সাইকিক

মানুষের চোখের প্রতিটি শিরা উপশিরায় বিচরণ করতে ইচ্ছে করে। মানুষ বড় বিচিত্র প্রাণী! তাদের চোখজোড়াও বড় বিচিত্র!

কারো চোখ নীল। নীল চোখে থাকার কথা সাগরের পূর্ণতা কিংবা আকাশের অসীম শূন্যতা। কিন্তু সেই নীল চোখেই আমি দেখতে পাই হিংস্রতা! গ্রিজলী ভালুকের মত সবকিছু ভেঙেচুরে একাকার করবার তীব্র ক্ষুধা!

আমি তাকাই বিরল সবুজ কর্ণিয়ার চোখের দিকে, দেখতে পাই নির্জীব হতাশাচ্ছন্ন এক মানুষকে, অথচ এই লোকটিকেই আমি ক্যাসিনোতে চোখের সামনে মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার জিততে দেখছি!

কালো চোখগুলো বড়ই রহস্যময়! আমাকে বারবার ধাঁধাঁয় ফেলে দেয়! টলমল করতে থাকা কালো, একইসাথে যেন আনন্দ ও ক্ষোভ দুই মেরুকেই ধারণ করে আছে!

মানুষের চোখের প্রতিটি শিরা উপশিরায় বিচরণ করতে ইচ্ছে করে। মানুষ বড় বিচিত্র প্রাণী! তাদের চোখজোড়াও বড় বিচিত্র!

কারো চোখ নীল। নীল চোখে থাকার কথা সাগরের পূর্ণতা কিংবা আকাশের অসীম শূন্যতা। কিন্তু সেই নীল চোখেই আমি দেখতে পাই হিংস্রতা! গ্রিজলী ভালুকের মত সবকিছু ভেঙেচুরে একাকার করবার তীব্র ক্ষুধা!

আমি তাকাই বিরল সবুজ কর্ণিয়ার চোখের দিকে, দেখতে পাই নির্জীব হতাশাচ্ছন্ন এক মানুষকে, অথচ এই লোকটিকেই আমি ক্যাসিনোতে চোখের সামনে মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার জিততে দেখছি!

কালো চোখগুলো বড়ই রহস্যময়! আমাকে বারবার ধাঁধাঁয় ফেলে দেয়! টলমল করতে থাকা কালো, একইসাথে যেন আনন্দ ও ক্ষোভ দুই মেরুকেই ধারণ করে আছে!

কবিরা বলে চোখে নাকি মনের কথা লেখা থাকে,

চরম ভ্রান্ত একটি ধারণা!

অধিকাংশ চোখই হয় অন্তরের ভাব প্রকাশ করতে পারে না কিংবা সেরেব্রাল হেমিস্ফিয়ারের নির্দেশে বেমালুম চেপে যায়! যদি চোখ দেখে অন্তরের ভাব নিরূপণ করা যেতো, রহস্যময় এই প্রকৃতি রহস্যময়তার বিশাল বোঝা থেকে অনেকাংশে মুক্তি পেতো!

“আমি সাইকিক। আমি তোমার চোখের ভাষাকে উপেক্ষা করে তোমার আত্মার ভাষাকে পড়বো। আমার অসুস্থ চোখের দৃষ্টি তোমার জন্য ট্রুথ সিরাম হিসেবে কাজ করবে। তুমি বুঝতেও পারবে না যে নিখুঁত পাপগুলো তুমি করেছো সেগুলো আমি পড়ে নিচ্ছি এবং তোমাকে প্রতিনিয়ত ক্ষতবিক্ষত করতে থাকা বিবেক নামের ক্ষুধার্ত নেকড়েটার ক্ষুধা নিবারণ করছি! আমি তোমার মস্তিষ্কের প্রতিটি কোষের মাঝে বিচরণ করবো, অলিতে গলিতে ঘুরে বেড়াবো! নির্জীব বরফশীতল চিন্তাগুলোতে তাপ দেব আবার আন্দোলিত হতে থাকা চিন্তাগুলোর মাঝে তুষারপাত নামাবো! তোমার ভ্রান্ত সন্দেহগুলো, যেগুলো ক্রমাগত বিশ্বাসে রূপ নিচ্ছিল, উপড়ে ফেলবো আমি, এক নিমিষে!!!

সব তোমার চাওয়ামত করে দেব আমি, শুধু একবার আমাকে তোমার মস্তিষ্কে প্রবেশের অনুমতি দাও”

৩০ thoughts on “সাইকিক

  1. লেখার ধরণটা ভাল লাগল… আশা
    লেখার ধরণটা ভাল লাগল… আশা করি দারুণ কিছু লেখা পাব।

    ইস্টিতে স্বাগতম। আর বর্তমানে ইস্টির সব বলগারদেরই একটা ডাকনাম থাকে। যেমন আমার ডাকনাম হচ্ছে কাকা। আপনার ডাকনাম কী হবে? সাসা?

        1. ছুডু ভাই, সক্কাল থিকা চশমা
          ছুডু ভাই, সক্কাল থিকা চশমা পইরা বইয়া রইছি, কিন্তু সাসা ওরফে কসা ওরফে সাইদি ভাইরে তো আসমানের কোথাও দেকচি না… :-B 😀 :-B

    1. হিমি, আমিই কমু
      এই নাম দুইটা

      হিমি, আমিই কমু

      এই নাম দুইটা কিরাম??? একটা পছন্দ করেন… ওইটা থেকেই যেকোন এক নামে আপনাকে ডাকা হবে।

  2. ওকে সাসাই পাইনাল!
    btw, আমি

    ওকে সাসাই পাইনাল! 😀
    btw, আমি কিন্তু অ্যামেচার, কমেন্ট একটার জায়গায় কয়েকটা করে ফেলতেছি! :p
    একটু বুঝায় দিয়েন 🙂

  3. উকে, আমি আপনারে হেল্পাইতাছি।
    উকে, আমি আপনারে হেল্পাইতাছি। কমেন্টের ঘরে আপনার বাকচিত লেইখা তারপর নিচের সংরক্ষণ বাটনে ক্লিক করবেন। একবার করলেই হবে। ৩-৫ সেকেন্ড পরেই আপনার কমেন্ট দেখতে পারবেন। :চশমুদ্দিন: :চশমুদ্দিন: :চশমুদ্দিন: :চশমুদ্দিন: :চশমুদ্দিন:

    1. মনে হচ্ছে আপ্নারে শিখায়া দিয়া
      মনে হচ্ছে আপ্নারে শিখায়া দিয়া কুন লাভ হয় নাই। :আমারকুনোদোষনাই: আপ্নে আবার এক কমেন্ট দুইবার মারছেন… :মাথাঠুকি: :ভেংচি: :হাহাপগে: 😀

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *