কিছু ভুল কথা আর আমাদের ভ্রান্তি

একটা বিষয়ে একটু কথা বলতে চাই,
শুনতে খারাপ লাগতে পারে, লাগুক তাতে আমার কিছু যায় আসে না, আমি একান্তই আমার কথা বলছি।
অনেকেই দেখি বলে মুক্তচিন্তা মুক্তিপাক!
এখানে আমার একটু আপত্তি আছে;
একটু ঘুরে আসি পেছন থেকে যতদুর পেছনে যাওয়া যায় তার কিয়দংশ নিয়েই বলি।
টলেমীর কথা একটু স্বরণ করুন, যে কিনা প্রথম কথা বলে সুর্যদেবতার বিরুদ্ধে। যে প্রথমবার সামনে আনে এটা একটা মহাজাগতিক গ্রহ কোন দেবতা নয় কোন প্রেরিত মহান নয়। তাকে কি তখনকার মানুষেরা গ্রহন করেছিল? না তখন করেনি, সে সত্য বিশ্বাস করতে প্রায় দু হাজার বছর সময় নিয়েছে বোকারা । তাকে পাগল বলে তাকে নিয়ে ভাবতে চাইনি আর।

একটা বিষয়ে একটু কথা বলতে চাই,
শুনতে খারাপ লাগতে পারে, লাগুক তাতে আমার কিছু যায় আসে না, আমি একান্তই আমার কথা বলছি।
অনেকেই দেখি বলে মুক্তচিন্তা মুক্তিপাক!
এখানে আমার একটু আপত্তি আছে;
একটু ঘুরে আসি পেছন থেকে যতদুর পেছনে যাওয়া যায় তার কিয়দংশ নিয়েই বলি।
টলেমীর কথা একটু স্বরণ করুন, যে কিনা প্রথম কথা বলে সুর্যদেবতার বিরুদ্ধে। যে প্রথমবার সামনে আনে এটা একটা মহাজাগতিক গ্রহ কোন দেবতা নয় কোন প্রেরিত মহান নয়। তাকে কি তখনকার মানুষেরা গ্রহন করেছিল? না তখন করেনি, সে সত্য বিশ্বাস করতে প্রায় দু হাজার বছর সময় নিয়েছে বোকারা । তাকে পাগল বলে তাকে নিয়ে ভাবতে চাইনি আর।
আরো কিছু দিন পর আরেক সত্য বালকের কথা বলি, সক্রেটিস। তখনককার ধর্ম ব্যাবসায়ীরা তার উপর আরো ভয়ংকর হয়। তার সত্য এত শক্তিশালী হয়ে পরে যা তাঁদের অস্তিত্ব হুমকিতে পরে। তারা উনার উপর আরো বেশি ভয়ংকর হয়ে কৌশলে খুন করে।
তার পর কোপার্নিকাস-গ্যালিলিয় সত্য বললে, ওরা আরো জঘন্য ভাবে তাদেককে খুন করে। এমন কি এখন যার মহাত্ব নিয়ে মুসলিমরা নিজেদের দাবী করে তাদের মদ্ধে জাবির ইবনে হাইয়ান ও ইবনে সীনা উল্লেখ যোগ্য। তাদের সত্য গ্রহন করার বদলে সমসাময়িক ধর্ম গুরুরা তাদের পাগল বলে আক্ষায়ীত করে গোষ্ঠী থেকে বিতারিত করে এবং ফিরে আসলে হত্যার হুমকি দেয়। এখানে সকল কালেই দেখা যায় যারা সত্যের পক্ষে তাদের সত্য মিথ্যার ভীত উড়িয়ে দিতে পারে বলে বৃহৎ আবাল গোষ্ঠী তাদের কে হত্যা পর্যন্ত করছে। কিছু প্রাসঙ্গিক কথা বলা জরুরী ছিল, তাই কিছুটা দীর্ঘায়ত হল। এখন প্রশ্ন আসতে পাড়ে মুল কথার সাথে এর কি সম্পর্ক, হ্যাঁ সম্পর্ক আছে। আমরা আসলে সভ্যতার পর কোন কালেই সত্যকে সত্য বলতে পাড়ি না।এখন প্রশ্ন আসবে সবার ক্ষেত্রেই তো আর এমন হয়নি? হ্যাঁ হয়নি কারন তাদের সত্য মিথ্যুক দের প্রয়জনে মিথ্যুক রা নিজেরাই সেটা ব্যাবহার করছে। সমস্ত কাল সকল সময়ে সকল সমাজের মধ্যেই মিথ্যার এই জঞ্জাল ছিল। এখন অনেকেই বলে মুক্ত চিন্তা মুক্তিপাক,যেন সকলেই মুক্ত চিন্তা করে বা কোন বাধা না আসে। এখন যদি এমন হয় সত্য সকলেই গ্রহন করছে বা বলছে অথবা এর বিপক্ষতা করছেনা, তা হলে তখন সকলকেই এক কাতারে ফেলা যায়। যখন সবাই সত্য মেনে নিচ্ছে বা বিরুদ্ধাচরণ করছে না তখন সেই সময় আর একটু চিন্তা করুন অন্য প্রাণি বা রোবটের সাথে কত বেশি সাদৃশ্য পূর্ন হবে মানুষের। যেখানে সবাই এক, সকলের চেতনাজগতের কোন পার্থক্য নেই। আমি বলতে চাই আমি অন্য পশুদের কাতারে নামতে পাড়ি না, যারা খাওয়া দাওয়া হাগা ছাড়া আর কিছু চিন্তা করতে পারে না আমি সেই সমাজব্যবস্থা চাই না। মোট কথা অন্য পশুদের মত আমি পশু হতে পারবোনা।

৩ thoughts on “কিছু ভুল কথা আর আমাদের ভ্রান্তি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *