তথাকথিত আন্দোলনঃ কিছু কাগুজে বাঘের মিথ্যে হুঙ্কার। পর্ব-৩

ইমরান এইচ সরকারের নামে যারা মিথ্যাচার করেন তারা নেহায়েত দুর্মুখ, মুলত যারা তার অতীত রাজনৈতিক ইতিহাস টেনে এনে তাকে কালিমালিপ্ত করার চেষ্টা করেন আমি তাদেরকেই বোঝাতে চেয়েছি। গনজাগরন মঞ্চের মুখপাত্র হিসেবে তার ভুমিকা এবং সেটাকে নেতৃত্ব দিয়ে গন মানুষের দাবিকে তৃনমূল পর্যায়ে পৌঁছে দেবার কৃতিত্ব তার পাওনা। একটা ফাঁসির দাবিকে প্রতিষ্ঠিত করতে গিয়ে তিনি বাংলার আপামর সাধারনের মর্মে যে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বানী পৌঁছে দিয়েছেন সেটা আমাদের গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাসের একটা খণ্ডিত কিন্তু অবিচ্ছেদ্য অংশ হিসেবে পরিগনিত হবে। কিন্তু কথা হল, ইমরান এইচ সরকারের চাওয়া এবং এবং তার ভুমিকা পুরো জাগরন মঞ্চের ভুমিকাকে পরিচালিত করতে ব্যর্থ হয়েছে। অথবা বলা চলে গনজাগরন মঞ্চ ইমরান এইচ সরকারের হাত থেকে ফস্কে অন্য কারো কলকাঠিতে পরিচালিত হয়েছে। কলকাঠি নেড়েছেন পর্দার অন্তরালে অন্য কেউ, ক্রীড়ানক হয়ে চালের ঘুটি হতে বাধ্য হয়েছেন ইমরান এইচ সরকার।

ইমরান এইচ সরকারের দ্বৈত নীতি সেটার সাক্ষ্য বহন করে।

গনজাগরন মঞ্চের প্রাথমিক পর্যায়ে তিনি বারবার বলেছেন, গনজাগরন মঞ্চের এই আন্দোলন একটি অহিংস অরাজনৈতিক আন্দোলন। অর্থাৎ, রাজনৈতিক অবয়বের যে আন্দোলন গুলো এযাবৎ আমরা দেখে এসেছি এ আন্দোলন তার চেয়ে অন্য মাত্রার। এই নতুন আলোর আলোকচ্ছটায় তরুন সমাজের যে অংশ রাজনীতি বিমুখ তারা হটাত করে এক অন্য পথের দিশা পেয়ে ছুটে এসেছিল গনজাগরন মঞ্চে, নতুন কিছু করে দেখাবার প্রত্যাশায়। তাঁদের সে প্রচেষ্টা অবশ্যই লক্ষ্যে পৌঁছে গেছে, অন্তত কাদের মোল্লার ফাঁসির দাবিকে যদি মুল উদ্দেশ্য ভেবে ধরে নেই। ইমরান এইচ সরকার নিজে নেতৃত্ব চেয়ে নিয়েছেন এটা ভাবার কোনও কারন নেই, তাকে অনেকটা জোর করে এবং তার যোগ্যতা বুঝেই তাকে এই দায়িত্বে দেওয়া হয়েছিল। তিনি চেয়েছিলেন তার উপর বর্তানো দায়িত্ব পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে পরিচালিত করতে কিন্তু যখন অবিরত তার পার্শ্ববর্তী মুখচেনা মানুষগুলো তাকে পথভ্রষ্ট করার চেষ্টা করতে লাগল তখন তার “ভগবান অস্থির” অবস্থা! তিনি অনিচ্ছা সত্ত্বেও পথ হারাতে বাধ্য হলেন।

ইমরান এইচ সরকার একজন রাজনৈতিক পরিমণ্ডলের মানুষ। তার দাদা ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা, বাবা ছিলেন আঞ্চলিক কম্যুনিস্ট পার্টির নেতা। ছোটবেলায় রাজনৈতিক আবহে বড় হওয়ার কারনে রাজনীতি এবং গন মানুষের চিন্তা তার রক্ত মজ্জায়। সে প্রচেষ্টা থেকেই জন্ম নেয় Youth for Peace and Democracy, Bangladesh |YPD। যদিও বলা হয় এটার শুরু একযুগ আগে কিন্তু তবুও এর ব্যাপ্তি খুবই সীমিত। তৃনমূল পর্যায়ের বিদ্যালয়গুলোতে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস এবং রাজাকার জামাতের ধর্মান্ধতা ও মুক্তিযুদ্ধে তাঁদের ভুমিকা সম্পর্কে প্রচারনা ছিল এটার মুল লক্ষ্য। পরবর্তীতে তিনি ব্লগার ও অনলাইন এক্তিভিস্তদের জন্য Blogger and Online Activist Network -BOAN নামে একটি পেজ চালু করেন। তাকে আন্তরিক সাধুবাদ জানাই।

যা বলছিলাম, ইমরান এইচ সরকার গনজাগরন মঞ্চকে মুক্তিযুদ্ধের একটি সার্বজনীন স্টেশন বানাতে চেয়েছিলেন, বিশেষ করে প্রথমার্ধে তার সহযোগীরা এ বিষয়ে যথেষ্ট সোচ্চার ছিলেন। কিন্তু স্লোগানে তোমার আমার ঠিকানা পদ্মা মেঘনা যমুনা-র পর তোমার নেতা আমার নেতা স্লোগান কে রহিত করা হল, জয় বাংলার পর জয় বঙ্গবন্ধুকে নিষিদ্ধ করা হল অর্থাৎ জোর করে আওয়ামীলীগ যা গেলাতে চেয়েছিল গনজাগরন মঞ্চ সেটাকে জোর করে নির্বাসিত করার চেষ্টা করতে লাগল। বিভেদের শুরু এখানেই।

এইরান এইচ সরকার কেন মঞ্চের মুখপাত্র হবেন, তার চেয়ে কি অধিকতর যোগ্য কেউ ছিল না, খেয়াল করুন এ প্রশ্ন কেউ একবারের জন্যও তোলে নাই। সর্বসম্মতিক্রমে তিনি মুখপাত্র নির্বাচিত হয়েছিলেন, এমনকি পরবর্তীতে তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ উত্থাপন করার পরও। তিনি সবার আস্থাবান ছিলেন বলেই এটা সম্ভব ছিল। তাহলে মাত্র কয়েকদিনের ব্যবধানে তার প্রতি একশ্রেণীর লোকগুলো বিশদাগার শুরু করল কেন?

সে কথাটা আগে জানতে হবে।

৯ thoughts on “তথাকথিত আন্দোলনঃ কিছু কাগুজে বাঘের মিথ্যে হুঙ্কার। পর্ব-৩

  1. বিভেদের শুরু এখানেই।
    এইরান

    বিভেদের শুরু এখানেই।
    এইরান এইচ সরকার কেন মঞ্চের মুখপাত্র হবেন, তার চেয়ে কি অধিকতর যোগ্য কেউ ছিল না, খেয়াল করুন এ প্রশ্ন কেউ একবারের জন্যও তোলে নাই। সর্বসম্মতিক্রমে তিনি মুখপাত্র নির্বাচিত হয়েছিলেন, এমনকি পরবর্তীতে তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ উত্থাপন করার পরও। তিনি সবার আস্থাবান ছিলেন বলেই এটা সম্ভব ছিল। তাহলে মাত্র কয়েকদিনের ব্যবধানে তার প্রতি একশ্রেণীর লোকগুলো বিশদাগার শুরু করল কেন?

    স্বার্থবাদিরা সব সময় এ প্রশ্ন তুলছে, তুলবেই।

    1. শুধু স্বার্থবাদীরাই এ প্রশ্ন
      শুধু স্বার্থবাদীরাই এ প্রশ্ন তুলতে পারে- এটা যেমন সত্য তেমনি স্পষ্টবাদীরাও যে তুলতে পারতো না সেটা বলা বোধ হয় ঠিক হবে না।

  2. আপনার প্রতি পোষ্টের শেষে
    আপনার প্রতি পোষ্টের শেষে পূর্ববর্তী পর্বের লিংকগুলো সংযোজন করে পোষ্টাইবেন ।
    এতে করে সময় স্বল্পতার দরুন মিস করা পর্বটিও সহজে খুজে পাওয়া সম্ভব হবে ।

    চালিয়ে যান…

  3. চিন্তা করছি আপনার সবগুলা
    চিন্তা করছি আপনার সবগুলা পোস্ট একলগে পইড়া হের পরে বিষদ কমেন্ট করব।

    —————————————————
    বন্ধু শক্ত হাতে ধর হাল,
    পাড়ি দিতে হবে অনন্ত পথ দূর পারাবার।…….
    http://www.facebook.com/sbuchchhwas

    1. সেটা আগেই তো অনুরোধ
      সেটা আগেই তো অনুরোধ করেছিলাম….. কিন্তু ঐ যে আপনার ভ্যা ভ্যা…. ফিনিশিং টা ঠিক ফিনিশিং এর দিকেই যাবে ভাই!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *