অশ্রুকাব্য


পিপিলিকা,
খাদ্য খুজে মরে,
পিঠের উপর পাহার সব বোঝা
হায় যদি তুই,
এপথ ছেরে
অন্য পথে লুকিয়ে যেতিস !
সফল হতো
আমার আধার খোঁজা !
রোদ ছিটানো
শিশির কনায়
রুপোর আহাজারি,
ধরতে মানা
ছুতেও মানা
বৃথাই কেঁদে মরি ।

অলস জীবন মর্চে ধরা মাথা
হারার ভয়েই যুদ্ধ ছেরে
পালিয়েছি, প্রদিপ নেভার ব্যাথা
বুকে নিয়ে ডুব দিয়েছি, ডাকিস কেরে ?
আমি আজো লুকিয়ে আছি রোদের নিচে
ডাকিস নারে, এ ঘুম আমার ভাঙ্গবে নারে
জল ছিটানো ঘাশ উঠানো ক্রিকেট বিচে
ব্যাট রেখেছি তুলে, আউট বারে বারে ।

শিমুল গাছের রক্তরাঙ্গা শিমুল ফুল,
শিমুল তুলা আসবে বলে
পত্রবিহীন শিমুল ডালে
পাখি ডাকে,
শিমুল গাছের ছায়ায়
বসে ভাবি


পিপিলিকা,
খাদ্য খুজে মরে,
পিঠের উপর পাহার সব বোঝা
হায় যদি তুই,
এপথ ছেরে
অন্য পথে লুকিয়ে যেতিস !
সফল হতো
আমার আধার খোঁজা !
রোদ ছিটানো
শিশির কনায়
রুপোর আহাজারি,
ধরতে মানা
ছুতেও মানা
বৃথাই কেঁদে মরি ।

অলস জীবন মর্চে ধরা মাথা
হারার ভয়েই যুদ্ধ ছেরে
পালিয়েছি, প্রদিপ নেভার ব্যাথা
বুকে নিয়ে ডুব দিয়েছি, ডাকিস কেরে ?
আমি আজো লুকিয়ে আছি রোদের নিচে
ডাকিস নারে, এ ঘুম আমার ভাঙ্গবে নারে
জল ছিটানো ঘাশ উঠানো ক্রিকেট বিচে
ব্যাট রেখেছি তুলে, আউট বারে বারে ।

শিমুল গাছের রক্তরাঙ্গা শিমুল ফুল,
শিমুল তুলা আসবে বলে
পত্রবিহীন শিমুল ডালে
পাখি ডাকে,
শিমুল গাছের ছায়ায়
বসে ভাবি
অ্যাতো ত্যাগের কি প্রতিদান
শিমুলবৃক্ষ পাবে ?
সৃষ্টি সুখের কি উপাদান
শিমুল তোমার রবে ?
জন্মে শুধু দিয়েই গেলে
বিসর্জনে কিইবা পেলে !
অঙ্গহানির কি বেদনা !
বুঝবে কি কেউ ?
তোমার দুঃখ শিমুল-তুলোর বালিশ মাথায়
ভাববে কি কেউ ?

মানুষ ক্যানো কাঁদে ?
একা সোনার জীবন ছেরে মায়ার এঘর বাঁধে ?
মায়ার বাধন না যায় ছেরা, বুকে লাগে টান
অশ্রু ছুটে ব্যাথা ফুটে, এ কোন বিষের বান !

জলের উপর ঘর বেধেছি
জলেই বসবাস,
চোখের জলে বুক ভেসেছে
নিঠুর পরিহাস !

হারিয়ে যাওয়া শব্দমালা
খুজে ফিরি
তরঙ্গ সমুদ্রে ,
হাত-পা ভাঙ্গা অক্ষর
প্রতিবন্ধি বাক্য
জীবনহারা কাব্যকথা
শুন্যবুকে অশ্রুব্যাথা
কালকের জাহাজে সওয়ারি
দিকপাল স্বয়ং দিকভ্রান্ত
শুকানো অশ্রুর দাগকাটা শুকনো বালুচল-মরুভুমি
এককালে অথৈজলে কুলকিনাহীন সমুদ্র ছিলো ।
শেষরাত্রির ঘুম জরানো ভালোবাসা
খুজে ফিরি ,
কাঁথার নিচে লুকানো কষ্ট
বালিশ বড় ক্লান্ত
সে আর অশ্রু-গোছল করবে না ।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *