বাংলাদেশের দখলে চাদ-আকাশ-বাতাস-সূর্যঃচাদে সাঈদী ও অন্যান্যরা যাওয়াতে আমরা কি পেতে পারি

একদা আমাকে এক মুমিন বান্দা কইলেন আপনার ‘ঈমান-আকীদা’ তে সমস্যা আছে।আমি জিগাইলাম কেন ভাই?কি হইছে?
আপনার ঈমান-আকীদা ঠিক থাকলে আপনি চান্দে সাঈদি হুজুর রে দেখতেন।তারে আর বুঝাইতে পারলাম না ইসলামে এগুলা বলা-ভাবাও নিষিদ্ধ।
মন খারাপ বাসায় গেলাম।তারপর সাইকোলজিস্টদের মত অনুযায়ী শেয়ার করে কষ্ট কমানোর ধান্ধা করলাম।দাদী আর বাপরে কইলাম।উনারা কইলেন মন খারাপ না করতে।দেশের ক্রান্তিকালে চাদে-সূর্যে-আকাশে-বাতাসে হাবিজাবি বহুত কিছু দেখতে পাওয়াটা বাংলাদেশীদের অভ্যাস।প্যাশনেট জাতি তো তাই আর কি।
আমি জিগাইলাম তাই নাকি?উদাহারন দেন।
১ নং উদাহারনঃ

একদা আমাকে এক মুমিন বান্দা কইলেন আপনার ‘ঈমান-আকীদা’ তে সমস্যা আছে।আমি জিগাইলাম কেন ভাই?কি হইছে?
আপনার ঈমান-আকীদা ঠিক থাকলে আপনি চান্দে সাঈদি হুজুর রে দেখতেন।তারে আর বুঝাইতে পারলাম না ইসলামে এগুলা বলা-ভাবাও নিষিদ্ধ।
মন খারাপ বাসায় গেলাম।তারপর সাইকোলজিস্টদের মত অনুযায়ী শেয়ার করে কষ্ট কমানোর ধান্ধা করলাম।দাদী আর বাপরে কইলাম।উনারা কইলেন মন খারাপ না করতে।দেশের ক্রান্তিকালে চাদে-সূর্যে-আকাশে-বাতাসে হাবিজাবি বহুত কিছু দেখতে পাওয়াটা বাংলাদেশীদের অভ্যাস।প্যাশনেট জাতি তো তাই আর কি।
আমি জিগাইলাম তাই নাকি?উদাহারন দেন।
১ নং উদাহারনঃ
৪৭ এর দেশভাগের সময় নাকি মুসলমানরা ফযর নামাজ পড়ার আগে ওযুর পানির পাত্রে সূর্যের আলো প্রতিফলনে পাকিস্তানের চাদ-তারা পতাকা দেখতে পাইতো।
আর হিন্দুরা সকালে পূজ়ার সময় একই ভাবে দেখতো ভারতীয় কংগ্রেসের পতাকা।
মার শালা।
২নং উদাহারনঃ
৭১ এর মার্চে পেপার পত্রিকায় একটা খবর দেখা গেল।সারাদেশের বিভিন্ন জায়গায় হিন্দুরা সারারাত জুড়ে আকাশের দিকে তাকায় পুজ়া করে।তো কাহিনী টা কি আসলে?
তেমন কিছু না,বংগবন্ধুরে ভগবানের অবতার হিসেবে নাকি আকাশে দেখা যাইতেছে।
আইরে সর্বনাশ।
তো আমি সিদ্ধান্তে আইলাম আসলে আমরা প্যাশনেট জাতি তাই সারাক্ষনই কাউরে না কাউরে দেখতাছি।সমমতাবলম্বীদের কেই শুধু ইনফর্ম করি আর কি।
যেমনঃ
অনেকে নিজেদের প্রিয় নায়ক-নায়িকাদের নিশ্চিত দেখে।প্রতিরাতে আকাশের পানে চেয়ে দেখি শাহরুখ,সালমান,আমির,অনন্ত,শাকিবদের এই টাইপ অবস্থা।
নায়িকাদের কে মনে হয় না আজকাল কেউ দেখে।সানি লিওন আইসা সবার বাজার খাই দিসে।
প্রিয় গায়ক-গায়িকাদেরকেও দেখতে পারেন অনেকে।তবে পড়শী,সালমা,আরেফীন রুমী,হৃদয় খান এর ভক্তরা এদের কে দেখে আমি ১০০% নিশ্চিত।
মেটাল যারা শুনেন অথবা মনে করেন যে শুনেন তারাও কম না।উনারা দেখবেন জ়েমস হ্যাটফিল্ড থেকে শুরু কাভালেরা,মাস্টেইন সবডিরে দেখে।আমিও এই গ্রুপে আমি হঠাত হঠাত জন পেট্রুচ্চিরে দেখি।শালায় যা বাজায়।
ফুটবল ফ্যানরা এই লিস্টে অন্যতম।ম্যানইউ এর ফ্যানরা স্যার এলেক্স রে উনার রিটায়ারমেন্টের দিনে দেখছেই।মাদ্রিদিস্তারা ইদানিং সি আর৭ রে আর বার্সার ফ্যানরা মেসিরে।আমি বিশ্বকাপ আইলে দেখি শোয়ানস্টাইগার রে।সো লজ্জার কিছু নাই।
আবার চেতনা বাজরা দেখেন জাফর ইকবালরে অথবা আরো কত বুদ্ধিজীবী আছেনা?ঐ আর কি?
আবার এদের এন্টি যারা।আই মিন মামুরা তো অলরেডি সাঈদিরে দেইখা ফেলছে।গোলাম আজম,নিজামী এখনো বাকি আছে বলে মনে হয় না।
এগুলা নিয়ে লুকানোর কিছু নাই।স্বাধীন চট্টগ্রামে যেখানে শিক্ষামন্ত্রী Tanvir Islam
আসমানে কলা দেখে রেগুলার।সেখানে বাকীরা যা ইচ্ছা দেখতে পারবে।স্বাধীন চট্টগ্রাম চাদ-সূর্য-আকাশ-বাতাস সবার জন্য।
তয় ট্রাই করবেন বাইরের মানুষ জন না দেইখা ঘরের মানুষজন মা-বাবা-ভাই-বোন-বাইচ্চা-বউ দের দেখতে।

১৪ thoughts on “বাংলাদেশের দখলে চাদ-আকাশ-বাতাস-সূর্যঃচাদে সাঈদী ও অন্যান্যরা যাওয়াতে আমরা কি পেতে পারি

  1. চাদেঁ তো নবী রাসূল কাওরেই
    চাদেঁ তো নবী রাসূল কাওরেই দেখা যায় নাই!! আর হুট কইরাই সাঈদী রে দেখা গেলু!!! ওইদিন হাসতে হাসতে আমি শ্যাষ!!! 😛
    btw পরের রায় গুলাতে সবতের DSLR লইয়া রেডি থাকন লাগবো!! হোক সূর্য!! 😛

  2. ধ্রুবস্বর স্যাটায়ার ভাল
    ধ্রুবস্বর স্যাটায়ার ভাল হয়েছে…….

    তবে ধ্রুবস্বর ভাই একটু লক্ষ্যকরুণ, ইস্টিশন বিধির ৫নং ধারা মোতাবেক,

    ৫. প্রথম পাতায় একজন যাত্রী’র দুই’য়ের অধিক পোস্ট এলে ফ্লাডিং বলে গণ্য করা হবে। কোন যাত্রী’র প্রথম পাতায় দুই’য়ের অধিক পোস্ট দেখা গেলে পুর্বের পোস্টের গুরুত্ব বিবেচনায় যে কোন দুইটি রেখে অন্য পোস্টগুলো প্রথম পাতা হতে সরিয়ে দেয়া হবে। যে কোনো ধরনের স্প্যামিং, কোডিং মুছে দেয়া হবে।

    ধ্রুবস্বর ভাই ইস্টিশনের একজন যাত্রী হিসাবে ইস্টিশন বিধি পড়ে নেওয়া আপনার নৈতিক দায়িত্ব বলে মনে করি,তাই ইস্টিশন বিধি টি পড়ে নিবেন বলে আশা রাখি।

    ইস্টিশনবিধি: http://istishon.blog/node/8#sthash.VqLLJNEX.dpbs

    ধন্যবাদ।

  3. আবার চেতনা বাজরা দেখেন জাফর

    আবার চেতনা বাজরা দেখেন জাফর ইকবালরে অথবা আরো কত বুদ্ধিজীবী আছেনা?ঐ আর কি?

    ঠিক কি বোঝাতে চাইলেন, বুঝতে পারিনি… :কনফিউজড: অনুগ্রহ করে ব্যাখ্যা করবেন কি?? :অপেক্ষায়আছি:

  4. সাইকোলজিস্টদের মত অনুযায়ী

    সাইকোলজিস্টদের মত অনুযায়ী শেয়ার করে কষ্ট কমানোর ধান্ধা করলাম।দাদী আর বাপরে কইলাম।উনারা কইলেন মন খারাপ না করতে।দেশের ক্রান্তিকালে চাদে-সূর্যে-আকাশে-বাতাসে হাবিজাবি বহুত কিছু দেখতে পাওয়াটা বাংলাদেশীদের অভ্যাস।প্যাশনেট জাতি তো

    কন কি ভাই !! তখনও বাংলাদেশী ছিল নাকি ?

  5. ব্লগে এসে একসাথে এত লেখা
    ব্লগে এসে একসাথে এত লেখা একসাথে না দিয়ে ধীরে ধীরে পোস্ট করেন। আপনি একদিনে দেখি তিনটা লেখা পোস্ট করেছে। একটু ইস্টিশন বিধি পড়ে আসলে ভাল হয়।

  6. ভক্তের গরু গাছে চড়ে!
    ভক্তের গরু গাছে চড়ে! ধার্মীকরা এমন সব আজগুবী জিনিস বিশ্বাস করে যে সেসব কতটা পাগলের র্কীতি তা বুঝা যায় তারা যখন একে অন্যের বিশ্বাস নিয়ে ঠাট্টা তামাশা করে, এবং যুক্তির আশ্রয় নিয়ে এক ধর্মের অনুসারী অন্য অনুসারীদের বিশ্বাস নিয়ে যুক্তিতে ফেলে ডলা দেয়। উদাহরণ: হিন্দুদের ভূত-প্রেতে বিশ্বাসকে উপহাস করে জ্বিনকে কোন যুক্তি ছাড়াই মুসলমানের বিশ্বাস করে ফেলা!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *