শিরোনামহীনঃ ২

অনামিকা ,
কখনো তোর গাল বেয়ে নেমে আসা চুলগুলো কানের পেছনে গুজে দিতে দিতে আমার কথা ভাবিস ।
ঠোঁটের কোণে যদি হাসি এসে যায়,
তবে সার্থক এ ধরাধামে আমার উপস্থিতি ।
কখনো বসন্ত বরণে তোর বাসন্তী রঙের ভাঁজে আমাকে একটু খুঁজে দেখিস ।
যদি চোখাচোখি চোখ ভালোবাসায় ফিরে যায়
তবে অপূর্ণ একুশ বসন্ত আমার পূর্ণ হবে জেনে নিস ।

অনামিকা ,
ঘোমটা ছিলনা , বোরকা ছিলনা
সাদা হাওয়ায় উড়ছিলো তোর চুল
আর নীল শাড়ীর আঁচল
হাতের সবুজ চুড়িতে ঠোঁকাঠুঁকি লেগে আগুন ধরে যাচ্ছিলো আমার বুকে ।
আমার রক্তলাল চোখে তোর প্রতিবিম্বের স্থায়িত্ব ছিলো সূর্য ডুবে যাওয়া পর্যন্ত ।

অনামিকা ,
তুই অনামিকা হলে , আমি মধ্যমা হতাম অথবা কড়ে ।

অনামিকা ,
কখনো তোর গাল বেয়ে নেমে আসা চুলগুলো কানের পেছনে গুজে দিতে দিতে আমার কথা ভাবিস ।
ঠোঁটের কোণে যদি হাসি এসে যায়,
তবে সার্থক এ ধরাধামে আমার উপস্থিতি ।
কখনো বসন্ত বরণে তোর বাসন্তী রঙের ভাঁজে আমাকে একটু খুঁজে দেখিস ।
যদি চোখাচোখি চোখ ভালোবাসায় ফিরে যায়
তবে অপূর্ণ একুশ বসন্ত আমার পূর্ণ হবে জেনে নিস ।

অনামিকা ,
ঘোমটা ছিলনা , বোরকা ছিলনা
সাদা হাওয়ায় উড়ছিলো তোর চুল
আর নীল শাড়ীর আঁচল
হাতের সবুজ চুড়িতে ঠোঁকাঠুঁকি লেগে আগুন ধরে যাচ্ছিলো আমার বুকে ।
আমার রক্তলাল চোখে তোর প্রতিবিম্বের স্থায়িত্ব ছিলো সূর্য ডুবে যাওয়া পর্যন্ত ।

অনামিকা ,
তুই অনামিকা হলে , আমি মধ্যমা হতাম অথবা কড়ে ।
তোর পাশে থেকে যেতাম প্রলয়ের শেষ পর্যন্ত, মহাপ্রয়ানের আগ পর্যন্ত ।
বুড়ো হয়ে দীর্ঘশ্বাস ফেলার ইচ্ছে আমার নেই ।

অনামিকা ,
অবশেষে বাতাস মুক্ত করে দিস,
দুটো পায়রা ঝটপটিয়ে উড়ে যাক যানজটের ফাঁক গলে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *