ই – তে ইসলামী ব্যংক,তুই রাজা-কার তুই রাজা-কার ?

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী

ইসলামী ব্যাংক না রাজাকারের ব্যাংক ?সেই ব্যাংক থেকে কেম্নে চান্দা নেন,তাও আবার লাখো কন্ঠে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার মত একটা ইভেন্টে !

জীবনে যত টাকা ট্যাক্স ফাকি দিছে এই দেশের বড় বড় শিল্পপতিরা কেবল সেই টাকাই যদি ধরা হয় একশটা জাতীয় সঙ্গীতের ইভেন্ট আয়োজন করা যাবে বাংলাদেশে। সরকার যদি উদ্যোগ নিত জাতীয় সঙ্গীতের পোগ্রামের জন্য কয়েকশো কোটি টাকা কেবল সংগ্রহ করতে পারতো জনগণের কাছ থেকে। দেশের পুজি বাজার থেকে শুরু করে হাজারও প্রতিষ্ঠান আছে যাদেরকে বিভিন্ন প্রনোদনা দিয়ে বিশাল অঙ্কের পুজি সংগ্রহ করা সম্ভব ছিলো ……. :bow:


মাননীয় প্রধানমন্ত্রী

ইসলামী ব্যাংক না রাজাকারের ব্যাংক ?সেই ব্যাংক থেকে কেম্নে চান্দা নেন,তাও আবার লাখো কন্ঠে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার মত একটা ইভেন্টে !

জীবনে যত টাকা ট্যাক্স ফাকি দিছে এই দেশের বড় বড় শিল্পপতিরা কেবল সেই টাকাই যদি ধরা হয় একশটা জাতীয় সঙ্গীতের ইভেন্ট আয়োজন করা যাবে বাংলাদেশে। সরকার যদি উদ্যোগ নিত জাতীয় সঙ্গীতের পোগ্রামের জন্য কয়েকশো কোটি টাকা কেবল সংগ্রহ করতে পারতো জনগণের কাছ থেকে। দেশের পুজি বাজার থেকে শুরু করে হাজারও প্রতিষ্ঠান আছে যাদেরকে বিভিন্ন প্রনোদনা দিয়ে বিশাল অঙ্কের পুজি সংগ্রহ করা সম্ভব ছিলো ……. :bow:

কিন্তু সেসবে না গিয়ে জামাত-রাজাকার-জঙ্গিবাদের অর্থনৈতিক পৃষ্ঠপোষক হিসাবে পরিচিত “ইসলামী ব্যাংকের” শরণাপন্ন হয়েছেন আপনি। কিছুদিন আগেও ‘ইসলামী ব্যংকের’ ১৯ লক্ষ ২০ হাজার টাকার চেক ৪ টি চেক পিলখানা হত্যাকান্ডের শহীদ পরিবারগুলোর নিকট হস্তান্তর করেছিলেন …. :মাথাঠুকি: :কানতেছি:

ইসলামী ব্যাংককে ইনভাইট করে আনতে হয় না। তারা এমন একটা সুযোগ কাজে লাগানোর অপেক্ষায় বহুকাল বসেছিলো। এবং সে সুযোগ তারা এবার ঠিকই কাজে লাগাবে ….. :আমারকুনোদোষনাই: :তুইরাজাকার:

লাখো কন্ঠে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার পোগ্রামে রাজাকার জামাতের বিনিয়োগ দেখতে চাই না। দেশের গৌরবের এমন একটা ইভেন্টের উপরে রাজাকারদের ছায়া পড়লে সেটা জাতির মনস্তত্ত্বের জন্য হুমকিস্বরূপ হবে। জাতীয় সঙ্গীতের সাথে জামাতী অর্থের সংমিশ্রন জনগনের জাতিয় চেতনাকে কলুষিত করে- যা কোনভাবেই অন্তত শেখ হাসিনার নিকট থেকে কাম্য না …… :মাথানষ্ট: :মাথানষ্ট:

ইসলামী ব্যাংকের বর্তমান চেয়ারম্যান কুখ্যাত আল-বদর আবু নাসের মুহাম্মদ আবদুজ জাহের ১৯৭১ সালের শেষান্তে চট্টগ্রামে আল-বদর বাহিনীর কমান্ডার ছিলো।

শান্তি কমিটির নির্বাহী পরিষদের সদস্য আবু নাসের মোহাম্মদ আবদুজ জাহের ’৭১ সালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ইসলামি ছাত্রসংঘের সভাপতি ও চট্টগ্রাম বদর বাহিনীর জেলাপ্রধানের দায়িত্ব পালন করেন (মুক্তিযুদ্ধের প্রেক্ষাপটে ব্যক্তির অবস্থান, (পৃ-৪২৯)

২ আগস্ট চট্টগ্রামের মুসলিম হলে এক সমাবেশে আবু নাসের মোহাম্মদ আবদুজ জাহের বলেন, ‘ভারতের সকল চক্রান্ত নস্যাৎ করে পাকিস্তান টিকিয়ে রাখার জন্য আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাবো।’ (৩ আগস্ট দৈনিক সংগ্রাম, ১৯৭১)

ইসলামী ব্যংকে টাকা রাখে আমজনতা কিন্ত লোন পায় স্রেফ জামাতীরা। ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড জামায়াতের সবচেয়ে বড় এবং লাভজনক সংগঠন। ধর্মের নাম ব্যবহার করে ব্যবসা করে তারা। এই ব্যাংকটির মূল কাজ হচ্ছে জামাত-শিবির যারা করে তাদের ঋণসহ নানা ধরণের আর্থিক সুবিধা দেওয়া। এখানে যারা চাকরি করেন তারাও পরীক্ষিত জামায়াত কর্মী ……..

মাননীয়া প্রধানমন্ত্রীর চেতনা কি আজ বিলুপ্ত ? দুই’কুল খুশী রাখার যুদ্ধ দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে জেতা যায় না …..
টেকাটুকার কাছে সবই নগন্য,ট্যকা টুকা বড় আজিব জিনিষ। যে পায় সে চিল্লায়। যে পায় না সে ও চিল্লায়। যে অল্পে একটুখানি পায় সে বেশি বেশি চিল্লায়

নীতির সঙ্গে আপোষ করতে শিখি নাই,
ই-তে ইসলামী ব্যাংক, তুই রাজাকার তুই রাজাকার

২৬ শে মার্চের জাতীয় সঙ্গীতের অনুষ্ঠানে আমি যাচ্ছিনা। তিন কোটি টাকায় আমি ‘আমার সোনার বাংলা’কে বিক্রি করতে পারলাম না। আমাকে ক্ষমা করবেন :খাইছে: :খাইছে:

৪ thoughts on “ই – তে ইসলামী ব্যংক,তুই রাজা-কার তুই রাজা-কার ?

  1. আমিও থাকবোনা ।প্রত্যাখ্যান
    আমিও থাকবোনা ।প্রত্যাখ্যান করলাম স্বাধীনতা বিক্রি করে হওয়া এ রঙ্গশালাকে ।

  2. ইসলামী ব্যাংককে যারা প্রমোট
    ইসলামী ব্যাংককে যারা প্রমোট করে এবং প্রমোটের স্বপক্ষে সাফাই গায় তারাও রাজাকার। ২৬ তারিখের অনুষ্ঠান বর্জন করলাম।

  3. একটি উদাহরণ দেই। এক পুলিশ
    একটি উদাহরণ দেই। এক পুলিশ কনস্টেবলকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছিল শিবিরের সাথে লবিং করার কারণে। অথচ এক সপ্তাহ যায় নি তার ইসলামী ব্যাংকে চাকরি হয়ে গিয়েছিল।

    পরিশেষে আমিও আপনাদের সাথে একাত্ম হয়ে

    ২৬ শে মার্চের অনুষ্ঠান বর্জন করলাম।

    —————————————————
    বন্ধু শক্ত হাতে ধর হাল,
    পাড়ি দিতে হবে অনন্ত পথ দূর পারাবার।…….

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *