আমেরিকা – আলকায়দা ভাই ভাই

আমেরিকা আল কায়দা পাঠাচ্ছে । আগে আমাদের দেশটাকে নোংরা করবে । তারপর আসবে পরিষ্কার করার নামে লুটতরাজ করতে । ঠিক যেমনটা তারা নিজেদের সাথে করেছিল । একটা টুইন টাওয়ারের চাইতে তাদের কাছে ইরাক , আফগানিস্তান , সিরিয়া , পাকিস্তান বেশী গুরুত্বপূর্ণ ছিল । টুইন টাওয়ারে হামলা করার ফলেই এই দেশগুলোর আজ এই অবস্থা । অথচ টুইন টাওয়ারে হামলাকরি লাদেন ছিল সোভিয়েত ইউনিয়নে আমেরিকান কমান্ডার । এবং তার সাথে যে সিআইএ এবং এফবিআই এর সক্ষতা ছিল , সেটা তো পানির মতো পরিষ্কার । জঙ্গি বানাচ্ছে আমেরিকা , পাঠাচ্ছে এশিয়ায় ।


আমেরিকা আল কায়দা পাঠাচ্ছে । আগে আমাদের দেশটাকে নোংরা করবে । তারপর আসবে পরিষ্কার করার নামে লুটতরাজ করতে । ঠিক যেমনটা তারা নিজেদের সাথে করেছিল । একটা টুইন টাওয়ারের চাইতে তাদের কাছে ইরাক , আফগানিস্তান , সিরিয়া , পাকিস্তান বেশী গুরুত্বপূর্ণ ছিল । টুইন টাওয়ারে হামলা করার ফলেই এই দেশগুলোর আজ এই অবস্থা । অথচ টুইন টাওয়ারে হামলাকরি লাদেন ছিল সোভিয়েত ইউনিয়নে আমেরিকান কমান্ডার । এবং তার সাথে যে সিআইএ এবং এফবিআই এর সক্ষতা ছিল , সেটা তো পানির মতো পরিষ্কার । জঙ্গি বানাচ্ছে আমেরিকা , পাঠাচ্ছে এশিয়ায় ।

টুইন টাওয়ার হামলার পর আমেরিকা থেকে বিভিন্ন দেশের মোট ১২০০ মুসলিমকে রিটেইন করেছিল এফবিআই । রিটেইন মানে , যাদের আটক করা হয় তারা কোন আইনি সহায়তা পাবে না । এফবিআই এর ইন্টারোগেশান রুম , তারপর গুয়ানতানামোতে । এফবিআইয়ের ভাষায় , রাষ্ট্রের জন্যে হুমকিস্বরূপ কোন কাজ থামাতে তারা আইনের উর্ধ্বে যেতে পারে । রাষ্ট্র তাদের এই ক্ষমতা দেয় ।

গুয়ানতানামো , একটি জেলখানার নাম । এই জেলখানাকে সবচাইতে বড় টর্চার সেলও বলা চলে । যেই ১২০০ জনকে এফবিআই রিটেইন করেছিল , তাদের ইন্টারোগেশানের পর এই গুয়ানতানামোতে পাঠানো হতো । এরপর চলতে থাকতো কয়েক মাসব্যাপী টর্চার ।

এতো টর্চার করার পরেও এই ১২০০ জন থেকে টুইন টাওয়ার হামলার একজন সাসপেক্টও পাওয়া যায় নি । ১০০০ জনকে রিলিজ করে দেয়া হয়েছিল গুয়ানতানামো থেকে । বাকি ২০০ জনের ব্যাপারে জানা যায় নি ।

এই যে একটা সাসপেক্টও পাওয়া গেল না । অথচ মাসের পর মাস এতোগুলা মানুষকে টর্চার করা হল । কারণ আমেরিকা জানত হামলাটা করেছে আলকায়দা । আলকায়েদাকে দানা পানি দেয় আমেরিকা । এজন্যেই মুসলিম সিভিলিয়ানদের টর্চার করে তাদের মনবল ভেঙ্গে দেয়া হয়েছিল । ফলে আলকায়াদা ইজিলি তাদের রিক্রুট করতে পেরেছিল । পরে জানা যায় যে , যাদের গুয়ানতানামো থেকে রিলিজ দেয়া হয়েছিল তাদের মধ্যে অনেকেই আলকায়দার চেনা মুখে পরিণত হয়েছিল ।

এই গুয়ানতানামোর জন্যে সাবেক আমেরিকান প্রেসিডেন্ট বুশ সবচাইতে বেশী সমালোচিত হয়েছিল । বারাক ওবামা ক্ষমতায় আসার পর দুই সপ্তাহের মধ্যে গুয়ানতানামোকে বন্ধ ঘোষণা করেন । পরবর্তীতে অবশ্য বারাক ওবামাকেও লাদেনের শরণাপন্ন হতে হয় । কারণ লাদেনের মৃত্যু নাটকই আরেকবার বারাক ওবামার হাতে ক্ষমতা তুলে দেয় ।

আমেরিকানদের এমনটাই হওয়ার কথা । কারণ তাদের পূর্বপুরুষরা ছিল দাগি আসামী । গ্রেট ব্রিটেনের দাগি আসামীদের নির্বাসনে পাঠানো হতো আমেরিকায় । এই দাগি আসামীদের বংশধররাই আজকের মার্কিনী । তারা সাম্রাজ্যবাদের নেশায় বুদ হয়ে আছে ।

আমরা বীর বাঙ্গালী । পূর্বপুরুষরা বীর ছিল । দুই একটা মীর জাফর ছাড়া আমাদের সবার রক্তেই বীরত্ব মিশে আছে । আসুক আল কায়দা । মামা তোমরা আফগান দেখসো , পাকি দেখসো , এখনো বাঙ্গালী দেখো নাই ।

মার্কিনীরাও মনে রেখো ৭১ এ বাঙ্গালী বাঁশ হাতে নেমেছিল ট্যাংকের বিরুদ্ধে । ফলাফল তোমাদের চোখের সামনে । বাঙ্গালীর সাথে ডাঙ্গুলি খেলো আর কুতকুত খেলো , একটু বুঝে শুনে খেলো । আর মজিনা সাহেব , আপনি হঠাত্‍ মধু ঢালছেন কেন ? আমরা কিন্তু সুন্দরবনের খাটি মধু চিনি । ঐদিকে আপনাদের আলকায়দার বাংলাদেশী ভার্সন টু শিবিরকে সন্ত্রাসী তালিকায় তিনে তুলে দিলেন । আপনারা পারেনও বটে । তবে একটু সাবধানে । আপনাদের মতো কুতকুত প্লেয়ারদের বাঙ্গালী আবার গিফট হিসেবে বাঁশ দিতে খুব পছন্দ করে ।

২০ thoughts on “আমেরিকা – আলকায়দা ভাই ভাই

  1. আমরা বীর বাঙ্গালী ।

    আমরা বীর বাঙ্গালী । পূর্বপুরুষরা বীর ছিল । দুই একটা মীর জাফর ছাড়া আমাদের সবার রক্তেই বীরত্ব মিশে আছে । আসুক আল কায়দা । মামা তোমরা আফগান দেখসো , পাকি দেখসো , এখনো বাঙ্গালী দেখো নাই

    ১০০০% সহমত ভাই… :থাম্বসআপ: আম্রিকা এখনও বাঙ্গালী চিনে নাই… :এখানেআয়: :এখানেআয়:

    মার্কিনীরাও মনে রেখো ৭১ এ বাঙ্গালী বাঁশ হাতে নেমেছিল ট্যাংকের বিরুদ্ধে । ফলাফল তোমাদের চোখের সামনে । বাঙ্গালীর সাথে ডাঙ্গুলি খেলো আর কুতকুত খেলো , একটু বুঝে শুনে খেলো । আর মজিনা সাহেব , আপনি হঠাত্‍ মধু ঢালছেন কেন ? আমরা কিন্তু সুন্দরবনের খাটি মধু চিনি । ঐদিকে আপনাদের আলকায়দার বাংলাদেশী ভার্সন টু শিবিরকে সন্ত্রাসী তালিকায় তিনে তুলে দিলেন । আপনারা পারেনও বটে । তবে একটু সাবধানে । আপনাদের মতো কুতকুত প্লেয়ারদের বাঙ্গালী আবার গিফট হিসেবে বাঁশ দিতে খুব পছন্দ করে

    দ্যাট’স দ্যা স্পিরিট, ম্যান… :বুখেআয়বাবুল: দ্যাট’স দ্যা স্পিরিট… :salute:

  2. হ্যা শুধু আলকায়েদা আমেরিকা
    হ্যা শুধু আলকায়েদা আমেরিকা ভাইভাই না, শিবির-হেফাজত আমেরিকা ভাইভাই সেই একাত্তর থেক ২০১৪ পর্যন্ত। চিনে রাখুন সবাই যারা তাকে চেনেন না।

    1. হ্যা শুধু আলকায়েদা আমেরিকা

      হ্যা শুধু আলকায়েদা আমেরিকা ভাইভাই না, শিবির-হেফাজত আমেরিকা ভাইভাই সেই একাত্তর থেক ২০১৪ পর্যন্ত। চিনে রাখুন সবাই যারা তাকে চেনেন না

      সহমত :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:

  3. আমরা বীর বাঙ্গালী ।

    আমরা বীর বাঙ্গালী । পূর্বপুরুষরা বীর ছিল । দুই একটা মীর জাফর ছাড়া আমাদের সবার রক্তেই বীরত্ব মিশে আছে । আসুক আল কায়দা । মামা তোমরা আফগান দেখসো , পাকি দেখসো , এখনো বাঙ্গালী দেখো নাই ।

    :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:

  4. বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ প্রতিষ্ঠায়
    বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ প্রতিষ্ঠায় আমেরিকা কম চেষ্টা করে নাই। এখনও সফল হয়নি। আমরা সজাগ থাকলে ভবিষ্যতেও পারবে না। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু।

  5. আমেরিকানগো পায়ু পথে মটোরোলা
    আমেরিকানগো পায়ু পথে মটোরোলা সি ১১৫ সেটে ভাইব্রেশন সেট কইরা প্রবেশ করায়া দেওন লাগব , এরপর ঘন ঘন মিসকল। বেশি তেরিবেরি করলে এই পাগলে ড্যান মর্জিনা ফায়ারফক্স এর পায়ুপথে ঝারুর কাঠি ঢুকায়া ভাইঙ্গা দিব। তখন বুঝব কত মাইরে কত ব্যথা

    :ঘুমপাইতেছে: :ঘুমপাইতেছে: :ঘুমপাইতেছে:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *