সমস্যা অনেক, সমাধান সহজ

আর যাবোনা ভেবে টয়লেট ব্যবহারের পর অনেক শিক্ষিত মানুষও ফ্ল্যাশ করেনা, অন্যদের কথা তো ভাববেই না, আমি শিওর নেক্সট টাইম সেই যেয়ে তার আপন গু ভাসতে দেখলে নিজেই টয়লেট ব্যবহার করতে পারবেনা, ভাবতেছি কাউকে ধরতে পারলে গু এর ছবি তুলে রাখবো, এরপর তাকে ফেসবুকে তার ওয়ালে ট্যগ করে দেবো ভাই এইটা আপনার আজকের উৎপাদন, তা বলেন দেখি দুপুরে কি খাইছিলেন, রঙ তো ভাল আসেনায়?


আর যাবোনা ভেবে টয়লেট ব্যবহারের পর অনেক শিক্ষিত মানুষও ফ্ল্যাশ করেনা, অন্যদের কথা তো ভাববেই না, আমি শিওর নেক্সট টাইম সেই যেয়ে তার আপন গু ভাসতে দেখলে নিজেই টয়লেট ব্যবহার করতে পারবেনা, ভাবতেছি কাউকে ধরতে পারলে গু এর ছবি তুলে রাখবো, এরপর তাকে ফেসবুকে তার ওয়ালে ট্যগ করে দেবো ভাই এইটা আপনার আজকের উৎপাদন, তা বলেন দেখি দুপুরে কি খাইছিলেন, রঙ তো ভাল আসেনায়?

রাস্তায় ময়লা ফেলার সময় ভাববেনা যে এই রাস্তা দিয়েই তাকে হাটতে হবে, তার পরিবারের সদস্যদের হাটতে হবে, অন্যদের কথা না হয় নাই ভাবলো… আমি ভাবতেছি আমাদের গলিতে নিচতলা থেকে উপর দিকে তাক করে একটা সাইনবোর্ড লাগাবো যেনো শুধু উপর তলার মহান মানুষরা দেখতে পারে, তাতে লেখা থাকবে “উপর থেকে ময়লা ফেললে আপনে একটা হারামযাদা(ফ্যমিলি সুদ্ধা)”, পারলে একদিন সারাদিন ভিডিও করবো , এরপর কোন কোন বাসা থেকে ময়লা ফেলা হয় সে সব বাসা বের করে ‘হারামযাদা’ সার্টিফিকেট পাঠাবো…ময়লা ফেলেই ভাবে সরকার এসে চেটে পুটে পরিস্কার করে দেবে সব…

রাস্তায় দাঁড়ায় হিসু করা এখন একটা খুব সহজ ব্যপার হয়ে দাঁড়াইছে, এই কাজটা না করলে রাস্তায় টয়লেট জনিত সমস্যা সবাইকেই পোহাতে হত যেটা থেকে একটা ভাল সমাধান পাওয়া যেতো, যেটা না হওয়াতে শুধু মেয়েরা এই সমস্যার সম্মুখীন, ভাবতেছি একটা বিচ্ছু বাহিনী ভাড়া করবো রাস্তায় কাউরে জিপার খুলতে দেখলে ২০ সেকেন্ড ওয়েট করবে তারপর পিছন থেকে পানি ঢেলে দৌড় দেবে… সেই সাথে মেয়েদের জন্য সুব্যবস্থার দাবি জানাচ্ছি… আর যেখানে সেখানে পুরুষত্য না দেখাতে অনুরোধ জানাচ্ছি

চলন্ত গাড়ির সামনে ঠুস করে নেমে পড়ে রাস্তা পার হবার জন্য এই ভেবে যে সে লাট সাহেব আর গাড়ি চালক খুব সহজেই গাড়ি থামিয়ে দেবে, অথচ এটা কি পরিমান বিরক্তিকর এবং ডেঞ্জারাস সেটা গাড়িতে থাকলে বোঝা যায় , কেন ভাই? আপনে ওভার ব্রীজ ব্যবহার কইরেন না,(এটার ডিজাইন আমার পছন্দ না আসলে) আমিও করিনা, কিন্তু চলন্ত গাড়ী থামায় কেন রাস্তা পার হইতে হবে? আপনে মরলে আমাদের কারও কিচ্ছু যায় আসেনা, কিন্তু আপনার পরিবারের কথা ভাববেন না?

মোটরসাইকেল ওয়ালা সাবধান, ফুটপাথে যদি দেখি… ঝামেলা পাকামুই, পারলে চাকার একটা স্পোক ভাইঙ্গা দিমু… এমনিতেই যথেষ্ঠ দ্রুত যাওয়া যায়, এর চেয়েও আগে যাওয়ার কোন কারণ নাই, ভাব নিয়েন না, আপনার থেকে কম দায়িত্ব নিয়া চলিনা আমরা…

একটী নারী পশুকে পছন্দ হলে পুরুষ পশুটা সামনে দিয়ে হেটে যায়, তার আকর্ষনীয় দিকগুলো দেখায়, অতঃপর নারী পশুটার সাথে মিলিত হয়, আপনে কি পশু?না মানুষ? তাইলে মেয়ে দেখলেই কমেন্ট করেন কেন?হা করে তাকায় থাকেন কেন? রিক্সা থেকে ঘাড় ঘুড়ায় পেছনের রিক্সার মেয়ের দিকে তাকান কেন? তাদের অসস্তি লাগতে পারে এইটা বুঝেন না? কে কি কাপড় পড়ছে এইটা নিয়া আপনেরে ভাবতে বলছে কে? আপনেরে আপনার ধর্ম দৃষ্টি সংযত করতে বলেনায়?এই জাত হইছে অন্যরে হ্যরাস কইরা মজা পায়, নিজের কাজ নিয়ে কখনই ব্যস্ত থাকতে পারেনা, আপনের বোন রে কেউ ত্যক্ত করলে কেমন লাগবে? এখন নির্লজ্জের মত জোক্স করে বলেন “আমার তো বোন নাই?” আচ্ছা একদিন মেয়ে তো হবে?এটলিস্ট বৌ? ভাল লাগবে তো অন্যরা হা করে তাকায় থাকলে , ঘাড় ঘুড়ায় আপনার বৌ রে দেখলে, কিংবা রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় কমেন্ট খাইলে?

সমস্যা অনেক, তবে টুকটাক অনেক কিছুই খুব সহজে ঠিক করা যায়… আইন দিয়ে হবেনা, আইনের ফাক গলে কিছু করার মজাই আলাদা… মানুষকে ভালবাসতে হবে, এই শহর কে ভালবাসতে হবে, নিজে সচেতন না হলে এই শহরের উন্নতি হবেনা। একটি পরিস্কার , সব নাগরিক সুবিধা সম্পন্ন , মেয়েদের নিরাপদে ঘুড়ে বেড়ানো ও কর্মস্থলে যাওয়ার মত একটা শহর চাই, সেই শহরের নাম ঢাকা হলে খুশি হব, অন্য কোন শহর থাকলে সেখানেই চলে যাবো, যেখানে থাকবো সেটাই আপন হবে, তার আগ পর্যন্ত ঢাকা ঢাকা ঢাকা ঢাকা বলে চিল্লায় লাভ নাই… ননসেন্স পাবলিকের দল… শিক্ষিত কবে হবি?

২ thoughts on “সমস্যা অনেক, সমাধান সহজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *