শুভ জন্মদিন বাংলাদেশ ক্রিকেটের উজ্জ্বল নক্ষত্র ‘সাকিব আল হাসান’

যার নামেই সব কথা প্রকাশ করে দেয়। আমাদের ক্রিকেটের রাজপুত্র। ১৯৮৭ সালে ২৪ মার্চ মাগুরায় জন্মগ্রহণ করেন সাকিব। ২০০৬ সালে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পা রাখেন। এরপর শুধুই সম্মুখে পথ চলা। অলরাউন্ডার হিসেবে জয় করেছেন বিশ্ব :নৃত্য: :চশমুদ্দিন:

বাংলাদেশ ক্রিকেটের গর্ব, সবার প্রিয় সাকিব আল হাসান কে
সাকিব সম্পর্কে কিছু জানা-অজানা তথ্য ….. :টাইমশ্যাষ:

►► তরুণ বয়সেই সাকিব ফুটবল খেলা শুরু করেছিলন। তাঁর বাবা খুলনা বিভাগের হয়ে খেলতেন এবং এক কাজিন বাংলাদেশ জাতীয় দলের হয়ে।

যার নামেই সব কথা প্রকাশ করে দেয়। আমাদের ক্রিকেটের রাজপুত্র। ১৯৮৭ সালে ২৪ মার্চ মাগুরায় জন্মগ্রহণ করেন সাকিব। ২০০৬ সালে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পা রাখেন। এরপর শুধুই সম্মুখে পথ চলা। অলরাউন্ডার হিসেবে জয় করেছেন বিশ্ব :নৃত্য: :চশমুদ্দিন:

বাংলাদেশ ক্রিকেটের গর্ব, সবার প্রিয় সাকিব আল হাসান কে
সাকিব সম্পর্কে কিছু জানা-অজানা তথ্য ….. :টাইমশ্যাষ:

►► তরুণ বয়সেই সাকিব ফুটবল খেলা শুরু করেছিলন। তাঁর বাবা খুলনা বিভাগের হয়ে খেলতেন এবং এক কাজিন বাংলাদেশ জাতীয় দলের হয়ে।
►► এরকম ফুটবল পাগল পরিবারে বড় হওয়া সত্ত্বেও সাকিবের ক্রিকেট দক্ষতা ছিল অসাধারণ। গ্রাম-গ্রামান্তরে তাঁকে খেলার জন্য ভাড়া করে নিয়ে যাওয়া হত। এরকমই এক ম্যাচে সাকিব এক আম্পায়ারকে অভিভূত করেছিলেন যিনি এরপরে সাকিবকে ইসলামপুর পাড়া ক্লাব (মাগুরা ক্রিকেট লীগের একটি দল) এর সাথে অনুশীলন করার সুযোগ করে দেন।
►► ইসলামপুর দলে খেলার সুযোগ পেয়ে প্রথম বলেই উইকেট তুলে নেন সাকিব। সত্যিকারের ক্রিকেট বল দিয়ে এটাই ছিল তাঁর প্রথম করা বল। এর আগ পর্যন্ত তিনি টেপড টেনিস বল দিয়েই খেলতেন।
►► ২০০৬ সালের জিম্বাবুয়ে ট্যুরে সাকিব প্রথমবারের মত বাংলাদেশ জাতীয় দলে খেলার সুযোগ পান। একই ট্যুরে ওয়ানডে অভিষেক হয় ফরহাদ রেজা ও মুশফিকুর রহিমের।
►► একজন অলরাউন্ডার হওয়া সত্ত্বেও অক্টোবর,২০০৮ এর নিউজিল্যান্ডের বাংলাদেশ ট্যুরের আগ পর্যন্ত সাকিবকে বোলার নয়, ব্যাটসম্যান হিসেবেই গণ্য করা হত। টেস্টে সাত নম্বরে ব্যাটিংয়ে নামলেও ওয়ানডেতে কিন্তু প্রথম পাঁচ ব্যাটসম্যানের মধ্যেই থাকতেন তিনি।
►► ট্যুরের আগ দিয়ে কোচ জিমি সিডন্স জানালেন, সাকিবকে স্পেশালিস্ট বোলার হিসেবেই টেস্ট সিরিজ খেলানো হবে। কোচকে হতাশ করেননি সাকিব। উদবোধনী টেস্টের প্রথম ইনিংসেই তিনি ৩৭ রান দিয়ে তুলে নেন ৭টি উইকেট। তখন পর্যন্ত কোন বাংলাদেশী বোলারের টেস্টে এটাই ছিল বেস্ট বোলিং ফিগার। বাংলাদেশ সিরিজ হারে ২-০ তে, কিন্তু সাকিব ১৭.৮০ গড়ে ১০টি উইকেট নিয়ে সিরিজের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী হন।
►► ২২ জানুয়ারী, ২০০৯ সাকিব আইসিসি’র ওডিআই অলরাঊন্ডার র্যাঙ্কিং এ ১ নম্বরে উঠে আসেন।
এরপরের যা করে দেখিয়েছেন তার সবই ইতিহাস।।
সংক্ষেপে একজন সাকিব আল হাসানের বেড়ে উঠার কাহিনী এটি
(তথ্যসূত্র: সংগৃহীত)

আজকে আমাদের দেশ বরেণ্য এই ক্রিকেটারের ২৭তম জন্মদিন।। বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে উজ্জ্বল নক্ষত্রের মাঝে পাই এক জগত বিখ্যাত খেলোয়াড়কে।। দেশকে অনেক দিয়েছেন সাকিব।। ভবিষ্যতে আরো অনেক প্রাপ্তির জন্য দেশের প্রতিটি মানুষ তাকিয়ে আছে তার দিকে।। তুমি এগিয়ে যাও সাকিব আল হাসান।। লক্ষ মানুষের দোয়া এবং ভালোবাসা নিয়ে হয়ে উঠো বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়দের একজন :পার্টি: :salute:

দীর্ঘ সুস্থ জীবন, জনপ্রিয়তা ও মানসিক শান্তি কামনার পাশাপাশি; আশা করব, সাকিবের ব্যাটিং ও বোলিং তান্ডব যেন আরো হাজারো গুণে বাড়ে !!! :ফুল: :ফুল:

৪ thoughts on “শুভ জন্মদিন বাংলাদেশ ক্রিকেটের উজ্জ্বল নক্ষত্র ‘সাকিব আল হাসান’

  1. জন্মদিনের শুভেচ্ছা রইল সাকিব
    জন্মদিনের শুভেচ্ছা রইল সাকিব আল হাসানের প্রতি। আরও অনেক অনেক বছর তুমি বাংলাদেশের জান হয়ে বেঁচে থাকো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *