে টানা? আমি বুঝি না… হানিফ কে একটা শোকজ দিতাম আমি হলে!!

      আর রাহাত ভাই আপনার এই “হয় জিয়ার সৈনিক অথবা মুজিব সেনার রাজনীতি – দলীয় আদর্শ, উদ্দেশ্য,লক্ষ্য থাকে নির্বাসনে” কথা নিয়ে দুইটা প্রশ্ন আছে…
      ক) আপনি কি আসলেই বিশ্বাস করেন জিয়াস সৈনিকদের রাজনৈতিক কোন আদর্শ আছে? সত্যিকারের অর্থে রাজনৈতিক আদর্শ!!
      খ) মুজিবের আদর্শ নির্বাসনে এইটা কি চূড়ান্ত নাকি তর্কের অবকাশ আছে? যদি আপনার চূড়ান্ত কথা হয় তবে আমি তর্কে যেতে চাই…

    1. ভাই, খাঁটি রাজনীতি করা নেতা
      ভাই, খাঁটি রাজনীতি করা নেতা দেশে হাতে গোনা কয়েকজন। তবে একথা সত্য যে, খাটি জামাতি অনেক তাদের দলে।

  3. দীর্ঘদিন জামাতের রাজনীতি করা
    দীর্ঘদিন জামাতের রাজনীতি করা একজনের হঠাৎ এই পরিবর্তনের কারণটা না জানতে পারলেতো লোকে অবিশ্বাস করবেই…অন্তত জামাতীদের ক্ষেত্রে এতোটা উদারতা কাম্য নয় !

    “শত্রুকেও বিশ্বাস করা যায়, কিন্তু জামাত-শিবিরের কাউকে করা যায় না।”

    1. জামাত-শিবিরকে আমি অবিশ্বাস

      জামাত-শিবিরকে আমি অবিশ্বাস করি যখন ফুল নিয়ে আসে তখনও…

      (প্রিয় হুমায়ুন আজাদ স্যারের উক্তির আদলে…)

    1. এই কথা বললেই হয়ে যাবে ? এই
      এই কথা বললেই হয়ে যাবে ? এই ইস্টিশনে কান্ডারী হুশিয়ার নামে একজন আছে তিনি নিজের ঢোল নিজে পিটিয়ে বলেন , তিনি পাকিস্তানকে সহ্য করতে পারেন না কিন্তু আমরা সবাই মোটামুটি তাকে এখন ছা – যুক্ত লোক হিসেবে সনাক্ত করতে পেরেছি ।

  4. আমি মনে করি বিষয়টিকে আপাতত
    আমি মনে করি বিষয়টিকে আপাতত ইতিবাচক রুপেই দেখা উচিৎ ।বলা তো যায়না ঐ জামাতি লোকটা হয়ে যেতে পারে একজন সৎ,প্রাজ্ঞবান ও দেশপ্রেমী রাজনীতিবিদ ।

    নতুনদের শোধরানোর সুযোগ দিয়ে বর্তমানে লীগের ভিতর যাদের রক্তে বেঈমানের কোষ ধরা পড়েছে(যেমনঃ উষ্টা ভাজি রনি) তাদের বের করে দেয়া প্রয়োজন ।

  5. দিস ইজ আ সো কল্ড ডার্টই
    দিস ইজ আ সো কল্ড ডার্টই কালচার অফ আওয়ার পলিটিক্স ! দিস ইজ ডারটিয়ার দ্যান এনিথিং । এ ম্যান ক্যান নট চেঞ্জ উইদিন ওভারনাইট …

  6. জামাতিরে বিশ্বাস করিনা আমি।
    জামাতিরে বিশ্বাস করিনা আমি। বিশ্বাসের মূল্য কতটুকু ভয়ংকর হতে পারে সেটা কি ৭৫ এর পরও আওয়ামী লীগ ভুলে গেছে? সেলুকাস। :খাইছে:

  7. জাফর ইকবাল স্যার একবার
    জাফর ইকবাল স্যার একবার বলেছিলেন – “রাজনীতিবিদেরা প্রায়শই একটা কথা বলে থাকেন, ‘রাজনীতিতে শেষ কথা বলে কিছু নেই।’ আমি এর মানে যা বুঝি তা হলে, রাজনীতিতে প্রয়োজনে নিজের মা কেও বিক্রি করে ফেলা যায়”।

    কথাটা বড্ড বেশি মনে পড়ছে…

  8. বছর তিনেক আগে বিশিষ্ট মৎসজীবি
    বছর তিনেক আগে বিশিষ্ট মৎসজীবি হানিফ সাহেব-ই নতুন জামাত-শিবির তত্ত্ব হাজির করেছিলেন।তিনি বলেছিলেন,নতুন জামাত প্রতিষ্ঠা করতে হবে।এ প্রজন্মের শিবিরের ছেলেরা কেন অপরাধীদের দায়ভার গ্রহণ করবে?মোটা দাগে দেখলে তা একটি ভালো মানুষি কথা।কিন্তু আজ যারা অপরাধের দায়ে দন্ডিত-বিচারাধীন তারা নিশ্চয় তার আগে অপরাধী ছিলেন না।কিন্তু তাদের রাজনৈতিক চিন্তা ও আদর্শই তাদের অপরাধী বানিয়েছিল।ভবিষ্যতের গো.আজম,নিজামী,মুজাহিদদের জন্ম তথাকথিত নতুন প্রজন্ম থেকেই হবে এবং তা তাদের রাজনৈতিক চিন্তা ও আদর্শেরই ফসল।
    হানিফ সাহেবরা ঝানু ব্যবসায়ী।আর ব্যবসায়ের মৌল কথাই হচ্ছে মুনাফা।মুনাফার লোভে অসাধু ব্যবসায়ীরা যেমন পণ্যে ভেজাল,ফরমালিন,মেলামিন মেশাতে দ্বিধাবোধ করেন না তেমনি হানিফ সাহেবরাও রাজাকার-স্বৈরাচারদের দলে ভেড়াতে কুন্ঠাবোধ করেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *