২১ এবং সাধারণ স্বপ্ন ( বর্ষপূর্তি গল্প প্রতিযোগিতা )

প্রতিদিন ক্লাসে যাবার সময় বাসে করে গেলেও ফিরে আসার সময় অর্ক হেঁটেই আসে।এতে করে সে দিনে পাঁচ টাকা করে জমাতে পারে।দুপুর বেলা ক্লাসের ফাঁকে টিফিনের ভারটা সে বন্ধুদের ঘাড়েই চাপিয়ে দেয়।বুকের ভিতর লালিত স্বপ্নকে চোখ মেলে দেখার আশায় প্রায় দুই মাস যাবৎ সে এভাবেই টাকা জমিয়ে আসছে।অর্কের চোখে শুধু একটাই স্বপ্ন।
হালকা গুড়িগুড়ি বৃষ্টিতে কালো চাঁদর জড়িয়ে প্রতিদিনের মত আজও সেই গাছ তলাতেই বসে আছে।অর্কের চোখে আজ বড় চাঞ্চল্য।আজকে সেই কাঙ্ক্ষিত দিন।যে দিনটিকে ঘিরে সে প্রতিদিন স্বপ্ন দেখে।নানা রঙের স্বপ্ন।

প্রতিদিন ক্লাসে যাবার সময় বাসে করে গেলেও ফিরে আসার সময় অর্ক হেঁটেই আসে।এতে করে সে দিনে পাঁচ টাকা করে জমাতে পারে।দুপুর বেলা ক্লাসের ফাঁকে টিফিনের ভারটা সে বন্ধুদের ঘাড়েই চাপিয়ে দেয়।বুকের ভিতর লালিত স্বপ্নকে চোখ মেলে দেখার আশায় প্রায় দুই মাস যাবৎ সে এভাবেই টাকা জমিয়ে আসছে।অর্কের চোখে শুধু একটাই স্বপ্ন।
হালকা গুড়িগুড়ি বৃষ্টিতে কালো চাঁদর জড়িয়ে প্রতিদিনের মত আজও সেই গাছ তলাতেই বসে আছে।অর্কের চোখে আজ বড় চাঞ্চল্য।আজকে সেই কাঙ্ক্ষিত দিন।যে দিনটিকে ঘিরে সে প্রতিদিন স্বপ্ন দেখে।নানা রঙের স্বপ্ন।
ফেসবুকে আজকে থেকে ঠিক দুই মাস আগে নীলিমার সাথে অর্কের পরিচয় হয়।প্রথম দিন থেকেই অর্ক নীলিমার প্রতি এক ধরনের দুর্বলতা অনুভব করে।এরপর থেকেই ওদের মধ্যে অবসরে ফেসবুকে নিয়মিত কথা হয়।খুব দ্রুত ওদের সম্পর্কটা অনেক এগিয়ে যায়।কেউ কাওকে বাস্তবে দেখেনি।অথচ ওদের ভিতর ভালোবাসার কোন কমতি নেই।
এখন তো বসন্ত, তবে এমন ছন্নছাড়া বৃষ্টি কেন?অহেতুক ভাবনায় হারিয়ে যায় অর্ক।বুকের ভিতর অস্থিরতা দানা বাঁধতে থাকে।খুব ছোট একটা স্বপ্ন। খুব সাধারণ কিছু ভাবনা,ইচ্ছে…পূরণ হবে তো? পিছন পকেটে হাত দেয় অর্ক,মানি ব্যাগটার অস্তিত্ব টের পেয়ে কিছুটা স্বস্তিবোধ করে।এতদিনের স্বপ্ন, ইচ্ছে এবং অপেক্ষা… সময় যেন আর কাটতে চায়না।নীলিমা কখন আসবে?
বিকেলের হালকা রোদে,রিকশায় পাশাপাশি বসে প্রেমিকার উড়ন্ত চুলের দিকে তাকিয়ে মুগ্ধ হতে চাওয়া ,সন্ধ্যায় শাহাবাগের মোড়ে বসে চায়ের কাপে ভালোবাসার স্বাদ নেয়া,সোডিয়ামের আলোয় হাতে হাত রেখে প্রেমিকার চোখে রঙিন স্বপ্ন খুজা… নানা রঙের এই ইচ্ছে গুলো স্পর্শ করেনি এই শহরে এমন মানুষের দেখা পাওয়া ভারি দুর্লভ।অর্কের মনেও এইরকম ইচ্ছে গুলো জাগ্রত হয়নি তা নয়।কিন্তু ওর মনে আরও একটা ইচ্ছে আরও একটা সাধারণ স্বপ্ন।প্রথম দেখা টাকে অর্ক চির স্মরণীয় করে রাখতে চায়।
২০এ ফেব্রুয়ারি।প্রতিদিনের মত অর্ক বসে আছে।ঠিক বসে নেই, অপেক্ষা করছে।শুধুই নীলিমার জন্য নয়,সেই কাঙ্ক্ষিত স্বপ্ন, ২১এ ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহরের শুরু ১২টা ১ মিনিট বাঁজার অপেক্ষা।
নীলিমা কথা দিয়েছিলো, সে আসবে।সন্ধ্যার পর একসাথে রিকশা করে ঘুরবে।দুজনে মিলে ঠিক ১২টা এক মিনিটে শহীদ মিনারে যাবে। ১৯৫২ সালের এই দিনে ভাষার দাবীতে শহীদ সালাম, বরকত, রফিক, জব্বারদের স্মরণে শহীদ মিনারে ওরা দুইজন দুটো ফুল একসাথে করে ভাষা শহীদদের প্রতি ওদের ভালোবাসা এবং শ্রদ্ধা জানাবে।
সন্ধ্যা পার হয়ে রাত হতে চলেছে।নীলিমা এখনো আসেনি।কি করবে অর্ক, ভেবে পাচ্ছে না।এতদিনের জমানো স্বপ্ন কি স্বপ্নই থেকে যাবে?অর্কের মন ভারি হয়ে আসে।চোখ দুটো স্তব্দ হয়ে যায়,দুরে অন্ধকারে কোন এক ছায়ার দেখা পাওয়ার অপেক্ষায়।কিন্তু না।কাওকে আসতে দেখা যায় না।
অর্ক ব্যাপারটা মেনে নিতে পারছে না।নীলিমা হলে থাকে, তার জন্য আজকের রাতে বের হওয়া সমস্যা হবার কথা নয়, এমন তো না যে ফ্যামিলির সাথে থাকে, তাই রাতের বেলা বের হতে দিচ্ছে না?তবে ও আসলো না কেন?
অর্কের কাছে ফোন নাম্বার আছে।কিন্তু ওর অভিমান ওকে বারবার বাঁধা দিচ্ছে।ফোন দেবে কি দেবে না, ভাবতে ভাবতে বেশ রাত হয়ে গেছে।এখন আর নীলিমার আসার কোন সম্ভাবনা নেই।
রমনা থেকে বেরিয়ে হাটতে হাটতে অর্ক শাহাবাগের মোড়ে আসে।ফুলের দোকান গুলিতে প্রচণ্ড ভিড়।জমানো টাকা থেকে দুইটা গোলাপ কিনে,একটা রিকশা ডেকে শহীদ মিনারের উদ্দেশ্যে উঠে বসে।আকাশের হালকা মেঘগুলি ধীরে ধীরে কেটে যাচ্ছে।অর্কের মনের মেঘ কেটেছে কিনা বুঝা যাচ্ছে না।তার মুখে এখন একটি গান গুনগুন করে ধ্বনিত হচ্ছে, ‘’আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি…’’ হঠাৎ পিছন থেকে একটি চিৎকার ওর গুনগুনানিতে বাঁধা দেয়,এই অর্ক, আমাকে ফেলে একাই চলে যাচ্ছ, তুমি না কথা দিয়েছিলে… এই অর্ক…
অর্ক রিকশার ড্রাইভার কে থামতে বলে।হঠাৎ পিছনে তাকিয়ে দেখে নীল শাড়ি পড়া এক তরুণী দাঁড়িয়ে।কে আপনি?প্রশ্ন করতেই অর্কের মনে পড়ে যায় সেই কথা, নীলিমার নীল শাড়িই পড়ে আসার কথা ছিল…
তুমি আমাকে চিনলে কিভাবে? তোমার গাঁয়ে নীল পাঞ্জাবী এবং হাঁতে দুইটি হলুদ গোলাপ দেখে।যদি আমি অর্ক না হতাম? তবে তোমার আমার স্বপ্ন মিথ্যে হয়ে যেতো…এইবার চল দেরি হয়ে যাচ্ছে।

( বর্ষপূর্তি গল্প প্রতিযোগিতা )

১৩ thoughts on “২১ এবং সাধারণ স্বপ্ন ( বর্ষপূর্তি গল্প প্রতিযোগিতা )

  1. সাধারণ স্বপ্নকে অসাধারণের
    সাধারণ স্বপ্নকে অসাধারণের মধ্য দিয়ে চমৎকারভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন!!!
    বেশ ভালো লাগলো।
    :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :গোলাপ: :গোলাপ:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *