Carlito’s Way— নিয়তিকে পরাভূত করতে চাওয়া এক ভালো মানুষের গল্প…


নিউইয়র্কের এককালের প্রতাপশালী ড্রাগ সম্রাট Carlito Brigante যখন তার সবচেয়ে কাছের বন্ধু ও তুখোড় আইনজীবী Dave Kleinfeld এর অসম্ভব চাতুর্যে ৩০ বছরের জেলজীবন মাত্র পাঁচ বছর খেটেই বের হয়ে এল, তখন হঠাৎ তার চেনা জানা সাম্রাজ্যটা তার কাছে খুব অপরিচিত ঠেকল। হবেই বা না কেন, শত হলেও ৫টি বছর সে তার পরিচিত সাম্রাজ্য থেকে নির্বাসিত ছিল । আর এর মাঝেই তার সাম্রাজ্যের অধিপতি হয়ে গেছে আরেকজন। কিন্তু সবচেয়ে অবাক কাণ্ড হল, সে আর তার ড্রাগের সাম্রাজ্য ফিরে পাবার কোন চেষ্টা করল না। বরং সে যা মনস্থির করল তা বড়ই অদ্ভুত। সে ভালো হয়ে যাবে, ওই পঙ্কিলতার পথে সে আর পা বাড়াবে না। চেষ্টা করবে ক্যারাবিয়ান দীপপুঞ্জকে ঘিরে থাকা তার এক খুব সাধারন এক স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতে। সমস্যা হল সেই স্বপ্ন পূরণে তার প্রয়োজন ৭৫০০০ ডলার…

যেহেতু সে ড্রাগের সাথে আর জড়াবে না বলে মনস্থির করেছে, সুতরাং তার পক্ষে টাকাটা যোগাড় করা এক কথায় অসম্ভব। কিন্তু ভাগ্যের অদ্ভুতুড়ে পরিহাসে সে হঠাৎ একটা উপায় পেয়ে গেলো। তার এক চাচাতো ভাই প্রতিপক্ষ এক ড্রাগ ডিলারের সামনে শোঅফ করার জন্য তাকে নিয়ে গেলো। যদিও ব্যাপারটা ছিল সামান্য লেনদেন, কিন্তু ওই ড্রাগডিলারের অতিলোভের কারণে ঘটে গেলো চরম অনর্থক এক ঘটনা। ঘটনাচক্রে Carlito এর হাতে এসে পড়ল ৩০০০০ ডলার। নিজের সেই ছোট্ট স্বপ্নপূরণের আশায় সে টাকাটা বিনিয়োগ করল তার পুরনো এক জুয়াড়ি বন্ধুর নাইটক্লাবে। একমাত্র লক্ষ্য, কোনভাবে ৭৫০০০ ডলার প্রফিট করে যত দ্রুত সম্ভব এই পাপপুরী থেকে পালিয়ে যাওয়া। তার এই স্বপ্নের মুকুটে নতুন পালক যোগ হল যখন সে তার হারিয়ে যাওয়া ভালবাসার মানুষটাকে খুঁজে পেল। ফিরে পাওয়া প্রেমিকা তার স্বপ্নে চড়াল নতুন রঙ। ভালোভাবে বাঁচার ইচ্ছা প্রবল হল আরও। কিন্তু সে হয়তোবা জানত না, পৃথিবীর সবচেয়ে ঠুনকো বস্তুর নাম বিশ্বাস। সবসময় নিজের পাশে রাখা বিশ্বস্ত সহচরদের হঠাৎ খুলে যাওয়া মুখোশ আর শত্রুর আচমকা হৃদপিণ্ডে আমূল ঢুকিয়ে দেয়া ছুরি দাঁড়িয়ে গেলো Carlito আর তার স্বপ্নের মাঝে। সে কি পারবে তার স্বপ্নকে ছুঁতে…

Judge Edwin Torres লেখা গল্পে এবং David Koepp এর স্ক্রিপটে Brian De Palma এর পরিচালনায় ১৯৯৩ সালে মুক্তি পাওয়া এই আমেরিকান ক্রাইম ড্রামা মুভিটাতে অভিনয় করেছেন Sean Penn, Penelope Ann Miller, Luis Guzmán, John Leguizamo, Viggo Mortensen সহ আরও অনেকে। প্রধান চরিত্রে অভিনয় করে পুরো মুভিটাকে একাই আলোকিত করে রেখেছিলেন লিজেন্ড দি গ্রেট Al Pacino। খুব অদ্ভুত হলেও সত্য এই মুভিটা রিলিজের পর খুব ভালো বিজনেস করতে পারেনি। কিন্তু পরবর্তীতে Cult মুভির এক অনন্য নিদর্শন হয়ে দর্শকহৃদয়ে একটা বিশেষ জায়গা দখল করে আছে আজো। পুরো মুভিতে প্রান হয়ে ছিলেন পাচিনো, তার অভিনয় নিয়ে বলার মত যোগ্যতা আমার নেই। কিন্তু যে দুজন পাচিনোকে যোগ্য সঙ্গ দিয়ে মুভিটিকে পূর্ণতা দিয়েছেন,তারা হলেন Sean Penn, Penelope Ann Miller। পুরো মুভিতে অনবদ্য অভিনয় করা এই দুজন পরবর্তীতে পেয়েছেন গোল্ডেন গ্লোব মনোনয়ন। রজার এবারট মুভিটিকে তার দেখা ব্রায়ান ডি পালমার অন্যতম সেরা কাজ বলে বর্ণনা করেছেন। পাচিনোর আরেক অবিস্মরণীয় কাজ স্কারফেসের পর এই মুভিটা তাকে এতটাই প্রভাবিত করেছিল যে তিনি নিজের দেয়া রিভিউতে চারের মধ্যে তিনি এই মাস্টারপিসকে দিয়েছেন সাড়ে তিন। তার রিভিউতে থাকা কিছু মুগ্ধতা তুলে দেবার লোভ সামলাতে পারছি না…

In “Scarface,” the hero’s ambitions led only to power, lust and greed. Here something more complicated is taking place; Carlito has grown enough to see himself from the outside, to understand some of the mistakes he made, to plot a way to escape from what seems like the inevitable fate of people in his position. Yet step by step and scene by scene, his fate is sealed.

কিন্তু মজার ব্যাপারটা হল এই মুভিটা মুক্তি পাওয়ার পরে দর্শকদের কাছ থেকে খুব বেশী সমাদর পায়নি। এমনকি অনেক সমালোচকরাও মুভিটির ব্যাপারে নেগেটিভ রিভিউ দিয়েছিলেন। এর কারন হিসেবে পরবর্তীতে যেটি উঠে এসেছে তা হল, এই মুভিটির ক্ষেত্রে দর্শকেরা এর অভিনয়শিল্পীদের আগের কাজ থেকে বেরিয়ে আসতে পারেননি। আল পাচিনো ঠিক এর আগের মুভিতে অস্কার জিতেছিলেন একজন অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তার চরিত্রে, আর পরিচালকের আগের মুভি ছিল স্কারফেস। সুতরাং দর্শকের প্রত্যাশা ছিল আকাশচুম্বী। কিন্তু আসলেই যে এই মুভিটি তার নিজের গুনে সবকিছুর চেয়ে আলাদা, সেই বিষয়টি পরিস্কার হয়েছে রটেনে ৭৮% রেটিং পাওয়া ১৯৯০ এর দশকের সবচেয়ে চমৎকার মুভি হিসেবে মনোনীত হওয়ায়…

এই চলচ্চিত্রটি শুধু অভূতপূর্ব অভিনয় দিয়েই নয়,স্মরণীয় হয়ে আছে এক বিখ্যাত প্লে-ব্যাকের জন্যও। প্রতিটা গানই ছিল হৃদয় ছুয়ে যাবার মতো। কিন্তু You Are So Beautiful গানটা ঝড় তুলেছিল সকল শ্রোতাভক্তের হৃদয়ে। কি যে অকল্পনীয় এক জাদুকরী কণ্ঠে Joe Cocker গেয়েছিলেন গানটি, প্রতিটা শব্দ, প্রতিটা মোচড় শ্রোতার হৃদয়কে ফালাফালা করে চিঁড়ে ফেলেছে প্রতিবার। আমি যখন প্রথমবার মুভিটা দেখি, তখন আসলে মুভির শেষ অংশে এসে এতটাই আবেগপ্রবন হয়ে পড়েছিলাম যে একদমই শেষের দিকে থাকা এই গানটা ওভাবে মন দিয়ে শুনিনি। আসলে সেই মুহূর্তে দেবার জন্য মনটা আমার কাছে ছিল না। শুধু সুরটা কি এক মন্ত্রবলে মাথার ভেতর ঢুকে গেল। সেটাই হল সমস্যা। সেই সুরটা মাথার ভেতর বাজতে থাকার কারনেই কিনা এর পরের ৭ দিন অসংখ্যবার এই গানটা শোনা হয়ে গেল। হয়তোবা গানটা ভারী ভারী দামী শব্দে গাঁথা না, কিন্তু এই সরল সাধারন কিছু শব্দই যেন চিৎকার করে আমার মনের অব্যক্ত কিছু অনুভূতিকে ছড়িয়ে দিতে লাগলো সর্বত্র…

You are so beautiful to me
You are so beautiful to me
Can’t you see
Your everything I hoped for
Your everything I need
You are so beautiful to me

Such joy and happiness you bring
Such joy and happiness you bring
Like a dream
A guiding light that shines in the night
Heavens gift to me
You are so beautiful to me

আইএমডিবিতে 7.9/10 পওয়া এই মুভিটা রটেন টোম্যাটোতে ৩৩টা ফ্রেশ রিভিউ পেয়ে দর্শক সমাদৃত কালট মুভি হিসেবে গণ্য হচ্ছে। বিশেষ করে রটেনে অডিয়েন্সের ভোটটা দেখার মতো। প্রায় ৯২% দর্শক এই মুভিটা দেখে তাদের মুগ্ধতা প্রকাশ করেছেন। আইএমডিবি থেকে John Paul Young নামের এক রিভিউয়ারের কিছু কথা তুলে ধরছি…

Pacino’s performance as Carlito Berganzi displays the duplicity (কপটাচরণ, শঠতা) and subsequent torment between his reformed spirit, and the endless seduction of the street, embodied more specifically as his reputation,legacy,those who know him, of him, and those whom he allows in his innermost circle. Sean Penn is phenomenal as the lawyer representing Carlito, his metamorphosis into character is testament to his depth of talent.

আল পাচিনো এই চলচ্চিত্রে ঠিক কতটুকু অবিচ্ছেদ্য অংশ সেটা বলার আগে কিছু কথা বলার প্রয়োজন বলে মনে করছি। আমি আসলে আল পাচিনোকে নিয়ে লেখার মতো সাহস পাই না। কারনটা খুব অদ্ভুত শোনালেও খুব সত্য। আমার মনে হয় এই মানুষটিকে নিয়ে যাই লিখি না কেন, সেটি তাকে পরিপূর্ণভাবে ব্যাখ্যা করতে অক্ষম। আমার মতে পাচিনো পৃথিবীর সেই অতি অল্প কয়েকজন অভিনেতার মধ্যে একজন যাদের অভিনয় কখনই অভিনয় বলে মনে হয় না, মনে হয় তাদের অভিনীত চরিত্রগুলো আমাদের বাস্তব জীবনের খুব অপরিহার্য কোন অংশ… তারা ওই অংশটা মুভিতে অভিনয় করে দেখানোর আগে পর্যন্ত আমাদের মন এই ব্যাপারে জানতই না। তাদের অভিনয় দেখার পর তাই আমরা হতবুদ্ধি হয়ে তাকিয়ে থাকি। এটা কি দেখলাম?? জীবনের খুব রুঢ় বাস্তবগুলো খুব অদ্ভুতরকমের স্বাভাবিকভাবে উপস্থাপনের জন্য এই অল্প কয়েকজনকে আমরা আর সবার চেয়ে আলাদা করে দেখি। আর আল পাচিনোর ব্যাপারে আমার এই অতি অভাজন মনের পর্যবেক্ষণ হল, এই লোকের অভিনয় দেখার ব্যাপারে সাবধান। কেননা ইনি তার অভিনয় দিয়ে আপনার মনকে নিয়ন্ত্রন নিয়ে নেবেন, এরপর আপনার মনের সবচেয়ে গভীর অংশে স্থায়ীভাবে বসতি স্থাপন করে আপনাকে তার স্থানে কল্পনা করতে বাধ্য করবেন। কিন্তু আপনি যতই চেষ্টা করুন না কেন, তার জায়গায় আপনি আপনাকে কল্পনা করতে পারবেন না। কেননা এইরকম অসম্ভব প্রভাববিস্তারকারী অভিনয় শুধু একজনই করতে পারেন, পৃথিবী নামক এই গ্রহে আল পাচিনো একজনই…

হয়তোবা অনেক বেশী বলে ফেললাম। কিন্তু এতে কোন ভুল নেই। দর্শককে পুরোপুরি নিজের অভিনয়ের জাদুতে মোহাবিষ্ট করে ফেলার এক অসম্ভব ক্ষমতার অধিকারী এই মানুষটি। বিশেষ করে এই চলচ্চিত্রের আপাত অতি সাধারন দৃশ্যগুলোও যখন শুধুমাত্রও এই ব্যক্তিটার অনবদ্য চরিত্র রুপায়নের কারণে অনন্য অসাধারণ গভীরতায় উদ্ভাসিত হয়ে ওঠে, তখন আসলে আল পাচিনো কিংবা আল পাচিনোর কোন চলচ্চিত্রকে রেটিংয়ে ফেলার কথা মনেও আসে না। বিশেষ করে এক অবশ্যম্ভাবী ভাগ্যকে নিদারুণ যন্ত্রণাদায়ক অসহায়ত্বে আর উদ্ভ্রান্ততায় বারবার ফাকি দিয়ে একটু শান্তি, একটু স্বস্তির খোঁজে কারলিটোর অবিরাম ছুটে বেড়ানো ছুয়ে যায় খুব পাষাণেরও হৃদয়। তাই এই মুভিটি হয়তোবা সেই অর্থে ব্লকবাসটার হিট কোন মুভি নয়, কিন্তু চোখের আয়নায় দেখা খুব ছোট্ট সাধারন এক স্বপ্নের পেছনে ছোটা একজন চাপদাড়িওয়ালা ড্রাগলর্ডের অনন্য উপাখ্যান হিসেবে এটি অমর হয়ে থাকবে চিরকাল….

আইএমডিবি — http://www.imdb.com/title/tt0106519/

টরেন্ট ডাওনলোড– http://yify-torrents.com/movie/Carlitos_Way_1993

রজার এবারট রিভিউ– http://www.rogerebert.com/reviews/carlitos-way-1993

রটেন টোম্যাটো রিভিউ — http://www.rottentomatoes.com/m/carlitos_way/

২২ thoughts on “Carlito’s Way— নিয়তিকে পরাভূত করতে চাওয়া এক ভালো মানুষের গল্প…

  1. আমার মতে পাচিনো পৃথিবীর সেই

    আমার মতে পাচিনো পৃথিবীর সেই অতি অল্প কয়েকজন অভিনেতার মধ্যে একজন যাদের অভিনয় কখনই অভিনয় বলে মনে হয় না, মনে হয় তাদের অভিনীত চরিত্রগুলো আমাদের বাস্তব জীবনের খুব অপরিহার্য কোন অংশ… তারা ওই অংশটা মুভিতে অভিনয় করে দেখানোর আগে পর্যন্ত আমাদের মন এই ব্যাপারে জানতই না। তাদের অভিনয় দেখার পর তাই আমরা হতবুদ্ধি হয়ে তাকিয়ে থাকি। এটা কি দেখলাম?? জীবনের খুব রুঢ় বাস্তবগুলো খুব অদ্ভুতরকমের স্বাভাবিকভাবে উপস্থাপনের জন্য এই অল্প কয়েকজনকে আমরা আর সবার চেয়ে আলাদা করে দেখি। আর আল পাচিনোর ব্যাপারে আমার এই অতি অভাজন মনের পর্যবেক্ষণ হল, এই লোকের অভিনয় দেখার ব্যাপারে সাবধান। কেননা ইনি তার অভিনয় দিয়ে আপনার মনকে নিয়ন্ত্রন নিয়ে নেবেন, এরপর আপনার মনের সবচেয়ে গভীর অংশে স্থায়ীভাবে বসতি স্থাপন করে আপনাকে তার স্থানে কল্পনা করতে বাধ্য করবেন।

    অসাধারণ রিভিউ। :bow: :bow: :bow:

    1. অশেষ কৃতজ্ঞতা ও ধইন্না পাতা
      অশেষ কৃতজ্ঞতা ও ধইন্না পাতা কারাগার ভাই… :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :গোলাপ: :গোলাপ: :গোলাপ: :ফুল: :ফুল: :বুখেআয়বাবুল:

      মুভিটা দেখে জানায়েন কেমন লাগলো… :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :অপেক্ষায়আছি:

  2. অসাধারণ লিখেছেন ডন ভাই।
    অসাধারণ লিখেছেন ডন ভাই। মুভিটা দেখা হয়নি। দেখতে হবে। আর আপনার হাড্ডিতে একবার হানা দিতে হবে মুভির জন্য। 😀

  3. রিভিউটা পরার পরে কমেন্ট লেখার
    রিভিউটা পরার পরে কমেন্ট লেখার আগে যেই কাজটা করেছি সেটা হল মুভিটা ডাউনলোড দিয়েছি। আর কিছু বলতে হবে রিভিউ সম্পর্কে ?? :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া:

    1. নাহ, আর কিছু বলতে হবে না, আমি
      নাহ, আর কিছু বলতে হবে না, আমি ধন্য হয়ে গেলাম… :নৃত্য: :আমারকুনোদোষনাই: আমার পরিশ্রম সার্থক… :বুখেআয়বাবুল: এইবার দেখে জানায়েন কেমন লাগলো… :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :অপেক্ষায়আছি:

      একরাশ :ফুল: :ফুল: :ফুল:

    1. ইউটিউব লিংকটা তোঁ খুঁজে পেলাম
      ইউটিউব লিংকটা তোঁ খুঁজে পেলাম না… :কানতেছি: :কানতেছি: :কানতেছি: দাড়াও, কোথাও থেকে ম্যানেজ করে দিচ্ছি…

  4. This is one of my favourite
    This is one of my favourite movies of all time. Thanks for your review my friend. So, what did you like in this movie apart from Pachino’s acting? There’s more story in this movie than acting. I mean what do you think – what brought him so close to his destiny but failed him?

    “I can’t write Bangla from my phone. Excuse me for that.”

    1. সেটা আসলে আমি বলার চেষ্টা
      সেটা আসলে আমি বলার চেষ্টা করলে না যতটা ভালো হবে, তারচেয়েও চমৎকার হবে যদি আপনি আপনার অনুভূতিটা শেয়ার করেন নাভিদ ভাই… :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: আপনার মতামত জানার জন্য অধীর আগ্রহে রইলাম… :থাম্বসআপ: :অপেক্ষায়আছি:

      পড়বার জন্য অশেষ :ফুল: :ফুল: আর :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:

  5. চমৎকার রিভিউ ডন দা।
    চমৎকার রিভিউ ডন দা। :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:

    …..যদিও মুভি টা আগে দেখিনি।আশা করছি খুব শীঘ্রই দেখে ফেলব।
    :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:

    1. ধন্যবাদ খাজা ভাই…
      ধন্যবাদ খাজা ভাই… :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ফুল:

      দেখে জানাবেন কেমন লাগলো… :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :বুখেআয়বাবুল:

  6. চমৎকার এই মুভিটির অফিসিয়াল
    চমৎকার এই মুভিটির অফিসিয়াল ট্রেইলরঃ

    আর সেই বিখ্যাত গানটির লিঙ্কঃ

    বরাবরের মতই চমৎকার একটা মুভি রিভিউ ডন!! তোমার মুভি প্রেম দেখলে আসলেই হিংসা হয়!! দুর্দান্ত…

    1. অসংখ্য কৃতজ্ঞতা লিংকন ভাই…
      অসংখ্য কৃতজ্ঞতা লিংকন ভাই… আপনার মতো সমঝদার পাঠক আর মুভিফ্রিক থাকলে মুভি নিয়ে কিছু লেখার উৎসাহ পাই… :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :গোলাপ: :বুখেআয়বাবুল:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *