ইস্টিশন’ এর জন্য

বর্তমানে হাতে লেখার চর্চাটা মনে হয় অনেক কমে গেছে। পরীক্ষার হল ছাড়া বা খুব একটা বাধ্য না হলে আমরা কেউ হাতে লিখতে চাই না। প্রযুক্তির সাথে তাল মানুষ মিলিয়ে মানুষ তার ক্ষমতার রূপান্তর করে নিচ্ছে। একসময় মানুষ একে অপরের কাছে চিঠির মাধ্যমে যোগাযোগ করত। এখনো মনে আছে হাইস্কুলে পড়ার সময় কিছু বন্ধুর দেখতাম ‘পেনফেন্ড’ থাকত। নিয়মিত চিঠির মাধ্যমে যোগাযোগ করত। এমনকি একে অপরকে উপহার সামগ্রিও পাঠাত। যুগ পাল্টেছে। এখন, প্রতিনিয়ত একে অপরের সাথে পেনফেন্ড না হয়ে মেইল ফেন্ড, ব্লগিং ফেন্ড, ফেসবুক ফেন্ড হচ্ছে। কয়েক বছর আগেও মেইলে , ফেসবুকে এমনকি ব্লগেও ‘মুরাদ টাকলা’ লেখা অথবা ইংরেজিতে লেখা দিতে হতো। বাঙলা লেখা তখন অনেক কঠিন ছিল। বিজয় দিয়ে বাংলা লেখা আসলেই কষ্ট। আমার কীভাবে কীভাবে বিজয়তে অভ্যাস করে ফেললাম জানি না। তবে সারা বিশ্বের বাঙালিরা এতো সহজে ফেসবুক, ব্লগ ও মেইলে বাঙলা লিখতে পারছে তার পুরো কৃতিত্ব কিন্তু অভ্র’র। এই অভ্র’র কারণে আজ লক্ষ লক্ষ বাঙালি ফেসবুক, ব্লগ থেকে শুরু করে ইর্ন্টারনেটের সব জায়গায় বাঙলা লিখতে পারছে। অভ্র যদি এই অসাধ্য সাধন না করত তাহলে এই ভাষার মানে আমাদের ফেসবুক থাকত ‘মুরাদ টাকলাময়’।

নাগরিক ব্লগের কিছু ব্লগার মিলে তৈরি করল ‘ইস্টিশন ব্লগ’। ইস্টিশন ব্লগের প্রথম দিকে লেখা শুরু করি। মনে হয় দশটা’র মতন পোস্ট দিই। এরপর আর লেখা হয়নি কারণ কয়েকদিনের জন্য নির্বাসনে গিয়েছিলাম। ইস্টিশন ব্লগের একটা জিনিস খুব ভাল লাগত; ব্যক্তি আক্রমণ অথবা লেখা পছন্দ না হলে কিংবা ভিন্ন আদর্শের মতামত প্রচার ও প্রসারে বাধা দিতে দেখতাম না। তবে হ্যাঁ, স্বাধীনতা বিরোধীদের জন্য কোন ছাড় নেই। এছাড়াও ইস্টিশন ব্লগ; মাসের সেরা ব্লগার, সেরা গল্প প্রতিযোগীতার আয়োজন করে। যা একজন ব্লগারের জন্য অনুপ্রেরণার। ইস্টিশন ব্লগ ব্লগারদের গোপনীয়তা রক্ষা করে চলে। এছাড়াও ব্লগারদের যখন অবৈধভাবে গ্রেফতার করা হয়েছির তখন অন্যান্য ব্লগের মতন-ই প্রতিবাদে ফেটে পড়ে ইস্টিশনের ব্লগ। আন্দোলন শুধু ব্লগেই থাকেনি রাজপথেও সমান ভাবে ছিল। ইস্টিশন ব্লগ অন্যায়ের কাছে মাথা নত করেনি ভবিষ্যতেও করবে না এমনটিই প্রত্যাশা।

অভ্র’র কথা প্রথমে বললাম কারণ অভ্র ছাড়া আমাদের বেশির ভাগ ব্লগারদের ব্লগিং করা সম্ভব না। অভ্র আছে বলে প্রাণের ভাষা ‘বাঙলা ভাষা’ এতো সহজে লিখতে পারছি। কতো বড় বড় ব্লগ লিখে ব্লগাররা সমাজ, রাষ্ট্রের ভিত নাড়িয়ে দিতে পেরেছে। গত বছর ব্লগ, ব্লগিং, ব্লগার নিয়ে কতো কিছুই না হল। আর সবকিছুই করা সম্ভব হয়েছে ব্লগ ও অভ্র’র কল্যানে। ইস্টিশন ব্লগের জন্মদিনের অনেক অনেক শুভ কামনা রইল।

৬ thoughts on “ইস্টিশন’ এর জন্য

  1. আপনার লেখা কিন্তু আমরা এখন
    আপনার লেখা কিন্তু আমরা এখন মিস করি। ইস্টিশন’র প্রথম দিকে আপনার লেখা পোস্টগুলো পাঠক পছন্দের শীর্ষে ছিল।

  2. অনেক ধন্যবাদ ভাই। ইস্টিশনের
    অনেক ধন্যবাদ ভাই। ইস্টিশনের বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে মনে করে লিখেছেন এতেই খুশী হলাম যার পর নাই। আপনাকে নিয়মিত পেলে আরও খুশী হই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *