অপেক্ষা

আশ্বিনে ফিরবা বইল্যা
সেই যে গ্যালা মাঝি শ্রাবনের রাইতে-
আথালে বাছুর, চালে লাউ, পোয়াতি বউ সব থুইয়্যা-
পূর্ণিমায় চান্দের আলো গাঙের জোয়ারে ক্যামন ভাইস্যা থাকে!
– তুমি যাও মাঝি ?
চোখটা ছল্‌ছল্‌ কর্ইযা ওঠে;
কি এক আচানক ব্যথায়!

আশ্বিন যায় কার্তিক যায়-
বছর ঘুর্ইযা বছর আসে;



অপেক্ষা

আশ্বিনে ফিরবা বইল্যা
সেই যে গ্যালা মাঝি শ্রাবনের রাইতে-
আথালে বাছুর, চালে লাউ, পোয়াতি বউ সব থুইয়্যা-
পূর্ণিমায় চান্দের আলো গাঙের জোয়ারে ক্যামন ভাইস্যা থাকে!
– তুমি যাও মাঝি ?
চোখটা ছল্‌ছল্‌ কর্ইযা ওঠে;
কি এক আচানক ব্যথায়!

আশ্বিন যায় কার্তিক যায়-
বছর ঘুর্ইযা বছর আসে;
পোলাডার দিকে চাইয়্যা বাঁইচ্যা থাকি-
ন্যাইলে কবেই ঝাঁপ দিতাম পাষাণ জোয়ারে।
মাইনষে ক্যামনে জানি চায়; বড় ডর লাগে-
মাঝি আর যে পারি না!
জোয়ারের টানে পার ভাইঙ্যা যায়- ক্ষ্যাতের আইল
ক্যামন বদমাইশ্যা জোয়ার সব লইয়্যা যায়!

ঘাটের দিকে চাইয়্যা ঠায় দাঁড়াইয়্যা থাকি-
আন্‌ধার জইম্যা ওঠে চোখে মুখে
মনডারে আর বুঝ দিবার পারি না;
মাঝি তুমি ফিরবা তো ?

কাব্যগ্রন্থ: অন্ধকারের আগুন থেকে

৩ thoughts on “অপেক্ষা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *