পরিসংখ্যানে ফেবারিট শ্রীলংকা, ফেবারিট বাংলাদেশও!

বাংলাদেশ-শ্রীলংকা টি-টোয়েন্টি সিরিজ

দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটিতে আজ মুখোমুখি হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ও শ্রীলংকা। দুটি ম্যাচই অনুষ্ঠিত হবে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে।


বাংলাদেশ-শ্রীলংকা টি-টোয়েন্টি সিরিজ

দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটিতে আজ মুখোমুখি হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ও শ্রীলংকা। দুটি ম্যাচই অনুষ্ঠিত হবে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে।

পরিসংখ্যানের দিকে তাকালে টি-টোয়েন্টি সিরিজের ট্রফি আপনি এখনোই তুলে দিতে পারেন শ্রীলংকান টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক দিনেশ চান্ডিমালের হাতে। কিন্তু খেলাটার নাম যেহেতু ক্রিকেট এবং ফরম্যাট হচ্ছে টি-টোয়েন্টি, তাই শেষ বল পর্যন্ত কিছু বলার অবকাশ নেই। তারপরও অতীত রেকর্ড আর র্যা ঙ্কিং আপনাকে জানিয়ে দেবে দুই ম্যাচের এই টি-টোয়েন্টি সিরিজে ফেবারিট হিসেবে মাঠে নামতে যাচ্ছে কোন দল।

আইসিসির টি-টোয়েন্টি রাঙ্কিংয়ে ১২৯ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে সবার উপরে আছে শ্রীলংকা। ৭২ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে বাংলাদেশের অবস্থান ১০ নম্বরে। ২০০৬ সাল থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত ৫৮ ম্যাচে শ্রীলংকা জয় পেয়েছে ৩৪ টিতে, হেরেছে ২২ ম্যাচে, ১টি ম্যাচ টাই ও ১টি পরিত্যক্ত। অন্যদিকে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুর্দান্ত জয়ে হয়েছিল বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি অভিষেক। খেলাটার ধরনের সাথে বাংলাদেশের খেলোয়াড়দেরও যায় খুব। কিন্তু সত্যি কথা হচ্ছে এখনো বাংলাদেশ খেলাটি আত্নস্ত্ব করতে পারেনি। এখন পর্যন্ত ৩১ ম্যাচ খেলে ৯ জয়ের বিপরীতে বাংলাদেশের পরাজয় ২২টি। যার মাত্র ৪টিই টেস্ট খেলুড়ে দেশের বিপক্ষে(২টি ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ২টি জিম্বাবুয়ে)।

দুই দলের মুখোমুখি লড়াইয়ে এককভাবে এগিয়ে রয়েছে শ্রীলংকা। দুই ম্যাচের দুটিতেই জয়ী তারা। দুদলের প্রথম সাক্ষাৎ হয় ২০০৭ সালে দক্ষিন আফ্রিকার জোহনেসবার্গে, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে। টসে জিতে প্রতিপক্ষকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান বাংলাদেশের তৎকালীন অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল। নির্ধারিত ২০ ওভারে শ্রীলংকা ৫ উইকেটে করে ১৪৭ রান।

টি-টোয়েন্টিতে ১৪৮ রানের লক্ষ্য খুব একটা বড় নয়। কিন্তু ভাস-ফার্নান্ডো-জয়সুরিয়াদের বোলিংয়ে মাত্র ১৫.৫ ওভারে বাংলাদেশ অলআউট ৮৩ রানে।

টি-টোয়েন্টিতে দু’দলের দ্বিতীয় সাক্ষাৎ হয় গত বছর বাংলাদেশের দলের শ্রীলংকা সফরে। সেখানে অবশ্য একতরফাভাবে হারেনি বাংলাদেশ। এবারও টসে জিতে শ্রীলংকাকে ব্যাটিংয়ে পাঠান বাংলাদেশ অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। কুশাল পেরেরার ৪৪ বলে ৬৪ রানের সৌজন্যে শ্রীলংকা ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৯৮ রান করে। জবাবে বাংলাদেশ নির্ধারিত ওভারে ৭ উইকেটে ১৮১ রান করলে ম্যাচ হারে ১৭ রানে। বাংলাদেশের পক্ষে মোহাম্মদ আশরাফুল মাত্র ২৭ বলে করেন ৪৩ রান।

টি-টোয়েন্টির সেরা রান সংগ্রাহকদের তালিকায় ব্রেন্ডন ম্যাককালামের(৬৪ ম্যাচে ১৯৫৯ রান) পর বাকি তিনজনেই শ্রীলংকান। মাহেলা জয়বর্ধনে (৪৯ ম্যাচে ১৩৩৫ রান), তিলকারাত্নে দিলশান (৫৩ ম্যাচে ১৩১৭ রান) ও কুমার সাঙ্গাকারা (৪৮ ম্যাচে ১২৬৩ রান)।

সবচেয়ে বেশী উইকেট শিকারীদের তালিকায়ও সেরা ছয়জনের মধ্যে দুজন শ্রীলংকান। সাইদ আজমল(৫৯ ম্যাচে ৮১ উইকেট), উমর গুল (৫২ ম্যাচে ৭৪ উইকেট), শহীদ আফ্রিদি (৭০ ম্যাচে ৭৩ উইকেট) এবং স্টুয়ার্ট ব্রডের (৫১ ম্যাচে ৬১ উইকেট) পর রয়েছেন অজান্থা মেন্ডিস (৩৪ ম্যাচে ৬০ উইকেট) ও লাসিথ মালিঙ্গা (৪৮ ম্যাচে ৫৬ উইকেট)।

জয়বর্ধনে-সাঙ্গাকারা-দিলশানের মতো এতো ম্যাচ খেলার সৌভাগ্য হয়নি বাংলাদেশ দলের ব্যাটসম্যানদের। তারপরও টি-টোয়েন্টিতে পাঁচ শতাধিক রান করেছেন তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসান। তামিম ও সাকিব দুজনেই সমান ২৬ ম্যাচ খেলে করেছেন যথাক্রমে ৫৭৬ ও ৫২৮ রান। দুজনেরই অর্ধশতক আছে ৩টি করে।

বাংলাদেশের পক্ষে ২৮ ম্যাচে ৩৯ উইকেট নিয়ে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী আব্দুর রাজ্জাক। তার পরেই আছেন সাকিব। বাংলাদেশেরবিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডারের সংগ্রহ ২৬ ম্যাচে ৩৩ উইকেট।

এ তো গেলো পরিসংখ্যানের হিসাব-নিকাশ। কিন্তু পরিসংখ্যান দিয়ে যদি ক্রিকেট খেলা হতো, তাহলে বিশ্বকাপের আগেই অস্ট্রেলিয়ার হাতে বিশ্বকাপ ট্রফি তুলে দিয়ে বাকিরা রানার্সআপের জন্য লড়াই করতো!

ইতিমধ্যে জানা গেছে, টি-টোয়েন্টি সিরিজের জন্য চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের উইকেট হতে যাচ্ছে ব্যাটিং উপযোগী উইকেট।

১২ ফেব্রুয়ারি পয়মন্ত চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। পরেরটি ১৪ ফেব্রুয়ারি; একই ভেন্যুতে। ২টি ম্যাচই দিবারাত্রির। টি-টোয়েন্টি সিরিজ মাঠে গড়ানোর আগে কেমন পিচ হবে তাই নিয়ে ক্রিকেটারদের পাশাপাশি ভাবছেন ক্রিকেটপ্রেমী দর্শকরাও।

এ ব্যাপারে কিউরেটর জাহিদ রেজা বাবু বলেছেন, ‘৫ নাম্বার পিচে খেলা হবে। পিচসম্পূর্ণ টি-টোয়েন্টি উপযোগী হিসেবে তৈরি করা হয়েছে। তবে এ উইকেটে যারা পরে ব্যাটকরবে, তাদের জন্য ভাল হবে।’ তার মানে তামিম-সাকিবদের জন্য বানানো হচ্ছেব্যাটিং উইকেট।

এই সিরিজে নেই বাংলাদেশ দলের নিয়মিত অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। চট্টগ্রাম টেস্ট চলাকালে আঙুলেব্যথা পেয়েছেন। হালকা চিড়ও ধরা পড়েছে। তাই তাকে পূর্ণ বিশ্রামে রাখা হয়েছে।দলের নেতৃত্ব দেবেন অভিজ্ঞ মাশরাফি বিন মুর্তজা। মাশরাফি দীর্ঘদিন পরদলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

এদিকে টি-টোয়েন্টির মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হতে পারে মিঠুন আলী, শাব্বির রহমান ও বাঁহাতি অর্থডক্স স্পিনার আরাফাত সানি। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে এখনো বলার মতো সাফল্য নেই মুমিনুল, শামসুর, এনামুলদের। নিশ্চিতভাবেই তাই সিরিজের দিকে মুখিয়ে আছেন টাইগাররা।

আরেকটি মজার পরিসংখ্যান দিয়ে শেষ করতে চাই। আজকের ম্যাচ দিয়েই জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক ঘটতে যাচ্ছে। অতীত রেকর্ড বলছে ভেন্যুর অভিষেকে খুলনা ও মিরপুর স্টেডিয়ামে টি-টোয়েন্টি ম্যাচে জয়ী দলের নাম বাংলাদেশ!

বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডঃ
মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, এনামুল হক বিজয়, শামসুর রহমান, মিঠুন আলী, মুমিনুল হক, সাকিব আল হাসান, নাসির হোসেন, শাব্বির রহমান, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, সোহাগ গাজী, আরাফাত সানি, ফরহাদ রেজা, রুবেল হোসেন এবং আল-আমীন হোসেন।

শ্রীলংকা টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডঃ
দিনেশ চান্ডিমাল (অধিনায়ক), লাসিথ মালিঙ্গা (সহ অধিনায়ক), তিলকারাত্নে দিলশান, কুশাল পেরেরা, কুমার সাঙ্গাকারা, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস, মাহেলা জয়বর্ধনে, থিসেরা পেরেরা, অ্যাঞ্জেলো পেরেরা, নুয়ান কুলাসেকারা, সুরাঙ্গা লাকমাল, সাচিত্রা সেনানায়েক, অজান্থা মেন্ডিস এবং সেকুগে প্রসন্ন।

৮ thoughts on “পরিসংখ্যানে ফেবারিট শ্রীলংকা, ফেবারিট বাংলাদেশও!

  1. যদিও পরিসংখ্যান বলছে শ্রীলংকা
    যদিও পরিসংখ্যান বলছে শ্রীলংকা যোজন যোজন এগিয়ে আছে, কিন্তু হৃদয়ের গভীরে পাথরকঠিন বিশ্বাস আমাদের… আজ আমরা জিতব… :পার্টি: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :নৃত্য: :বুখেআয়বাবুল:

    তথ্যবহুল পোস্টের জন্য :ফুল: :ফুল: :ফুল: :ধইন্যাপাতা: :খুশি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *