dfsfdfdsfdsfdsfds

রাসোমান: কুরসাওয়ার অনন্য এক সৃষ্টি
জামাত, বর্তমান বিতর্ক ও বাস্তবতা
সমস্যা অনেক, সমাধান সহজ
আরাসোমান: কুরসাওয়ার অনন্য এক সৃষ্টি
জামাত, বর্তমান বিতর্ক ও বাস্তবতা
সমস্যা অনেক, সমাধান সহজ
আমাদের উপন্যাসে মুক্তিযুদ্ধ- মাহবুব রেজা
বর্তমান বিতর্ক , উত্তপ্ত ইস্টিশন।
বাহাই, ঊনবিংশ শতাব্দীতে ইরান
সমস্যা অনেক, সমাধান সহজ
আমাদের উপন্যাসে মুক্তিযুদ্ধ- মাহবুব রেজা
বর্তমান বিতর্ক , উত্তপ্ত ইস্টিশন।
বাহাই, ঊনবিংশ শতাব্দীতে ইরান লিরিক : যুবতী গঙ্গা
রাসোমান: কুরসাওয়ার অনন্য এক সৃষ্টি
জামাত, বর্তমান বিতর্ক ও বাস্তবতা
সমস্যা অনেক, সমাধান সহজ
আমাদের উপন্যাসে মুক্তিযুদ্ধ- মাহবুব রেজা

রাসোমান: কুরসাওয়ার অনন্য এক সৃষ্টি
জামাত, বর্তমান বিতর্ক ও বাস্তবতা
সমস্যা অনেক, সমাধান সহজ
আরাসোমান: কুরসাওয়ার অনন্য এক সৃষ্টি
জামাত, বর্তমান বিতর্ক ও বাস্তবতা
সমস্যা অনেক, সমাধান সহজ
আমাদের উপন্যাসে মুক্তিযুদ্ধ- মাহবুব রেজা
বর্তমান বিতর্ক , উত্তপ্ত ইস্টিশন।
বাহাই, ঊনবিংশ শতাব্দীতে ইরান
সমস্যা অনেক, সমাধান সহজ
আমাদের উপন্যাসে মুক্তিযুদ্ধ- মাহবুব রেজা
বর্তমান বিতর্ক , উত্তপ্ত ইস্টিশন।
বাহাই, ঊনবিংশ শতাব্দীতে ইরান লিরিক : যুবতী গঙ্গা
রাসোমান: কুরসাওয়ার অনন্য এক সৃষ্টি
জামাত, বর্তমান বিতর্ক ও বাস্তবতা
সমস্যা অনেক, সমাধান সহজ
আমাদের উপন্যাসে মুক্তিযুদ্ধ- মাহবুব রেজা
বর্তমান বিতর্ক , উত্তপ্ত ইস্টিশন।
বাহাই, ঊনবিংশ শতাব্দীতে ইরান মাদের উপন্যাসে মুক্তিযুদ্ধ- মাহবুব রেজা
বর্তমান বিতর্ক , উত্তপ্ত ইস্টিশন।
বাহাই, ঊনবিংশ শতাব্দীতে ইরান
সমস্যা অনেক, সমাধান সহজ
আমাদের উপন্যাসে মুক্তিযুদ্ধ- মাহবুব রেজা
বর্তমান বিতর্ক , উত্তপ্ত ইস্টিশন।
বাহাই, ঊনবিংশ শতাব্দীতে ইরান লিরিক : যুবতী গঙ্গা
রাসোমান: কুরসাওয়ার অনন্য এক সৃষ্টি
জামাত, বর্তমান বিতর্ক ও বাস্তবতা
সমস্যা অনেক, সমাধান সহজ
আমাদের উপন্যাসে মুক্তিযুদ্ধ- মাহবুব রেজা
বর্তমান বিতর্ক , উত্তপ্ত ইস্টিশন।
বাহাই, ঊনবিংশ শতাব্দীতে ইরান

৩৫ thoughts on “dfsfdfdsfdsfdsfds

  1. যে যাই বলুক, হুমায়ূন আহমেদের
    যে যাই বলুক, হুমায়ূন আহমেদের লেখা পড়ে আনন্দ পাই। সেটাই বা কয়জন দিতে পারে? সব লেখাই যে জ্ঞ্যান আহরণের জন্য পড়তে হবে এমন দিব্বি আমি মানিনা। ভাতের যেমন দরকার আছে, চানাচুরেরও দরকার আছে। আর হুমায়ূন আহমেদের বেশ কিছু লেখা অবশ্যই মানসম্পন্ন এটা অস্বীকার করলে মিথ্যাচার হবে।

  2. কালজয়ী লেখকদের সমালোচকের অভাব
    কালজয়ী লেখকদের সমালোচকের অভাব হয়না ।হুমায়ুন আহমেদ বরাবরের মতই একজন কালজয়ী লেখক ছিলেন, আছেন এবং থাকবেন ।

  3. সহজ কথা সহজ করে বলা যেমন
    সহজ কথা সহজ করে বলা যেমন কঠিন, তেমনি কঠিন হচ্ছে কঠিন কথা সহজ করে বলা। হুমায়ূন আহমেদ এই কাজটি করতেন ঈর্ষনীয় অনায়াসে। তিনি কেবল একজন লেখক ছিলেন না, বরং তিনি ছিলেন একজন রাসপুতিন, যার শব্দজালে স্বইচ্ছায় সম্মোহিত হতে ইচ্ছে করত, তিনি ছিলেন এক যাদুময় গল্প বলিয়ে। আপাত-গম্ভীর এই মানুষটা ছিলেন “অতিজাগতিক” রসবোধের এক অন্তহীন খনি। উন্মাদ পত্রিকায় “এলেবেলে” সিরেজের কথা মনে আছে নিশ্চয়ই। সাধারন সাহিত্যের বাইরে তিনি বাংলা সাইন্স ফিকশনকে দিয়েছিলেন নতুন জন্ম। তাঁর লেখনীর রেখার পথ ধরে পাশাপাশি হেঁটেছিল হিমু আর মিসির আলীর মত দুই দ্বান্দিক চরিত্র। “অন্যভুবন” গল্পের মাধ্যমে তিনি বাংলা সাহিত্যের মূলধারায় নিয়ে এসেছিলেন পরাবাস্তবতাকে। হুমায়ূন আহমেদের লেখা পড়লে বুঝা যায় তাঁর পড়াশুনার ব্যাপ্তি। তিনি অদ্ভুত সব তথ্য দিয়ে মাঝে মাঝে পাঠকদের চমকে দিতেন। ওনার এক লেখা থেকেই প্রথম জানতে পারি যে আপেলের বিচিতে অতি সামান্য পরিমানে সায়ানাইড থাকে!!! সিনেমা, নাটক, গান সব মিলিয়ে আরো অনেক কিছু বলার থাকে এই অদ্ভুত মানুষটিকে নিয়ে। হুমায়ূন আহমেদের মৃত্যুর পর ওনাকে নিয়ে ফেসবুকে ছোট্ট একটা পোস্ট দিয়েছিলাম। ভাবছি ওটা আবার ইস্টিশনে পোস্ট করব। সবশেষে, R.I.P Humayun Ahmed, R.I.P. We so called চানাচুর lovers always miss you. Always….

    1. হুমায়ুন আহমেদের লেখা পরেই
      হুমায়ুন আহমেদের লেখা পরেই আমার মতো অনেকেই বই পড়তে এবং কিনতে আগ্রহী হয়েছে। এটাও কিন্তু স্যার এর একটা বিশাল অবদান।

    2. আপেলের বিচিতে অতি সামান্য

      আপেলের বিচিতে অতি সামান্য পরিমানে সায়ানাইড থাকে!!!

      কি আজব, আমিও জানতাম না :খাইছে: :মাথানষ্ট: :মাথানষ্ট: … কোন বই, ইকরাম ভাই? :ভাবতেছি:

  4. দুই হুমায়ুনের একজন হুমায়ূন
    দুই হুমায়ুনের একজন হুমায়ূন আহমেদ বিয়ে করেছিলেন নিজের মেয়ের বান্ধবীকে।এতে তার মেয়েদের এবং ভাইদের সাথে সম্পর্ক খারাপ হয়ে যায়।তাঁর অনেক ভক্ত ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে মাথা না ঘামানোর কথা বলে বারবার এড়িয়ে গিয়েছেন ওই প্রসঙ্গ।থাকতে চেয়েছেন পরম সৃষ্টিশীল হুমায়ুন আহমেদের সৃষ্টিগুলো এবং তার চমকপ্রদ জীবনের কাহিনী নিয়ে।চাঁদও তো নিখুঁত নয়।আর হুমায়ূন আহমেদ তো আইন মেনেই সবকিছু করেছেন।আধুনিক বাংলা সাহিত্যের জনপ্রিয়তম লেখক হুমায়ূন আহমেদ নিজের জীবন এবং লেখায় চলেছেন ভারসাম্যের পথে।
    হুমায়ূন আহমেদের কাজটি যদি নাস্তিক হুমায়ুন আজাদ করতেন?একে তো প্রকাশ্যে নাস্তিকতা প্রচার করে বেড়ান তার উপরে আবার মেয়ের বান্ধবীকে বিয়ে!দারুণ একটা ইস্যু পাওয়া যেত!নাস্তিকের আবার জীবনবিধি আছে না-কি!

    1. bravo……
      :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:
      bravo……

      1. এই দু’জনের মাঝে ঘনিষ্ঠ
        :গোলাপ: :গোলাপ: :গোলাপ: :বুখেআয়বাবুল: :ধইন্যাপাতা:
        এই দু’জনের মাঝে ঘনিষ্ঠ পারিবারিক সম্পর্ক ছিল।যা এই মন্তব্য করতে আমাকে আরো বেশি উৎসাহিত করেছে।

    2. ভাই সব জায়গায় ধর্ম নিয়ে
      ভাই সব জায়গায় ধর্ম নিয়ে প্যাচাল না পারলে হয় না? আস্তিক নাস্তিকের ফালতু কচ্কচানি শুনতে শুনতে বিরক্ত হয়ে গেলাম গত এপ্রিল থেকে| এবার “থামলে ভালো লাগে”|

      1. যাদের ভালো লাগে তারা
        যাদের ভালো লাগে তারা শুনবে-পড়বে।ভালো না লাগলে যত ইচ্ছা সমালোচনা করবে।নিয়ম-নীতির অধীনে থেকে আমার মন্তব্য-পোস্ট আমি দেব।

  5. আনন্দ ফেরিওয়ালা হুমায়ূন আহমেদ
    আনন্দ ফেরিওয়ালা হুমায়ূন আহমেদ – ওনার বৈচিত্র্যময় জীবন যাপন আমাকে সব থেকে বেশি আকৃষ্ট করেছে ।
    আমি ওনার ভক্ত ছিলাম না কোন কালে এবং মনে করি বাংলা সাহিত্যে উনি খুব বেশিদিন বেঁচে থাকবেন না । তথাপি তিনি যতদিন ছিলেন তার সৃষ্ট হিমু, মিসির আলী আমাদের কে হাসিয়ে, ভাবিয়েছে , কাঁদিয়েছে । বেঁচে থাকার জন্য এই উপাদান গুলো কম গুরুত্বপূর্ণ নয় ।

      1. থাক হুমায়ূন ভক্তদের আপাতত
        থাক হুমায়ূন ভক্তদের আপাতত দুঃখ – কষ্ট দিতে ইচ্ছে করছেনা । নাজিম হিকমত তার বিখ্যাত কবিতা ” জেল খানার চিঠি ” তে বলেছেন, ” বিংশ শতাব্দীতে শোকের আয়ু বড়োজোর এক বছর ” । এখন এই একবিংশ শতাব্দীতে তা বেড়ে ১০০ বছর হয়ে গেল কিনা ভাবছি … :ভাবতেছি: :ভাবতেছি: :ভাবতেছি:

        1. দুঃখ-কষ্টের বিষয় নয়।আপনার
          দুঃখ-কষ্টের বিষয় নয়।আপনার মন্তব্য একান্ত কাম্য।
          কথা হোল–হুমায়ূনের একটি বইও কি কালোত্তীর্ণ নয়! আহমদ ছফা থেকে শুরু করে আব্দুর রাজ্জাক,আহমেদ শরীফ,সুনীল গাঙ্গুলী,সমরেশ মজুমদার এরা যে হুমায়ূন আহমেদের প্রশংসা করেছেন তা কি স্রেফ ভালো সম্পর্কের খাতিরে?হতে পারে হুমায়ূন জনপ্রিয়তাকে পুঁজি করে ব্যবসায়িক মনোবৃত্তির হয়ে গিয়েছিলেন।ফর্মার উপর ভিত্তি করে বই লিখতেন।ছোট এক পিস বই কেনাও কষ্ট হোত অনেকের জন্য।
          এরই ফাঁকে তিনি নিজের পাঠক সৃষ্টি করেছেন।আর একেকজনের পছন্দ তো একেকরকম।হুমায়ূন যদি পাঠকের জটিল সাহিত্য বুঝবার এবং ধারণ করবার ক্ষমতা নষ্ট করে দিয়ে থাকেন তাহলে তিনি সাহিত্যিক দিক হতে অপরাধী হতে পারেন।নৈতিক দিক থেকে তিনি নিজেকে অপরাধী মনে করতে না যা ওই কবিতাটি পড়লেই বোঝা যায়।
          তার ভাই জাফর ইকবাল যেমন একবার বললেন যে,হুমায়ুন নিজের প্রতিভানুযায়ী যা লিখেছেন তা যেন খুব দামী হ্যাসেলব্লাড ক্যামেরা দিয়ে জন্মদিনের ছবি তোলা।
          হুমায়ূন আহমেদ নিজের পথ বেছে নিয়েছিলেন।পাঠকও নিজের পথ বেছে নিক।পাঠককে তো শুধু আখতারুজ্জামান ইলিয়াসের লেখা পড়তে বাধ্য করা যায় না।
          হুমায়ূনের সৃষ্টি করা মায়াভ্রুম যদি কালোত্তীর্ণ বইগুলো দূর করতে পারে তাহলে তো সেই বইগুলো সার্থক।আর এরই ফাঁকে হুমায়ূনের দুই-একটা বই টিকে যেতে পারে,না-ও পারে।

          1. “হুমায়ূন ভক্তদের আপাতত দুঃখ –
            “হুমায়ূন ভক্তদের আপাতত দুঃখ – কষ্ট দিতে ইচ্ছে করছেনা।”
            রাহাত ভাই, এটা একটা কথা বললেন? ভক্ত তো ভক্তই। কাউকে তো আর মেরে খাচ্ছে না। ভক্ত হলেও দোষ? ==যে “কেন তুই ভক্ত হইলি?”

        2. মনে করুন আমি বাংলাদেশের একজন
          মনে করুন আমি বাংলাদেশের একজন খুব খাদ্য রসিক ব্যাক্তি (তাই বলে আমাকে পেটুক মনে করবেন না প্লিজ)| সুস্বাদু খাবার আমার খুব পছন্দ| ভালো রান্নার আমি একজন কঠিন সমঝদার| এবার আবার মনে করুন মি: চুই ঝিং ঝুং (কাল্পনিক নাম) কোরিয়ার একজন হেভি নামজাদা শেফ যিনি সাপ রান্নায় বিশেষ পারদর্শী| এখন আমি কোরিয়ায় ওনার রেস্টুরেন্টে গেলাম, কিন্তু ওনার রান্না করা সাপের স্পেশাল ডিশ খেলাম না| কারণ আমি সাপ খাই না| এখন আমি খাই না বলে এর মানে এই দাঁড়ায় না যে মি: চুই ঝিং ঝুং একজন বাজে শেফ, অথবা আমার খাওয়ার রুচি নিম্নমানের| পুরো ব্যপারটাই রুচির পার্থক্য ছাড়া আর কিছুই না| হুমায়ূন আহমেদের লেখা পছন্দ করা বা না করার বিষয়টাও আমার দৃষ্টিতে সেরকম|

  6. পোস্টের শেষ কথার মানে বুঝলাম
    পোস্টের শেষ কথার মানে বুঝলাম না। শেষ কথাটি দ্বারা হুমায়ূন আহমেদের প্রতি কী তীব্র খোঁচা মারা হল?

    এটা ঠিক যে হুমায়ূন আহমেদ এর অধিকাংশ লিখনীতে বাস্তবতার অভাব ছিলো। বিশেষ করে হিমুর শেষ এপিসোড গুলোর অবস্থা ছিলো খুবই নাজুক। তিনি হিমুকে নিয়ে যেমন তৈরী করেছেন রসবোধ তেমনি হিমুকে নিয়ে তার “পারাপার” বইটাও চরম বাস্তব সম্মত। ‘নন্দিত নরকে’ দিয়ে তিনি তো ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন। হুমায়ূনকে ভুলে যাওয়ার সময় এখনো আসেনি। অন্তত আরো একশো বছর বাঙলা সাহিত্যে অবসংবাদিত ভাবে তার অমরত্ব কাম্য।

    1. শেষ কথাটি দ্বারা হুমায়ূন

      শেষ কথাটি দ্বারা হুমায়ূন আহমেদের প্রতি কী তীব্র খোঁচা মারা হল?

      বিপরীতটা হবে।আমি শুধু হুমায়ুনের বইয়ের ফ্ল্যাপে দিয়ে দেওয়া কথাগুলোরই ভাবসম্পরসারণ করেছি।
      হুমায়ুন জানতেন তিনি কী লিখছেন।কিন্তু কারো কথায় নিজের লেখা বদলে ফেলেননি। পুরো পোস্টটা আবার পড়লে হয়ত ক্লিয়ার হবে।

  7. রাআদ ভাই ঠিক বলছেন।এই এক
    রাআদ ভাই ঠিক বলছেন।এই এক হুমায়ূন স্যারের হাত ধরেই বই পড়ার হাতে খড়ি হয় আমার।প্রথম প্রথম শুধু তার বইই পড়তাম।এরপর ধীরে ধীরে বিস্তার পেয়েছে আমার পড়ার পরিধি।এখনো সেই কৈশোরে স্যারের হিমু বই পড়ে হলুদ পাঞ্জাবী গায়ে চড়িয়ে রাস্তায় রাস্তায় রোদে হাঁটার কথা মনে পড়লে কেমন যেন অদ্ভুত আনন্দ পাই।তার লেখা পড়েই প্রথম নিজের মাঝে লেখার আগ্রহ খুঁজে পাই।সেই দিনটার কথা মনে পড়লে এখনো কেমন শূণ্যতা গ্রাস করে আমায়।হঠাত্‍ রাত সাড়ে এগারোটায় এক বন্ধু ফোন করে আমায়।শুনতে পাই বন্ধুটি কান্না করতেছে।জিজ্ঞেস করলাম কেন কান্না করতেছে?বলল,হুমায়ূন স্যার আর নেই।আমি ধাক্কার মত খেলাম।কেমন শূণ্যতায় ডুবে গেলাম।একটি কথাও আর বলিনি ঐ বন্ধুর সাথে।কিছুক্ষণ পর ও ফোন রেখে দেয়।এরপর আমি স্তম্ভিত হয়ে কিছুক্ষণ বসে থাকি।একটা সিগারেট ধরাই।দেখি কেমন ঝাপসা লাগছে পৃথিবী।নিজেকে শান্ত করার চেষ্টা করি।এরপর তার ‘কবি’ বইটা পড়া শুরু করি।যদিও বইটা তার আগেও ২বার পড়া ছিল।পড়তে পড়তে কখন ঘুমিয়ে গিয়েছিলাম মনে নেই।

    1. কবি
      আমার পড়া অন্যতম সেরা

      কবি

      আমার পড়া অন্যতম সেরা একটা বই :ভালুবাশি: :ভালুবাশি: … বিশেষ করে হুমায়ূন স্যারের কবিতাগুলো ছিল জাস্ট অসাম :ভালাপাইছি: :ভালাপাইছি: … এককথায় মাস্টারপিস… :গোলাপ: :গোলাপ:

  8. হুমায়ুন আহমেদ ভালো লেখক
    হুমায়ুন আহমেদ ভালো লেখক ছিলেন কি খারাপ লেখক ছিলেন সেই বিতর্কে যাব না। শুধু এটা বলতে পারি বাঙ্গালীর মাঝে পড়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে তার ভূমিকা ছিল অনস্বীকার্য :ভালাপাইছি: :ভালাপাইছি: … এমন অএক মানুষ খুজলে পাওয়া যাবে, যিনি জীবনে হয়তোবা একটা বইই পড়েছেন আর সেটি হুমায়ুন আহমেদের… :bow: :bow:

    আপনি বেঁচে থাকবেন আমাদের মাঝে অনন্তকাল… :salute: :salute: :salute:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *