একটি এক মুহুর্তের প্রেম এবং কিছু প্রলাপ!

-বল
-তুমি বল…
-কি…?
-হাবিজাবি যা খুশি…
-তবে তুমিই শুরু কর…
-না।তার চেয়ে বরং চল হারিয়ে যাই পলাশ ফোটা দুপুরে
আকাশের নীলকে জানিয়ে বিদায় পারি জমাই শুভ্র মেঘের দেশে

-মনে মনে…?
-তোমার যেভাবে খুশি?
-উহু…এখন ঘুম পাচ্ছে,তারচেয়ে চল স্বপ্নে ভেসে বেড়াই?
-তবে সেই ভালো,তবু ছুঁয়ে যাবে মন হোক না তা স্বপ্নে?
-ভরদুপুরে ঘুমের ঘোরে থাকবে তুমি নয়ন জুড়ে
ভাসবো আমি স্বপ্ন সুখে…
বাতাস তুমি বয়ে যাও সন্তর্পণে
জাগতে চাইনা আমি,
মরন হবে তবে আমার স্বপ্নভঙ্গের শোকে…

-এই ছেলে মাথায় পানি ঢালো,তোমার মাথা পুড়াই গেছে…

-বল
-তুমি বল…
-কি…?
-হাবিজাবি যা খুশি…
-তবে তুমিই শুরু কর…
-না।তার চেয়ে বরং চল হারিয়ে যাই পলাশ ফোটা দুপুরে
আকাশের নীলকে জানিয়ে বিদায় পারি জমাই শুভ্র মেঘের দেশে

-মনে মনে…?
-তোমার যেভাবে খুশি?
-উহু…এখন ঘুম পাচ্ছে,তারচেয়ে চল স্বপ্নে ভেসে বেড়াই?
-তবে সেই ভালো,তবু ছুঁয়ে যাবে মন হোক না তা স্বপ্নে?
-ভরদুপুরে ঘুমের ঘোরে থাকবে তুমি নয়ন জুড়ে
ভাসবো আমি স্বপ্ন সুখে…
বাতাস তুমি বয়ে যাও সন্তর্পণে
জাগতে চাইনা আমি,
মরন হবে তবে আমার স্বপ্নভঙ্গের শোকে…

-এই ছেলে মাথায় পানি ঢালো,তোমার মাথা পুড়াই গেছে…
-ভালোবাসা লুটায়ে হও যদি অধরা,তবে কি আমি হবো না দিশেহারা?

-কিছু খাওনি তো,মুখ দিয়ে কেবল কবিতা বের হচ্ছে কবি হয়ে গেলে নাকি!
-ইউ নো আই এম নট কবি…
অথচ দেখ,তোমার সাথে কথা হলেই,প্রতিটি শব্দ মিলে হয়ে যায় কোন এক কবিতা!

-কনফিউজড
-কেন? কি নিয়ে কনফিউজড,বল তো উজাড় করে এনে দেবো সমস্ত সুখ তোমার পদতলে?
-OMG! ঘুমাও তাহলে মাথা ঠান্ডা হবে…
-নাহ!ঘুমাতে গেলে চোখের সামনে সে এসে ভর করে!
-কে,এক্স গার্লফ্রেন্ড…?
নাহ!এরকম কেউ নাই!
-তাহলে কি ভর করে?
-জানিনা… হয়তো যাকে ভালোবাসোতে চাই তার না দেখা মুখখানি?

-ঘুমাও স্বপ্ন দেখো আর লিখো কাজে দেবে!
-নাহ!আমি তো লিখতে পারিনা কিছু,যা কিছু বলি সব তোমার কল্যানে…
-মাইর খাবা এবার।
-আমি তো খুন হতে চাই তোমার হাতেই!

-আচ্ছা,তুমি কিসে জেনো পড়ো ?
-টেক্সটাইল, ৩য় বর্ষ…
-বয়স কত?
-হাহাহা (…)সালে জন্ম,এইবার হিসেব করে তুমিই বের করে নাও।
আমি অংকে কাঁচা!

-তুমি আমার চার বছরের বড়!
সমবয়সী হলে তুই ডাকতাম বাট একটু বেশিই বড়
-বন্ধুরা তুই বলে ডাকে,এখন তুমিও ডাকতে চাও তোমার মুখে‘তুমি’কথাটা কত মানিয়ে গিয়েছে বুঝতে পারনি!

-যাও ডাকলাম না,তুমি সম্মোধনটা মন্দ নয়। তবে আপনি টা অতি উত্তম।
-তোমার আমার সম্পর্কে অতি উত্তম থেকে উত্তম আরও ভালো…
-তবে নাম ধরে ডাকি কি যেন তোমার নামটা র দিয়ে না শ দিয়ে
-এতো দ্রুত নাম ভুলে গেলে?সেই ভালো সেই ভালো…
আমার নাম অর্ক!
আচ্ছা…কাউকে চুপি চুপি ভালোবেসে ফেলাটা কি খুব বেশি অন্যায়?

-হুম,অন্যায়।ভালোবাসতে হয় প্রকাশ্যে…
-কিন্তু প্রকাশ করতে যে ভয় হয়… পাছে সে যদি ভুল বুঝে?
-হুম,তবে কিছু কথা মনে রাখাই ভালো পাছে তারো উপায় নেই কোন…
-তবে যে বললে, মনে চেপে রাখা অন্যায়…

-কেও কেও আছে যারা ভালোবাসতে জানে না। তারা ভালোবাসা পাবার যোগ্যতাও রাখেনা
-কিন্তু কেউ যদি ভালোবাসা পাওয়ার আশা না করে,শুধু ভালোবাসার অধিকার টুকুই চায়,?

-তবে সে বাসুক মনে মনে নতুবা কষ্টে নষ্ট হবে তার প্রেম…
কিন্তু আমি পলাশ নামের একজনকে ভালোবাসি। সেই আমার সকল অস্তিেত্ব। আগামি জুনে আমাদের বিয়ে। আমার দিকে হাত না বাড়ানোই ভালো।
-আমি তো তোমাকে ভালো বাসি এই কথা বলি নাই…বোকা মেয়ে!আমি একজনকে পছন্দ করি… কিন্তু বলতে পারছিনা…তাই তোমার সাথে শেয়ার করছিলাম!
তবে তোমাদের জন্য শুভ কামনা…

-আই এম সরি।
-কেন? সরি কেন?
-তুমি আমাকে ভালোবাসো এটা আমি ভাবিনি শুধু একটু ভুল বুঝাবুঝি হয়েছে সরি
-ওহ… হেহেহে… ভুল বুঝাবুঝির কি হইলো? আমরা আমরাই তো… আমরা কি ভালো বন্ধু নই?

-তা বটে,তবে এতক্ষন আমি তোমার সাথে চ্যাট করিনি।যার সাথে আমার বিয়ে ঠিক, যাকে আমি ভালোবাসি সে করেছে।কি চ্যাট হয়েছে জানিনা সব কথা মুছে দিয়েছে…!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *