চাঁদে ও শুকর ছানায় আল্লামা সাঈদী!!!

বর্তমান সরকার একটা বাকশাল সরকার। ইসলামের বাগানের ফুটন্ত গোলাপ, মানবতাবিরোধী ট্রাইব্যুনালের নিষ্পাপ বলি আল্লামা দেলওয়ার হোসেন সাঈদীকে ফাঁসি আদেশ দেওয়ার পর জামাতের গেলমান বাহিনী সারা বাঙলাদেশে ধ্বংসযজ্ঞ শুরু করে। পুলিশ প্রশাসন সহ হাজারো মানুষের উপর অত্যাচার ও সাম্প্রদায়িক হামলা শুরু করে। কিন্তু শত বর্বরতার মধ্যে সাঈদী সাহেব তাদের গেলমানদের দেখা দিয়েছেন আজকের ভোর রাতে।

সাঈদীর গেলমান বাহিনী ও শুভাখানকিরা জানায়;

কোরাআন হাতে মাও.দেলোয়ার হোসাইন সাঈদী চাঁদে দাঁড়িয়ে আছেন এমন প্রতিকৃতি দেখতে গতকাল ভোর রাতে ঝিনাইদহের হাজার হাজার মানুষ বাড়ির ছাদে, খোলা মাঠে ও রাস্তায় নেমে এসেছেন।

ভোর ৫টার দিকে চাঁদে সাঈদী সাহেবকে দেখেছেন ঝিনাইদহ শহরের জিল্লুর রহমান, কালীগঞ্জ উপজেলার নিয়ামতপুর গ্রামের শিক হাফিজুর রহমান, স্কুল ছাত্রী কিমু, জিম, মেইন বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় সমেবেত জনতাও।

চাঁদে সাঈদী সাহেবকে দেখতে ঝিনাইদহের অনেক এলাকায় ভোর রাতে মাইকিং করা হয় । রাত ৫ টার দিকে ঐ সকল এলাকার নারী, পুরুষ ও শিশুরা বাড়ি থেকে বেরিয়ে রাস্তায়, খোলা মাঠে ভিড় করে। অনুরুপ দেখেন কোটচাঁদপুর উপজেলার শিক আব্দুল কাইয়ূম, শরিফুল ইসলাম। মহেশপুর, হরিনাকুন্ডু, শৈলকুপা উপজেলায়ও চাঁদে সাঈদী সাহেবকে দেখেছেন এমন খবর পাওয়া গেছে।

অন্য দিকে পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে খরব আসছে যে; সাঈদী সাহেব কুত্তার পুটকি থেকে শুরু করে শুকরের শরীরেও দেখা দিচ্ছেন।

এতো কিছুর পরও কী নাস্তিকরা ও বাকশালী সরকার আল্লামা সাঈদীকে মুক্তি দেবে না? আর কতো মিরাকেল দেখাবে এই সাঈদী? আর কতো মিরাকেল দেখালে সরকার এই নিষ্পাপ ফুটন্ত ফুলকে মুক্তি দেবে?

১৫ thoughts on “চাঁদে ও শুকর ছানায় আল্লামা সাঈদী!!!

      1. কি বল ৫০০ শেয়ার! আমি তো আরো
        কি বল ৫০০ শেয়ার! আমি তো আরো ফালতু জিনিসে আরো বেশি শেয়ার দেখছি। এদের মাথায় যদি বিদ্যা-বুদ্ধি কিছু থাকতো!
        হুদাই কি আর ছাগু নাম পাইছে?

  1. চুতমারানীটা দেখি শুকর , ছাগু
    চুতমারানীটা দেখি শুকর , ছাগু , টিয়া পাখি , ময়না পাখি কাউকেই মেশিন চালানো লিস্ট থেকে বাদ দেয় নাই , আর কিছুদিন পর ছাগুরা হাত মেরে পতিত শুক্রানুর মাঝে দেইল্লা রাজাকারকে দেখতে পাবে ।

  2. তাইতো বলি, আমি আজকে সকালে
    তাইতো বলি, আমি আজকে সকালে আমার মলত্যাগের পর মলের মধ্যে আবছা কার ছবিটা দেখেছিলাম। তখন চোখে হালকা ঘুম ঘুম ভাব থাকাতে এটা নিয়ে এত ভাবনা-চিন্তা করি নাই। আসল কাহিনীটা এখন বুজলাম। ছবিটা অবশ্য তুলে রেখেছিলাম। কিন্তু এখানে প্রকাশ করলে কে আবার কি মনে করে। :ভাবতেছি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *