বসন্তের পর্নোগ্রাফী…

এই বসন্তে আমারো অধিকার আছে
তোমার নিতম্বে হাত রেখে হারিয়ে যাবার,
বুকের ব্যারাকে রাখা মারনাস্ত্রের আঘাতে আহত হবার।
এই অবিশ্বাসী হৃদয় কখনো বোঝেনা
প্রেমের ভাগারে ভালগার এক ভগবান লুকিয়ে রেখেছি,
যে মাতা চামুন্ডার নামে দুবেলা খিচে নিজের লিঙ্গ!
অশালীন বীর্যের প্রচন্ড আঘাতে সেদিন ভুলেছিলে সব শীবের তান্ডব,
মরুচারী বেদুইনের দ্বীনের দাওয়াতে কামনা দেখেছি আমি,
দেখেছি দুর্দান্ত দিনে কিভাবে নিজের শরীর নিয়ে খেলে শায়িত কিশোর!
তার নরোম উরুর ভাঁজে কার চোখ ছিলো?


এই বসন্তে আমারো অধিকার আছে
তোমার নিতম্বে হাত রেখে হারিয়ে যাবার,
বুকের ব্যারাকে রাখা মারনাস্ত্রের আঘাতে আহত হবার।
এই অবিশ্বাসী হৃদয় কখনো বোঝেনা
প্রেমের ভাগারে ভালগার এক ভগবান লুকিয়ে রেখেছি,
যে মাতা চামুন্ডার নামে দুবেলা খিচে নিজের লিঙ্গ!
অশালীন বীর্যের প্রচন্ড আঘাতে সেদিন ভুলেছিলে সব শীবের তান্ডব,
মরুচারী বেদুইনের দ্বীনের দাওয়াতে কামনা দেখেছি আমি,
দেখেছি দুর্দান্ত দিনে কিভাবে নিজের শরীর নিয়ে খেলে শায়িত কিশোর!
তার নরোম উরুর ভাঁজে কার চোখ ছিলো?

জানিনে!এ কেমন অলক্ষুনে মেজাজে ধরলো আমায়।
আমি আজকাল রাজনীতি রেখে দেবতা হবার স্বপ্নে মেতেছি,
কামার্ত বসন্ত ছুটে যায় একা
আমি কি আর কখনো তার সন্ধান পাবোনা বলো?
যে আমায় যোনীর খোপ মেলে দেখাবে ওখানেও স্বপ্ন থাকে সুনির্দিষ্ট স্বাদে বিবস্ত্র বিন্নাসে,
ওখানেও ভালোবাসা রয় নিষিদ্ধ নগ্নতার আড়ষ্ঠ আড়ালে।

চারতলার বারান্দায় মনে পড়ে
সেদিন বিকেলে আমি কারো ব্রার হুক খুলে খুঁজে পেয়েছিলাম,
একদিকে পৃথিবী অন্যদিকে প্রেমের খোঁজ।
ভাঁজে ভাঁজে গড়া সমাজের যতো লজ্জার যতো সভ্যতার
কবর খুড়ে বলেছিলাম!বয়ে যায় বসন্তের বাতাস!
ওহে বাসন্তী, আশে পাশে কেউ নাই
সিঁড়ির গোড়ায় ঠেস দিয়ে তুমি কি আমার সাথে শোবেনা?

তোমারই মতো কোনো এক নারীর স্তন নিয়ে রবীন্দ্রনাথ
খেলা করতেন খৈনি ডলার মতো তালুতে নিয়ে,
তৃতীয় নয়নে জেনেছি জীবনানন্দ দাস পুরুষত্বহীন ছিলেন!
একমাত্র উত্থানরহিতরাই কবিতা লিখে কল্পিত নারী নিয়ে,
আমি বনলতার ভীরে খুঁজে ফিরি যৌনতার স্বাদ! পাইনি।
যা বরুনার মাঝে ছিলো,কতো রাত তাকে উপুর করে চিৎ করে দু পায়ের ফাঁকে থাকতে দিয়েছি,
আমার সঙ্গম আজকাল ইতিহাস
আজকাল আমিও পেয়েছি কৃষ্ণের নিজস্ব মর্যাদা!
কোনো এক লুলুপ যদিও হয়েছিলো দেবীর ভোগ,
আমিই ভোগ করেছি দেবীকে
সম্ভ্রমে নয় সোল্লাসে গেঁথে দিয়ে আমারই ভ্রুন!

দেবীর গর্ভে কি কখনো জন্ম নেয় মানব সন্তান?জননের সাবলীল সুত্রে?
প্রশ্ন করেছে আমারই নিজের প্রেম!
এর মাঝেও দেখেছি,
সুতপার সেমিজ বেয়ে গড়িয়ে পড়ে ব্রাহ্ম বীজ,
আজ তার সিঁথিতে রক্তিম সিঁদুর কুচকিতে নিজস্ব স্বামীর লালাভ জিভ,
জীভের ডগায় ভালোবাসাহীন লালসা জমায়।
আজ তুমি কার সাথে শুয়ে আছো প্রিয়া?

কার দুয়ারে আজ বাসন্তি বাতাস?
উঠানের তারে রাখা প্যান্টির ফিতেগুলো প্রকাশ্যে দুলছে,
এ দেখেও কি টাটায়নি ভেবেছো?চেপে ধরে দৌঁড়ে পালিয়ে এসেছি ঘরে,
এক হাতে ভ্যাসলিনের কৌটো আর হাতে আমার রণার্দ্র সাপ,
প্রচন্ড আক্রোশে ফুঁসছে!
এভাবেই হাতের হর্ষে গীটার বাজাতে বাজাতে খসিয়ে দিয়েছি তিন সেকেন্ডের সুতীব্র সুর,
পিচ্ছিল, প্রচন্ড লবনাক্ত নীলে

বসন্ত আসে তার নিজস্ব নিয়মে
হাহাকারগুলো এভাবেই যৌনতা হয়ে যায়,
ক্ষয়ে যায়, বয়ে যায়,নিঃশেষ হয়ে যায়।

২৫ thoughts on “বসন্তের পর্নোগ্রাফী…

  1. সিরিয়াসলি ভাই আপনার লেখার হাত
    😀 :ফুল: সিরিয়াসলি ভাই আপনার লেখার হাত আছে বটে… অসাধারন এবং চমৎকার বুনন আর গাঁথুনি… সত্যিই অনেক ভাল লাগল। চালিয়ে যান… আরও অনন্য, অদ্ভুত সুন্দর, ছুয়ে যাওয়া কবিতার অপেক্ষায় রইলাম। :তালিয়া: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :তালিয়া: :salute: :থাম্বসআপ:

  2. কাব্যিক ভাষা সৃষ্টিতে আপনার
    কাব্যিক ভাষা সৃষ্টিতে আপনার দক্ষতা অত্যন্ত প্রশংসনীয় । তবে নান্দনিক ব্যাপারটা মাঝে মাঝেই হারিয়ে যায় মুখ্য হয়ে ওঠে কবির ব্যক্তিগত পাওয়া না পাওয়া জটিল এবং কুটিল সমীকরণ । যে কোন সৃজনশীল কাজে নৈর্বেত্তিক থাকাটা জরুরী , চাপিয়ে দিতে গেলে বা আরোপ করতে গেলে সাহিত্য বাধাগ্রস্থ হয় । একজন স্রষ্টা হিসেবে আপনি কেন তা করবেন ?

    আমি বলছিনা নর – নারীর যৌনতা নিয়ে কবিতা লেখা যাবেনা । প্রাসঙ্গিকভাবে যে কোন শব্দ, বাক্য কবিতায় আসতে পারে । কিন্তু নিশ্চিত করতে হবে যে সৃষ্টিটি ‘ ভাল্গার ‘ নয় ‘ সৌন্দর্য ‘ রসে জারিত । রফিক আজাদের অনেক কবিতা আছে যা কারও কারও কাছে চরম যৌনতাপূর্ণ, অশ্লীল মনে হতে পারে । কিন্তু আমরা জানি রফিক আজাদ কী সৌন্দর্য সৃষ্টি করেছেন ।

    আপনার কাব্যপ্রয়াস চলুক । :ফুল:

    1. আহাহা! গুনি মানুষদের ভাষাটাই
      আহাহা! গুনি মানুষদের ভাষাটাই অন্যরকম।
      রাহাত ভাই যা বলেছেন আমিও তাই বলতে চেয়েছিলাম।
      কবিতায় “ইয়ে” জিনিষটা একটু ইয়েভাবেই এসেছে।

        1. মানে আমি বলতে চাচ্ছি, “ইয়ে”
          মানে আমি বলতে চাচ্ছি, “ইয়ে” নিয়ে এভাবে আপনার ইয়ে করা ভালো হচ্ছে না। আমাদেরও তো একটা “ইয়ে” আছে, তাই না?
          হাহাহা

      1. (No subject)
        :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :গোলাপ: :গোলাপ: :গোলাপ: :গোলাপ:
        :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া:

        1. ধন্যবাদ তারিক ভাই ♥♥♥♥
          @রায়ান

          ধন্যবাদ তারিক ভাই ♥♥♥♥

          @রায়ান ভাই… ইয়ে মানে ইয়েতে যদি একটু ইয়ে হয় তো গীটার বাজালেই হয়ে যায়।ইয়ে আরকি 😀

  3. ” বসন্ত আসে তার নিজস্ব
    ” বসন্ত আসে তার নিজস্ব নিয়মে
    হাহাকারগুলো এভাবেই যৌনতা হয়ে যায়,
    ক্ষয়ে যায়, বয়ে যায়,নিঃশেষ হয়ে যায়। ”

    ভাইয়া তোমার কবিতা হাত নিঃশেষ হোক না লিখে যাও এমন আরো অসাধারণ কবিতা :গোলাপ: :গোলাপ: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া: :ভালুবাশি: :ভালুবাশি: :ভালুবাশি:

  4. কবিতাটা পইড়া ঘাবড়াইয়া
    কবিতাটা পইড়া ঘাবড়াইয়া গেছিলাম,কি মন্তব্য করুম।অনেক ভাবার পর আপাতত আপনেরে প্রনাম করা ছাড়া আর কিছু মাথায় আসতেছেনা। :bow: :bow: :bow: :bow: :bow: :bow: :bow:

      1. ভাইয়া ফোন করা লাগবে না উনি
        ভাইয়া ফোন করা লাগবে না উনি মনেহয় এমনিতেই দিচ্ছে… ব্যপার না ” মানুষ অভ্যাসের দাস ” কিন্তু সত্য কথা আমি :দেখুমনা: :দেখুমনা: :দেখুমনা: :দেখুমনা: :দেখুমনা: :আমারকুনোদোষনাই: :আমারকুনোদোষনাই: :আমারকুনোদোষনাই: :নিষ্পাপ: :নিষ্পাপ: :ফেরেশতা: :ফেরেশতা: :ফেরেশতা:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *