অন্ধকার কবরে ৮ মিনিট!!

গতকাল বেলা ২টার দিকে অন্ধকার কবরে ৮ মিনিট অবস্থান করে মরতে মরতে বেঁচে গেছি!! ভাবছেন-এটা আবার কেমন কবর? মানুষ মরে কবরে যায়-আপনি কবর থেকে উঠে এলেন!

আসলে আগারগাওয়ের প্রত্নতত্ত্ব ভবনের লিফটে উঠে যাচ্ছিলাম তিনতলায় তথ্য কমিশনে আমার অফিসে। লিফট চালু হয়ে একটু এগিয়েই হঠাৎ আটকে গেলো। নামেও না উঠেও না আর আমি একাই আছি লিফটে?


গতকাল বেলা ২টার দিকে অন্ধকার কবরে ৮ মিনিট অবস্থান করে মরতে মরতে বেঁচে গেছি!! ভাবছেন-এটা আবার কেমন কবর? মানুষ মরে কবরে যায়-আপনি কবর থেকে উঠে এলেন!

আসলে আগারগাওয়ের প্রত্নতত্ত্ব ভবনের লিফটে উঠে যাচ্ছিলাম তিনতলায় তথ্য কমিশনে আমার অফিসে। লিফট চালু হয়ে একটু এগিয়েই হঠাৎ আটকে গেলো। নামেও না উঠেও না আর আমি একাই আছি লিফটে?

ফ্যান চলছে, লাইটও জ্বলছে; কী করা যায়? লিফট থেকে অটো ঘোষনায় বলছে ইমারজেন্সি বাটুনে টিপতে। ভয়ে আতংকে বারবার টিপছি আর ভাবছি-এই বুঝি আমাকে উদ্ধার করতে কেউ আসবে!

অফিসের ৩জন পিয়নকেও ফোন দিলাম, কেউ ধরেনা? ভয়ে দম বন্ধ হবার আগেই লিফটের দেয়ালে পিটাতে লাগলাম আর ইমারজেন্সি বাটুনেও টিপতে থাকলাম।

কিন্তু নাহ–শেষে চলে গেলো বিদ্যুৎ; এবার ভাবুন কী অবস্থা? ভুতুড়ে কবরের ভেতর প্রচণ্ড ঘামতে লাগলাম! ফ্যান নেই বিদ্যুৎ নেই, ইমারজেন্সি বাটুনেও কাজ হয়না। কারো সাড়াশব্দও নেই।

বাচ্চু নামক পিয়নটা রিডায়ালের পর হঠাৎ ফোন ধরায় তাকে বললাম ঘটনা এবং দেয়ালে প্রচণ্ড আঘাত চালিয়েই গেলাম।

ফলে হঠাৎ দেখি একসময় বিদ্যুৎ, ফ্যান চলে এলো; একটু পরই লিফটও চলতে শুরু করলো। উপরের দিকে উঠতে থাকায় দ্রুত একখানে নেমে গেলাম, সম্ভত ৪তলা হবে।

হাফ ছেড়ে বাচলাম এবং আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করলাম। হেটে নেমে দেখি নিচে লোকজনের ভীড়, যারা ব্যাপারটা জেনেছে আরকি? আমার দেয়ালের পিটুনি শুনেই তারা লিফট চালু করেছে বুঝলাম।

প্রত্নতত্ত্বের এক কর্মচারী আমাকে বলে-স্যার ইমারজেন্সি বেল না টিপে পিটালে কাজ হবেনা। বললাম–কী করে বুঝলেন, বেল টিপিনি? শতবার টিপেছি; আপনার বেল নিশ্চয়ই কাজ করেনা?

সেই ব্যাচারা বলে–না স্যার আপনি সম্ভবতঃ ইমারজেন্সি লেখাটার ওপরই টিপ দিয়েছেন, তাই আমরা শুনতে পাইনি, বেল বাজেনি?

আমার খুব রাগ হলো–বললাম, আমি কী মূর্খ নাকি, লিফটের ঘোষণা শুনেও বেল না টিপে দেয়ালে পিটাই!!

তখন সে বললো, তাহলে আসেন স্যার পরীক্ষা করি। তারপর একজনকে ইমারজেন্সি বেলটিপার জন্য রেখে একটু দূরের ফোনের কাছে আমাকে নিয়ে গেলো।

কিন্তু বেল আর বাজেনা–সেই লোক লিফট থেকে থেকে বেরিয়ে এলে তাকে জিজ্ঞেস করা হলো–বেল টিপলে না কেন? সে বললো–কতবার তো টিপলাম!!

কী বুঝলেন, কী শিখলেন? যন্ত্র সবই বিকল হতে পারে কিন্তু আপনাকে বিকল হওয়া চলবেই না। সব অপশনের পাশাপাশি আমার মতো দেয়ালেও প্রচণ্ড শব্দ তুলতেই হবে; তবেই আমার মত উদ্ধারের ঘটনা ঘটতে পারে। আর ধৈর্যহারা হলে অজ্ঞান হয়ে মরে যাবেন!!

আরেকটি পরামর্শ–পারলে ২/৩/৪ তলায় যেতে লিফটে না চড়াই ভালো একান্ত জরুরি না হলে।। আমিও এখন থেকে এটা মেনে চলবো।

১৬ thoughts on “অন্ধকার কবরে ৮ মিনিট!!

  1. ভালো শিক্ষা। ৪ তলা পর্যন্ত
    ভালো শিক্ষা। ৪ তলা পর্যন্ত উঠতে আমি কখনই লিফট ব্যবহার করিনা। নামার সময় তো প্রশ্নই ওঠে না। এখনও অতো লাট সাহেবের বাচ্চা হই নাই। 😀

    1. শুনে ভাল লাগল, তবে আধুমিক
      শুনে ভাল লাগল, তবে আধুমিক সুবিধা নেয়ায় লাট সাহেব হতে হয়না। এটা ব+যক্তগত অভিরুচি যেমন এখন আমি আপনার পথ ধরলাম।

  2. অফিসে লিফটে চড়তে হয় । এমন
    অফিসে লিফটে চড়তে হয় । এমন বিভীষিকাময় অভিজ্ঞতা হয়নি এখনো । তবে আমিও ভাবছি এখন থেকে ৪/৫ তলা উঠা নামা হেঁটেই করবো ।

  3. (No subject)
    :ক্লান্তকাছিম: :ক্লান্তকাছিম: :ক্লান্তকাছিম: :ক্লান্তকাছিম: :ক্লান্তকাছিম: :অসুস্থ: :অসুস্থ: :অসুস্থ: :অসুস্থ: :অসুস্থ: :অসুস্থ: :ক্লান্তকাছিম: :ক্লান্তকাছিম: :ক্লান্তকাছিম: :ক্লান্তকাছিম: :ক্লান্তকাছিম:

  4. আর যারা পুরোকৌশিলের লোক তারা
    আর যারা পুরোকৌশিলের লোক তারা পায়ে হেঁটে ২০ তলা বিল্ডিং এর শিরি ভাঙ্গার অভিজ্ঞতা আছে!! তাও দিনে দুইটা… লিফট ৬ তলার নিচে থামতেই দেয়া উচিৎ না!! (আবাসিক বিল্ডিং ছাড়া)

  5. লিফটে আটকে যাওয়ার অভিজ্ঞতা
    লিফটে আটকে যাওয়ার অভিজ্ঞতা আমারও একবার হয়েছিল। কিন্তু আপনার মত এত ভয় পাইনি। 😀

  6. পুরাই মাইরালা অবস্থা
    পুরাই মাইরালা অবস্থা দেখি।

    —————————————————
    বন্ধু শক্ত হাতে ধর হাল,
    পাড়ি দিতে হবে অনন্ত পথ দূর পারাবার।…….

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *