কড়া মদের বুদবুদ শ্লোগান………..

নুলো মোহের দাপুটে তাড়া খেয়ে মস্কো থেকে আজকের এই দিনে দেশে চলে এসেছিলাম। এয়ারপোর্টের চৌহদ্দি পার হয়ে ফুটপাতে পা রাখতেই শুনতে পেলাম, আমার এক বন্ধু দুর্দান্ত গতির স্বপ্নের পেছনে ছুটতে ছুটতে আচম্বিতে হোঁচট খেয়ে শরীরের সীমানা এক ঝটকায় পেড়িয়ে চলে গেছে কোন এক অন্যরকম দেশে। এপার থেকে তার জন্য আর হাতছানি নেই কোন তাই কাটা তাঁরের বাঁধন ছিড়ে সে আর আসবে না ফিরে।

নুলো মোহের দাপুটে তাড়া খেয়ে মস্কো থেকে আজকের এই দিনে দেশে চলে এসেছিলাম। এয়ারপোর্টের চৌহদ্দি পার হয়ে ফুটপাতে পা রাখতেই শুনতে পেলাম, আমার এক বন্ধু দুর্দান্ত গতির স্বপ্নের পেছনে ছুটতে ছুটতে আচম্বিতে হোঁচট খেয়ে শরীরের সীমানা এক ঝটকায় পেড়িয়ে চলে গেছে কোন এক অন্যরকম দেশে। এপার থেকে তার জন্য আর হাতছানি নেই কোন তাই কাটা তাঁরের বাঁধন ছিড়ে সে আর আসবে না ফিরে।

মস্কো যাওয়ার দিন ভোর চারটার দিকে শেষ সাক্ষাতে, আমার দিকে সরু পেন্সিলের চোখা আগার মত চোখ বেঁকিয়ে বলেছিল, “বন্ধু- ফেরার সময় আমার জন্য এক বোতল রাশান স্ট্যান্ডার্ড অবসিউল্যুট ভদকা নিয়ে এসো।” ফিরে এসেছি, তার জন্য নিয়ে আসতে পারিনি। প্লেনে বসে দুঃশ্চিন্তা করি, দেখা হলে কি দেব তাকে! আহাম্মক আমি, সে থোরাই পরোয়া করে রাশান স্ট্যান্ডার্ড বোতলের! মানব শরীর নামক আধারে পরিপূর্ণ সে নিজেই ছিল অবসিউল্যুট। আমার মত ছিন্ন কাকতাড়ুয়াদের মিছিলে মুষ্টিবদ্ধ সরু হাতের উর্ধ্ব উলম্ফনে ছিপি খুলে বের হয়ে আসা তার শ্লোগান ছিল কড়া মদের অসংখ্য বুদবুদ।
জ্বালো জ্বালো আগুন জ্বালো……
জ্বালোরে জ্বালো আগুন জ্বালো……
………………………………
………………………………
উর্ধ্বে মুখ তুলে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে পড়া কড়া বুদবুদ চেটেপুটে খেয়ে নিতাম আর মাতাল হয়ে যেতাম সমাজ বদলের অত্যুগ্র বিভোরে।
তোমার জন্য শোকগ্রস্ততা নয় বন্ধু। কখনও ডাকিনি তাই ফিরেও আর আসবে না জানি, উর্ধ্বে মুখ তুলে রইলাম, শুধু এক পানপাত্র ভর্তি ফেনায়িত তিক্ত তরল ঢেলে দাও। পান করে আবার স্বপ্নাচ্ছন্ন হব।

৪ thoughts on “কড়া মদের বুদবুদ শ্লোগান………..

  1. “তোমার জন্য শোকগ্রস্ততা নয়
    :মনখারাপ: :মনখারাপ:

    “তোমার জন্য শোকগ্রস্ততা নয় বন্ধু। কখনও ডাকিনি তাই ফিরেও আর আসবে না জানি, উর্ধ্বে মুখ তুলে রইলাম, শুধু এক পানপাত্র ভর্তি ফেনায়িত তিক্ত তরল ঢেলে দাও। পান করে আবার স্বপ্নাচ্ছন্ন হব।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *