হেফাজত ও জামাত-শিবিরের ইসলাম না মানার উদাহরণ # ২



বাংলাদেশে ইসলাম নিয়ে রাজনীতি করা হেফাজত ও জামাত-শিবির কতটুকু নিজেরা ইসলাম মানে বা অনুসরণ করে, চলুন তার কিছুটা স্বরূপ সন্ধানে :-

কতিপয় গুরুত্বপূর্ণ হাদিস :

নবী (স) বলছেন,

‘‘ঈমান ও হিকমত হচ্ছে ইয়ামানী, গর্ব ও অহংকার উটওয়ালাদের, অন্যদিকে শাস্তি ও ধৈর্য-গাম্ভীর্য মেষপালকদের সম্পত্তি’’ (বুখারী-৪০৩৯)

‘‘কিয়ামতের দিন আসলাম, গিফার, মুযাইনা, জুহাইনা গোত্র; আসাদ, তামীম, হাওয়াযিন ও গাতফান গোত্র অপেক্ষা উত্তম বিবেচিত হবে’’ (বুখারী-৩২৫৪)

‘‘বনু নাজ্জার শ্রেষ্ঠ গোত্র, তারপর পর্যায়ক্রমে বনু আবদে আশহাল, বনু হারিস, বনু সাইদা, আনসারদের সব ঘরই উত্তম’’ (তিরমিযী-৩৮৪৫)

‘‘রাজত্ব কুরাইশদের, বিচার বিধান আনসারদের, আযান হাবশীদের, আমানতদারী ইয়ামানীদের’’ (তিরমিযী-৩৮৭১)

নবী (স) বলেছেন, ‘‘ইয়ামেনী লোকের অন্তর নরম, হেকমত, ধর্মীয় জ্ঞান ও ঈমান রয়েছে তাদের মধ্যে ’’ (মুসলিম-৮৮)

নবী (স) বলেছেন, ‘‘গর্ব ও অহংকার উট পালকদের ও নম্রতা বকরীর রাখালদের ’’ (মুসলিম-৯৩)।

এখন ১৩-দফা প্রদান ও সমর্থনকারীগণ দয়া করে বলুন- উপরোক্ত কোন্ ক্যাটাগরির মধ্যে আপনারা?

আসলে আপনারা রাঢ় ও বঙাল অঞ্চলের মানুষ বিধায়, না হিকমতের দাবী করতে পারেন, না উটওয়ালা, না মেষপালক কিংবা আসলাম, গিফার, মুযাইনা বা জুহাইনা গোত্রের লোক। কাজেই ইসলামেতো আপনাদের মত ‘অতি-সাধারণে’র কোন কথা বলা হয়নি কিংবা আপনারা উত্তম এমন কথাও নেই।

ইসলামকে স্বাধীনভাবে ব্যাখ্যা ও পালন করার অধিকার আছে প্রত্যেক মুসলমানের।

আপনারা আপনাদের স্বার্থে বাছাইকৃত ১৩-দফার জন্য হুমকি দিচ্ছেন কেন সকল মুসলমানকে? বিশ্বের সকল মুসলমানের উপর কর্তৃত্ব তথা ফতোয়া জারীর অধিকার আপনাদের কে দিয়েছে? এখন এ হাদিস মানা সম্ভব নয়? যদি তাই হয়, তবে অনেক হাদিসইতো এ যুগে মানা সম্ভব নয় যেমন আপনাদের প্রদত্ত ১৩-দফা। তাহলে বর্তমান যুগে আপনারা উপর্যুক্ত হাদিস অনুসরণ করলেন কই? আপনারা সত্যিকার ইসলাম-প্রেমিক ও হেফাজতকারী হলে, ধর্মান্ধ বাংলাদেশে কিছু কওমী মাদ্রাসা ও তাদের অনুসারীদের নিয়ে এভাবে খেলতে পারতেন না পুরো জাতির বিরুদ্ধে এবং দেশকে টানতে পাতেন না অন্ধকারের দিকে। ইসলাম যেহেতু আপনারাও ১০০% মানছেন না, তাহলে আপনারা আপনাদের সুবিধামত বাছাইকৃত ১৩-দফা বাস্তবায়নে হুমকি দিচ্ছেন কোন সকল মুসলমানকে? আপনারা ইসলামের কে? আপনাদের কথাতো কোরান হাদিসের কোথাও খুঁজে পেলাম না?

সুতরাং আগে আপনারা কোরান ও হাদিস (বুখারী, মুসলিম, আবুদাউদ, ইবনে-মাযাহ, তিরমিযী, নাসাঈ, মুয়াত্তাসহ সব হাদিস) ১০০% মেনে সমাজে দৃষ্টান্ত স্থাপন করুন। সকল মুসলিম দেশে ইসলামী আইন পরিপূর্ণ বাস্তবায়নে ‘আল্টিমেটাম’ দিন, এরপর বাংলাদেশে আসুন কাউকে ক্ষমতা থেকে নামাতে কিংবা ক্ষমতার মসনদে বসাতে।

লেখকের ফেসবুক ঠিকানা [ধর্মান্ধতামুক্ত যুক্তিবাদিদের ফ্রেন্ডভুক্ত হওয়ার আমন্ত্রণ জানাই ] : https://www.facebook.com/logicalbengali

১৭ thoughts on “হেফাজত ও জামাত-শিবিরের ইসলাম না মানার উদাহরণ # ২

  1. মুখোশ উন্মাচনকারী লেখাটির
    মুখোশ উন্মাচনকারী লেখাটির জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ ছোটভাই। চালিয়ে যান, সাথে আছি। :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :ফেরেশতা: :ফেরেশতা: :ফেরেশতা: :গোলাপ: :গোলাপ: :গোলাপ:

    1. জি ভাই সত্যা কথা কইয়া কোন
      জি ভাই সত্যা কথা কইয়া কোন বিপদে পড়ে চিন্তায় আছি। আল্লামালুম। :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি:

    1. কোপাতে থাকেন। খুঁড়ে বের করে

      কোপাতে থাকেন। খুঁড়ে বের করে আনেন। আপনার কোপাকুপিতে জেগে উঠুক আমাদের ঝিমিয়ে পরা চৈতন্য। ”একাত্তরে হয়নি সাজা ,মুক্তিযুদ্ধ হয়নি শেষ ,
      গর্জে ওঠো বীর বাঙালি ,গর্জে ওঠো বাংলাদেশ ।।

      বসন্তের বাতাস দিলেন দাদা মননে।

      :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *