চোখের খিধা

এখানে আগেই বলে রাখি আমি কিন্তু মেয়েদের একটু এড়িয়ে চলার চেষ্টা করি এবং বলা যায় সেটা স্কুল জীবন থেকে। বলতে পারেন কিছুটা ভয় আবার সংকোচ থেকে এই রকম। কিন্তু মেয়ে দেখলে তাকাতাম না তা কিন্তু না। অনেকেই তাকাই শতকরা ১০০ জন ছেলের মাঝে ৯০ জনই, হ্যা আমি গ্যারান্টি দিয়ে বলব ৯০ জনই কিন্তু একটু সেক্সি কিনবা ভালো ফিগারের মেয়ে দেখলেই তাকিয়ে থাকে,মনে মনে কি ভাবে বা আকে সেটা ভিন্ন বিষয়।


এখানে আগেই বলে রাখি আমি কিন্তু মেয়েদের একটু এড়িয়ে চলার চেষ্টা করি এবং বলা যায় সেটা স্কুল জীবন থেকে। বলতে পারেন কিছুটা ভয় আবার সংকোচ থেকে এই রকম। কিন্তু মেয়ে দেখলে তাকাতাম না তা কিন্তু না। অনেকেই তাকাই শতকরা ১০০ জন ছেলের মাঝে ৯০ জনই, হ্যা আমি গ্যারান্টি দিয়ে বলব ৯০ জনই কিন্তু একটু সেক্সি কিনবা ভালো ফিগারের মেয়ে দেখলেই তাকিয়ে থাকে,মনে মনে কি ভাবে বা আকে সেটা ভিন্ন বিষয়।

স্কুল জীবনে সবে নাইনে উঠেছি দেহ,সেক্স এসব নিয়ে জানতে শিখেছি।স বাই যেভাবে নগ্নভাবে জানে সেভাবেই। একটা গোপন কৌতুহল মনের মাঝে উঁকিঝুকি দেয়া শুরু করেছে। সাইবার ক্যাফে, বই বাজারে মোটামুটি একটু আধটু যাতায়াত শুরু, শুধুমাত্র চোখের একটা অতৃপ্ত খিধা মেটানোর আশায়। এস.এস.সি এর আগ মুহুর্তে কোচিং আর সেখানে মেয়েবন্ধুদের সাথে মেলামেশা। মাঝে মাঝে সেই চোখের খিধা মিটাতে এদিক উদিক করে চাহনি। যদিও তারা বুঝতো, আর চোখে চোখে পড়লে এমন এক ভাব যেন ওসব দিকে নজর না। এরপর কলেজ জীবন বলা যায় বন্দী হয়ে থাকা, কিন্তু বাংলার বাছাই করা বান্দরগুলা যেহেতু একসাথে তাই সেখানেও চোখের খিধা মেটাতে বইয়ের কাছে ন্যস্ত কিনবা পর্দার ফাক ফোকর দিয়ে পাশের ফ্ল্যাটের মেয়েদের দেখা।

একসময় সেখানের পার্ট চুকিয়ে ঘরে ফিরে আসা। আবার সেই আড্ডা সেই পুরাতন বাঁদরামি। পথে ঘাটে মেয়ে দেখলে তাকিয়ে থাকা চোখের খিধা মেটানোর আশায়। মাঝে মাঝে মধ্যে দেখতাম আমার এই চাহনিতে কেমন জানি বিব্রতবোধ করছে তারা আবার এও দেখতাম মুচকি করে একটু হেসে সামনে এগিয়ে যাচ্ছে। আবার ভয়ে সেইসব হাসির প্রতিউত্তর দিতে সামনে এগিয়েও যাইনি।

একদিন ঘর থেকে কড়া নির্দেশ বোনকে স্কুলে থেকে আনা-নেওয়া করতে হবে। যেহেতু বেকার তাই ঘরের নির্দেশ শিরোধার্য আর কিছু হাত খরচও পাওয়া যায় সুতরাং একাজ করাই যায়। সকালে নিয়ে পৌঁছে দিলাম, দুপুরে আনতে গেলাম। ফেরার পথে খেয়াল করে দেখলাম রাস্তার লোকেরা বোনের দিকে শকুনের মত হা করে তাকিয়ে আছে প্রথমে একটু পরে খুব বেশী বিব্রতবোধ করতে থাকলাম। এলাকায় ঢুকেও সেই একই দশা কিন্তু পিছে আমাকে দেখে পরিচিতরা এমন ভাব করলো যেন তারা দেখেই নাই, সাথে সাথে মুখ ঘুরিয়ে নেয়া। আর বোনটি আমার সারা রাস্তা জুড়ে অপরাধীর মত মাথা নিচু করে বাড়ি ফেরা।

বাড়ি ফিরে শুধু মাথায় ঘুরছিলো তাহলে কি আমিও যখন মেয়েদের দিকে তাকিয়ে থাকি তখন আমার দৃষ্টিও কি শকুনির মত হয়? তাদের দেখে আমি যেভাবে বিব্রত হচ্ছিলাম আর আমাকে দেখে তারা নজর ফেরাচ্ছে না দেখার ভান করে আমিও তো সেরকম করি তাহলে বিব্রত কেন হলাম? নিজের বোন বলে? ঐ মেয়েগুলোওতো মাথা নিচু করে চলে যেতো কিন্তু কখনো মনে হয়নি তারা অপরাধ না করেও অপরাধীর মতো মাথা নামিয়ে চলে যেতো,এখন কেন মনে হচ্ছে? নিজের বোন বলে? সেই থেকে আর তাকাই না শকুনের মতো আর একটু ভালো ফিগার দেখলে মাথা ঘুরিয়ে অন্য দিকে তাকিয়ে থাকি। এখন অবশ্য তেমন কিছু করা লাগে না সয়ে গেছে।

[এই লেখাটি অন্য একটি ব্লগে ২২ নভেম্বর ২০১২ সালে লিখেছিলাম]

এখানে আরো কিছু কথা সংযুক্ত করে দিতে চাই। রাস্তা-ঘাটে প্রায়ই দেখা যায় মেয়েদের উত্যক্ত করতে বেশ মজা পায় ছেলেরা। সেই মুহুর্তে আমার ট্রিকসটা হলো একটু কড়া চাহনি, ব্যস ঐটাই যথেষ্ট। গিয়ে ঝগড়া করার দরকার নেই, শুধু ঐরকম চাহনি দিলেই হারামজাদাগুলোর আত্মারাম খাঁচা ছাড়া হবার বাকী থাকে। আমার সাথে কাউকে যখন দেখি ঐভাবে দৃষ্টি দিচ্ছে তখন তাকে বোঝাই যে ওভাবে তাকানোর কিছু নেই বরং না তাকালেই লাভ। মেয়েরা মাথা নিচু করে বা অন্যদিকে তাকিয়ে হাঁটে তার মানে এই না আপনি যে তার দিকে তাকাচ্ছেন সেটি সে দেখছে না। বরং ভালো করেই জানে কে তাকাচ্ছে, যেই তার নজরে আসবে কেউ তার দিকে তাকাচ্ছে না তখন যে ভালো করে দেখতে চাইবে কে এই চিড়িয়া!!! এটি পরীক্ষিত :হাসি: :হাসি: :হাসি:

তাই ভাইদের উদ্দেশ্যে বলি, বি আ ম্যান।

১৪ thoughts on “চোখের খিধা

  1. যে নিজেকে চিনতে পারে
    সে পুরো

    যে নিজেকে চিনতে পারে
    সে পুরো দুনিয়াটাকেই চিনতে পারে।

    আপনার উপলব্ধিকে সম্মান জানাই।

  2. কিছুই বলার নাই। জীবনে একজনের
    কিছুই বলার নাই। জীবনে একজনের পেছনেই না খেয়ে পড়ে ছিলাম। তাকেই বিয়ে করেছি। বন্ধু আছে, বান্ধবীও আছে। সেক্স নিয়ে একটা ছেলের যতটুকু চিন্তা ভাবনা আমারও তত টুকুই আছে। শুধু ওই একটা জিনিষ আমার পছন্দ না, সেটা হল রাস্তা ঘাটে মেয়েদের সাথে ফাইজলামি করা। তাই বলে রাস্তায় আমার পাশ দিয়ে একটা সুন্দরী মেয়ে গেলে আমি আরেক দিকে তাকিয়ে থাকবো, অতটা ছাগল আমি না। :চোখমারা:

    কিন্তু খারাপ দৃষ্টিতে তাকানো, কখনই না।

    1. তাকানোটা যেন অন্যের মন
      তাকানোটা যেন অন্যের মন খারাপের কারণ না হয়ে দাঁড়ায়। আমি খেয়াল করে দেখেছি যে মেয়েরা মাথা নিচু করে হাঁটে, যেন অপরাধ করেছে রাস্তায় এসে। এই জিনিসটি খুবই কষ্ট দেয়।

    1. চেয়ে থাকা ভালো কিন্তু সেই
      চেয়ে থাকা ভালো কিন্তু সেই চেয়ে থাকার কারণে কেউ যদি বিরক্তবোধ হয় তখন তা অশোভনীয়। জানেনই তো সুন্দরী মেয়ে দেখা মাত্র কাম জাগতে পারে, প্রেম নয়। প্রেম জাগে একজনের জন্য। :হাসি: :হাসি: :হাসি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *